ড্যাফোডিলে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা

ড্যাফোডিলে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের আয়োজনে ‘বিজনেস অ্যালামনাই নাইট’ শীর্ষক এক প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে এ প্রাক্তন সম্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পারটেক্স গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কে এম আলী। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অ্যালামনাই অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম, বাণিজ্য ও অর্থনীতি অনুষদের ডিন অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান মাসুম ইকবালসহ ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষক ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করেছে মজো, আজওয়া, বিউটি কেয়ার, ফুড মার্ক, টয় শো ও কসমেটিক ফ্রিক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কে এম আলী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে গেলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সব সম্পর্ক শেষ হয়ে যায় না। বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার একটি ভালো উপায় হচ্ছে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। এর মাধ্যমে একই ব্যাচের বন্ধু, পূর্ববর্তী ব্যাচের ভাইবোন এবং পরবর্তী ব্যাচের অনুজদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা যায়। এতে নেটওয়ার্কিং শক্তিশালী হয়। এসময় তিনি বলেন, কর্মক্ষেত্রে সফল হতে হলে নেটওয়াকিংয়ের বিকল্প নেই। বর্তমান সময়কে তিনি নেটওয়ার্কিংয়ের যুগ বলে অভিহিত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে ড. মোঃ সবুর খান বলেন, তোমরা যারা এখানে এসেছ তারা সবাই ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি। তোমরা এখান থেকে স্নাতক হয়ে বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রে ছড়িয়ে পড়েছ এবং ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করছ। এটা একই সঙ্গে আমারদের জন্য গর্বের এবং আনন্দের। তোমাদের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটাই চাওয়া এবং সেটা হচ্ছে, কীভাবে ইন্ড্রাস্ট্রির সঙ্গে একাডেমির মিথস্ক্রিয়া করা যায় সে ব্যাপারে আমাদেরকে সহযোগিতা করবে। এছাড়া তোমাদের বিভাগের ছোট ভাই-বোন যারা রয়েছে তাদেরকে ইন্টার্নশিপের ক্ষেত্রে এবং কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবে। এসময় তিনি বলেন, এই অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন তোমাদের মধ্যে নেটওয়ার্ক তৈরি করতে সহায়তা করবে বলে মনে করি।

অনুষ্ঠানে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা নিজেদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন এবং পুরনো বন্ধুদের কাছে পেয়ে দীর্ঘ আড্ডায় মেতে ওঠেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে নাচ, গান ও মডেলিং করেন ডিআইইউ কালচারাল ক্লাবের শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply