ভারতের দুই শীর্ষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

ভারতের দুই শীর্ষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ভারতের দুই শীর্ষ-স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোনা স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট ও সোনা কলেজ অব টেকনোলজির সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সাক্ষর করেছে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পক্ষে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান ও সোনা স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট ও সোনা কলেজ অব টেকনোলজির  প্রফেসর এস কে মোহান্তী।

গত ২৯ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে সোনা স্কুল অব ম্যানেজমেন্টের আয়োজনে তামিলনাডুর গোয়া ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ‘ভবিষ্যতের কর্ম-প্রতিষ্ঠান : উপলক্ষ্য ও বাধাসমূহ’শীর্ষক আলোচনায় সভাপতি ও প্যানেল বক্তার দায়িত্ব পালন করেন এছাড়া মো. সবুর খান। বিভিন্ন দেশের ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ, ব্যবসায়িক নেতা, নীতিনির্ধারণী প্রশাসক ও শিক্ষাবিদদের পারষ্পরিক আলোচনা ও গবেষণালব্ধ জ্ঞান বিনিময়ের একটি উৎকৃষ্ট প্ল্যাটফর্ম তৈরির লক্ষ্যে নিয়মিত এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। আলোচকরা এই সম্মেলনে ভবিষ্যতের কর্ম-উদ্দীপনা, ব্যবসা, উদ্ভাবন, প্রযুক্তি ও উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করেন।

সম্মেলনে মো. সবুর খান ভবিষ্যৎ ‘কর্ম-উদ্দীপনা’ বিষয়ে আলোচনা করেন যা সম্মেলনে অংশ নেয়া অতিথিদের মাঝে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়। তিনি তার আলোচনায় কর্ম-উদ্দীপনার নির্মাণ, ইন্ড্রাস্ট্রি ও একাডেমির সম্পর্ক, প্রযুক্তি উদ্যোক্তাদের মূল্যায়ন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, প্রতিষ্ঠানে মেধাবী কর্মীদের আকৃষ্ট করার উপায়, বৈশ্বির অভিবাসন, দ্রুত নগরায়ন, জলবায়ুর পরিবর্তন ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরেন। মো. সবুর খানের বক্তব্য পারস্পরিক মিথস্ক্রিয়াভিত্তিক ছিল বলে তা সহজেই শ্রোতাদের মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়।

উল্লেখ্য, ভারতের বিজনেস স্কুলগুলোর মধ্যে সোনা স্কুল অব ম্যানেজমেন্ট ১০ম শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি তামিলনাডুতে ২য় শীর্ষ প্রতিষ্ঠান। অপরদিকে সোনা কলেজ অব টেকনোলজি ভারতের প্রকৌশল কলেজগুলোর মধ্যে ৩য় শীর্ষ অবস্থানে রযেছে।

Leave a Reply