ড্যাফোডিল শিক্ষার্থীদের ‘আর্ট অব ক্রাফট ফেয়ার’

ড্যাফোডিল শিক্ষার্থীদের ‘আর্ট অব ক্রাফট ফেয়ার’

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

কাঠের বাড়ি, কাগজের নৌকা, সুতোয় মোড়ানো কাঁচের বোতল, বাহারি রঙের গাছ-পাখি-ফুল। সবুজে ঘেরা পাহাড় ও ঝর্ণা, দিয়াশলাই কাঠি দিয়ে তৈরি ছোট্ট ঘর। আইসক্রিমের ফেলনা কাঠি দিয়ে বানানো কলমদানি, ফোন রাখার বক্স, ওয়ালমেট। সুসজ্জিত এসব জিনিস নিয়ে ক্রেতার অপেক্ষায় একদল শিক্ষার্থী। কৌতূহলী ক্রেতারা দেখছেন দৃষ্টি ভরে। কেউবা দামাদামি করতে ব্যস্ত আছেন। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত ‘আর্ট অব ক্রাফট ফেয়ার’ এ এমনই চিত্র দেখা গেল।

গত বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ৭১ মিলনায়তনের সামনে এই মেলার আয়োজন করে বিবিএ প্রোগ্রামের ৪৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। দিনব্যাপী এ মেলায় অংশ নেন ১২০ জন শিক্ষার্থী। মূলত আর্ট অব লিভিং নামের একটি কোর্সের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীরা এ মেলার আয়োজন করে।

মেলায় সার্বিক সহযোগিতা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিরেক্টর অব স্টুডেন্টস অ্যাফেয়ার্স (ডিএসএ)। মেলা পরিদর্শন করেন ব্যবসায় ও উদ্যোক্তাবৃত্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক মোহাম্মদ মাসুম ইকবালসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকেরা।

‘আর্ট অব ক্রাফট ফেয়ার’র মূল আয়োজক ছিলেন আর্ট অব লিভিং কোর্সের শিক্ষিকা জাসিয়া মোস্তফা। মেলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মেলায় অংশগ্রহণকারীরা তাদের ভেতরের প্রতিভাকে ফুটিয়ে তুলতে আউট অব বক্সে গিয়ে এসব জিনিসপত্র তৈরি করেছে। আমরা চাই তাদের এই প্রতিভাকে আরও বিকশিত করে বড় উদ্যোক্তা হয়ে উঠুক।

ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটিতে ‘আর্ট অব লিভিং’ কোর্সটি প্রত্যেক শিক্ষার্থীর জন্য বাধ্যতামূলক। জীবনকে কত সুন্দরভাবে দেখা যায়, কীভাবে অল্পতে তুষ্ট থাকা যায়। অন্যের স্বপ্নপূরণে সহযোগিতা করে কীভাবে সুন্দর জীবন লাভ করা যায়, মানবের কল্যাণে, দেশের কল্যাণের জন্য কোনটা করা উচিত, আর কোনটা অনুচিত ইত্যাদি শিক্ষা দেওয়া এবং শিক্ষার্থীদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করা ও তাদের মনের দুয়ার খুলতে সহযোগিতা করা এই কোর্সের উদ্দেশ্য।

Leave a Reply