‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও ব্যবসায় নির্দেশনা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও ব্যবসায় নির্দেশনা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান রচিত ‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও ব্যবসায় নির্দেশনা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন উৎসব আজ (৩০ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বইটির লেখক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডেও চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনভির্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রকাশনা অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থি ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মাজুমদার, ট্রেজারার হামিদুল হক খান, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী এ.কে.এম ফজলুল হক, ড্যাফোডিল ফ্যামিলির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূরুজ্জামান, স্টুডেন্টস অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান, বইটির প্রকাশক স্কলার্স পাবলিকেশন্সের সত্ত্বাধীকারী নেসার উদ্দিন আইয়ুব, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধান ও শিক্ষর্থীবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্ট সেন্টারের (সিডিসি) পরিচালক আবু তাহের খান।

একটি উদ্যোগকে কীভাবে বাস্তবায়ন করা যায় সে বিষয়ে নানা আলোচনা রয়েছে বইটিতে। আগমী ১০ জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ৭ম সমাবর্তনে অংশগ্রহণকারী প্রতিটি গ্রাজুয়েটকে ‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও ব্যবসায় নির্দেশনা’ বইটি সৌজন্য হিসেবে প্রদান করা হবে যাতে তারা উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ধ হোন। শিক্ষার্থীদেরকে উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ধ করতে এর আগে ৬ষ্ঠ সমাবর্তনেও প্রায় সাড়ে তিন হাজার শিক্ষার্থীকে ‘এ জার্নি টুওয়ার্ডস এন্ট্রাপ্রেনারশিপ’ বই উপহার দেওয়া হয়। এই বই বিক্রির মাধ্যমে প্রাপ্ত সমুদয় অর্থ উদ্যোক্তা উন্নয়নে ব্যয় করা হবে। বইটির মূল্য ৮০০ টাকা।

অনুষ্ঠানে ড. মো. সবুর খান বলেন, প্রচুর পরিমাণ উদ্যোক্তা তৈরি করা ছাড়া একটি দেশের টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। কারণ উদ্যোক্তারা নিজের জীবনের পরিবর্তনের পাশাপাশি পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের পরির্তন সাধন করেন এবং বিপুল পরিমাণ মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেন। এভাবে দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়। তাই তরুণ প্রজন্মকে উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ধ করার জন্য ‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও ব্যবসায় নির্দেশনা’ নামের এই বই লিখেছেন বলে জানান মোঃ সবুর খান। এসময় তিনি আরো বলেন, এই বই উদ্যোক্তা হতে আগ্রহীদের উদ্দেশে লেখা হলেও প্রকৃতপক্ষে সব শ্রেণির তরুণদের উপকৃত করবে। কারণ বইটিতে সফল মানুষ হওয়ার নানা কৌশল আলোচনা করা হয়েছে। ফেসবুক-টুইটারে হাজার হাজার ঘন্টা সময় নষ্ট না করে নিজের ক্যারিয়ারের উন্নতির জন্য বই পড়ার আহ্বান জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ড. মো. সবুর খান ২০১৪ সালে ‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন নির্দশিকা’ শীর্ষক প্রথম বই লেখেন। এরপর দ্বিতীয় বই লেখেন ২০১৬ সালে ‘এ জার্নি টুওয়ার্ডস এন্ট্রাপ্রেনারশিপ’ নামে। এর এক বছর বই তিনি তৃতীয় বই লিখলেন ‘উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও ব্যবসায় নির্দেশনা’ শিরোনামে।

Leave a Reply