ভর্তি হবে কোন কলেজে ?

ভর্তি হবে কোন কলেজে ?

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

এসএসসির ফল প্রকাশের পর শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের এখন দৌড়ঝাঁপ কলেজের ভর্তি নিয়ে। সবারই লক্ষ্য একটি ভালো কলেজে ভর্তি হওয়া। অভিভাবকদের ধারণা, ভালো কলেজে ভর্তি হলেই ভালো ফল করা যায় তাই যে করেই হোক নামিদামি কলেজেই ভর্তি হতে হবে। তবে ভর্তির পুরো প্রক্রিয়া অনলাইনে হওয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হয়রানি ও ভোগান্তি নেই বললেই চলে।

একসময় কলেজ পর্যায়ে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের রীতিমতো যুদ্ধে লিপ্ত হতে হতো। মূল পরীক্ষার চেয়েও অভিভাবক-শিক্ষার্থীদের উদ্বেগ ছিল কলেজে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে। আর এই ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে, সারাদেশে কোচিং-বাণিজ্যও ছিল জমজমাট। কয়েক বছর আগে ভর্তি পরীক্ষা তুলে দেওয়ার পর এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ভর্তি-প্রক্রিয়া চালু হলে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের উদ্বেগ ও হয়রানি অনেকটা কমে যায়।  এবারও ভর্তির আবেদন যাচাই-বাছাই করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শিক্ষা বোর্ডকে, আর সমন্বয়ের কাজটি করবে ঢাকা বোর্ড।

গত বছর যে পরিমাণ আসন ছিল, এবারও তাই আছে। একাদশ শ্রেণিতে আসনের কোনো সংকট নেই। গত বছরের হিসাবে সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীন সব কলেজ, কারিগরি ও মাদ্রাসা মিলিয়ে প্রায় সাড়ে চার হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একাদশ শ্রেণিতে মোট আসন সংখ্যা ১৯ লাখ ৬৬ হাজার। আর এবার পাস করেছে মোট ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ জন। সে হিসেবে উচ্চ মাধ্যমিকে আসন ফাঁকা থাকবে তিন লাখ ৮৯ হাজার ৮৯৬টি।

শিক্ষার্থীরা আগে থেকেই কলেজে ভর্তির বিষয়ে খোঁজ-খবর নেওয়া শুরু করেছে। ভালো কলেজের মধ্যে ভিকারুননিসা, আইডিয়াল, নটর ডেম, রাজউক উত্তরা মডেল বেশ কিছু নামিদামি কলেজে ভর্তির আসন পূর্ণ হয়ে যাবে নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী দিয়েই। ফলে শিক্ষার্থীদের অন্য কলেজগুলোতে ভর্তির সুযোগ খুঁজতে হবে।

শিক্ষাবিদদের মতে, শিক্ষার্থীদের কলেজ বাছাইয়ের ক্ষেত্রে কাছের কলেজটিকে পছন্দের তালিকায় রাখা   উচিত। তবে ভালো ফলাফলের পরও একাদশ শ্রেণিতে ভালো কলেজে ভর্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায় শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবক।

মনে রাখতে হবে

আবেদন ১৩ মে শুরু হয়েছে। চলবে ২৪ মে পর্যন্ত। যারা ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করেছে তাদেরও ঘোষিত এই সময়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে। আর ২৫ থেকে ২৭ মে’র মধ্যে শিক্ষার্থীদের    আবেদন যাচাই-বাছাই ও আপত্তি নিষ্পত্তি করা হবে। পুনঃনিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হবে তারা ৫ থেকে ৬ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবে।

১০ জুন প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে। প্রথম তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ১১ থেকে ১৮ জুন যে কলেজের তালিকায় নাম আসবে ওই কলেজেই যে শিক্ষার্থী ভর্তি হবে তা এসএমএসে নিশ্চিত করতে হবে। ২১ জুন দ্বিতীয় পর্যায়ে এবং ২৫ জুন তৃতীয় পর্যায়ের ফল প্রকাশ করা হবে। দ্বিতীয় পর্যায়ে তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীরা ২২-২৩ জুন সিলেকশন নিশ্চয়ন এবং তৃতীয় পর্যায়ে তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ২৬ জুন সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে। ২৭ থেকে ৩০ জুন শিক্ষার্থী ভর্তি শেষে আগামী ১ জুলাই ক্লাস শুরু হবে।

অনলাইনে ১৫০ টাকা ফি জমা দিয়ে সর্বনিম্ন ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে পছন্দক্রমের ভিত্তিতে আবেদন করা যাবে। প্রতি কলেজের জন্য ১২০ টাকা ফি দিয়ে সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply