‘স্টোরি অব সাকিচি তয়োদা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

‘স্টোরি অব সাকিচি তয়োদা’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে জাপানি ভাষার বই ‘স্টোরি অব সাকিচি তয়োদা’র বাংলা অনুবাদকৃত বই ‘মনের দুয়ার খোল, বিশাল পৃথিবী দেখ’র মোড়ক উন্মোচন আজ মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত হিরোয়াসু ইজুমি প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত থেকে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে জাপান দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারি মাচিকো ইয়ামামুরা এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ প্রকাশনা অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বইটির বাংলা ভাষার অনুবাদক মাসুদুর রহমান ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক অধ্যাপক ড. ফখরে হোসেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম মাহবুব উল হক মজুমদার, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে হিরোয়াসু ইজুমি বলেন, স্টোরি অব সাকিচি তয়োদা জাপানের খুবই আলোচিত একটি বই। বইটি বাংলা ভাষায় অনুদিত হয়েছে জেনে আমি খুবই আনন্দিত। সাকিচি তায়োদা খুবই প্রেরণাদায়ক একটি চরিত্র। এই বই বাংলাদেশের কিশোর তরুণদেরকে পরিশ্রমী, উদার ও স্বপ্ন দেখতে শেখাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এসময় তিনি অনুবাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. মো. সবুর খান বলেন, সাকিচি তায়োদা শারিরীকভাবে দুর্বল এক কিশোর ছিল, কিন্তু মনের দিক থেকে ছিল খুবই শক্তিশালী। এই মনের জোরেই সে মাত্র পনের বছর বয়সে উদ্যোক্তা হয়। জাপানের অর্থনৈতিক উন্নয়নে তার অবদান অনস্বীকার্য। সেই তায়োদাকে নিয়ে লেখা বই বংলায় প্রকাশিত হয়েছে। এটা আমাদের আনন্দের একটি সংবাদ। কারণ এই বই পড়ে বাংলাদেশি কিশোর তরুণরা উদ্যোক্তা হতে অনুপ্রাণিত হবে।

ড. মো. সবুর খান আরো বলেন, সাকিচি তায়োদার কাছে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে। কিভাবে উদ্যোক্তা হওয়ার পথে লড়াই সংগ্রাম করতে হয়, কীভাবে শারীরিক দুর্বলতাকে উপেক্ষা করে মনের জোরে সফল হওয়া যায় তার উজ্জল উদাহরণ তায়োদা। এসময় তিনি শিক্ষার্থীদেরকে বইটি পড়ার আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, জাপানি ভাষায় রচিত ‘স্টোরি অব সাকিচি তয়োদা’ একটি বহুল পঠিত বই। বইটি সম্প্রতি বাংলা ভাষায় অনুবাদ করেছেন মাসুদুর রহমান। এটি প্রকাশ করেছে সোসাইটি ফর ইনোভেশন অ্যান্ড সাসটেইনেবল ডেভলপমেন্ট (এসআইএসডি)।

Leave a Reply