খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ে কুইজ প্রতিযোগিতা

খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ে কুইজ প্রতিযোগিতা

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে পুষ্টি ও খাদ্য প্রকৌশল বিভাগের আয়োজনে ‘সুরক্ষিত খাদ্য অভিযান : এশিয়া কুইজ কম্পিটিশন অন ফুড সেফটি-২০১৮’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক কুইজ প্রতিযোগিতার বাংলাদেশ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ রোববার (২৯ জুলাই) ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ৭১ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কুইজ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহাবুদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত সচিব ও বাংলাদেশ খাদ্য নিরাপত্তা অধিদফতরের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলামের সভাপতিত্ত্বে অনুষ্ঠিত এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সুরক্ষিত খাদ্য অভিযান ভারতের চেয়ারম্যান সঞ্জয় দেব, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার, অ্যালাইড হেলথ সায়েন্সেস এর ডিন অধ্যাপক ড. আহমদ ইসমাইল মোস্তফা, খাদ্য ও পুষ্টি প্রকৌশল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. বেল্লাল হোসেন, ড. আমির আহমেদ প্রমুখ।

খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ক এ কুইজ প্রতিযোগিতায় আয়োজক প্রতিষ্ঠান ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিহ বাংলাদেশের ১২টি বিশ্ববিদ্যালয় ও পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ২৪জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ পর্বে বিজয়ী শিক্ষার্থীরা আগামী ১৫ ডিসেম্বর ভারতের নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। চূড়ান্ত পর্বে ভারত, চীন, নেপাল, বাংলাদেশসহ এশিয়ার ১৩টি দেশের ১৬৩জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহাবুদ্দিন আহমেদ বলেন, মানুষের বেঁচে থাকার প্রধান উপকরণ হচ্ছে খাদ্য। কিছু খাদ্য প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া যায় আর কিছু খাদ্য যান্ত্রিক উপায়ে খাওয়ার উপযোগী করতে হয়। কিন্তু বর্তমানে খাদ্যে নানা ধরনের ভেজাল মেশানোর অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। এসব খাবার খেয়ে মানুষ বিভিন্ন ধরনের দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে। এ অবস্থার পরিবর্তন দরকার। এজন্য সবাইকে নিরাপদ খাদ্য সম্পর্কে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

শাহাবুদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, মানুষের নিরাপদ খাদ্য অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। খাদ্য অধিকার আইন-২০১৩ প্রণয়ন করা হয়েছে, যাতে প্রতিটি মানুষ নিরাপদ খাদ্য গ্রহণ করতে পারে। এসময় তিনি সবাইকে নিরাপদ খাদ্যের ব্যাপারে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ খাদ্য নিরাপত্তা অধিদফতরের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক বলেন, খাদ্যে ভেজাল মহামারী আকার ধারণ করেছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে তরুণদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। কারণ তরুণরা সচেতন হলে সমগ্র দেশ সচেতন হবে। এসময় তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বাংলাদেশের তরুণ শিক্ষার্থীরা গণিত অলিম্পিয়াডে স্বর্ণ পদক জয় করেছে। সারাবিশ্বের কাছে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ¦ল করেছে। গণিত অলিম্পিয়াডের মতো খাদ্য নিরাপত্তা কুইজেও বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

কুইজ পরিচালক ও সুরক্ষিত খাদ্য অভিযান ভারতের চেয়ারম্যান সঞ্জয় দেব বলেন, ভারতে ২০১৫ সাল থেকে তিনি এই কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আসছেন। বাংলাদেশে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করার জন্য ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে তিনি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন, সুরক্ষিত খাদ্য অভিযান আন্দোলন ভারতের তরুণদের মধ্যে খাদ্য নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি করতে পেরেছে। বিপুলসংখ্যক তরুণ এখন খাদ্য সেক্টরে নেতৃত্ব দিচ্ছে। তারা মানুষকে সচেতন করার ব্যাপরে কাজ করছে। এখন থেকে বাংলাদেশের তরুণ শিক্ষার্থীরাও নিরাপদ খাদ্যে ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply