যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষা : সঠিক তথ্য জেনে আবেদন করুন

যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষা : সঠিক তথ্য জেনে আবেদন করুন

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

এইচএসসির পর অনেক শিক্ষার্থীরই স্বপ্ন থাকে বিদেশে উচ্চশিক্ষার। আর যুক্তরাষ্ট্র হচ্ছে শিক্ষার্থীদের প্রথম পছন্দ। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গেছে সঠিক তথ্যর অভাবে বুঝে উঠতে পারে না কীভাবে এগোতে হবে। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষার ব্যাপারে সব ধরনের তথ্য পাওয়া যাচ্ছে ইএমকে সেন্টারে। শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছেন _ ইএমকে সেন্টারের ইউএসএ অ্যাডভাইজারসাওসান রহমতুল্লাহ

– যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার সুযোগ কেমন?

— যুক্তরাষ্ট্রে বাংলা মাধ্যম এবং ইংরেজি মাধ্যম উভয় মাধ্যমের শিক্ষার্থীরা ব্যাচেলর এবং মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করতে পারে। তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত বিভিন্ন রিসার্চে তারা অংশগ্রহণ করতে পারে। প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্যও সুযোগ-সুবিধা, যেমন- আলাদা বাসস্থান, আলাদাভাবে পড়াশোনার সুযোগও আছে।

– শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তির সুযোগ রয়েছে কি-না?

— বৃত্তির সুযোগ রয়েছে যেমন প্রাতিষ্ঠানিক বৃত্তি, ক্রীড়া বৃত্তি, মেয়েদের জন্য বৃত্তি, আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি, সংখ্যালঘুদের বৃত্তি ও বিভিন্ন প্রতিবন্ধীদের জন্য বৃত্তির বিশেষ ব্যবস্থা আছে।

– বৃত্তি পেতে কী ধরনের প্রস্তুতির প্রয়োজন হয়?

— যে প্রতিষ্ঠান বৃত্তি দেবে তারা বেশ কিছু বিষয় দেখে থাকেন শিক্ষার্থীদের যেমন পড়াশোনার পাশাপাশি অন্যান্য কাজ, জিপিএ, ভালো মানের সুপারিশপত্র বা প্রশংসাপত্র, স্টেটমেন্ট অব পারপাস, GRE, GMAT অথবা SAT-এর স্কোর দেখে বৃত্তির ব্যবস্থা করে।

– এই বিষয়ে ইএমকে সেন্টার থেকে কোনো সহযোগিতা পাওয়া যায় কি-না?

— ইএমকে সেন্টার Education USA লাইব্রেরিতে TOFEL, IELTS, GRE, GMATসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় খোঁজার জন্য বই রয়েছে। ইএমকে সেন্টার বিভিন্ন সেমিনারের আয়োজন করে যেখানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রতিনিধিরা আসেন, তাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে উপস্থাপনা করার জন্য। এ ছাড়া সব ধরনের আবেদন প্রক্রিয়া কীভাবে করা হয়, সেই বিষয়ে এখানে শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগত কাউন্সিলিং করানো হয়। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র মূল্যায়ন এবং সব ধরনের সাহায্য করা হয়।

– ইএমকে সেন্টার শিক্ষার্থীকে উচ্চশিক্ষা প্রস্তুতিতে কী ধরনের প্রয়োজনীয় সেবা দিয়ে থাকে?

— ইএমকে সেন্টারেরEDUSA হচ্ছে US Department of State-এর একটি অংশ। এখানে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা করি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। আমাদের ফেসবুক পেজে সব প্রোগ্রামের বিস্তারিত বলা থাকে। ফেসবুক পেজ থেকে আগ্রহীরা প্রোগ্রামে যোগ দিতে পারে।

– আবেদন প্রক্রিয়া কোন মাস থেকে শুরু হয়?

— আবেদন প্রক্রিয়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত সময় অনুসারে হয়। তবে স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ডিসেম্বরে শুরু হয় এবং অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্চ-এপ্রিলে শুরু হয়ে থাকে।

– এখানে শিক্ষার্থীদের জন্য উচ্চশিক্ষা বিষয়ক কোন কাউন্সেলিং সেশনের ব্যবস্থা আছে?

— ইএমকে সেন্টার এবং EDU USA শিক্ষার্থীদের জন্য কাউন্সেলিংয়ের ব্যবস্থা করে এবং যারা কাউন্সেলিং নিতে ইচ্ছুক তারা সরাসরি এসে অথবা টেলিফোনের মাধ্যমে সময় নির্ধারণ করতে পারে।

– অনেকেরই ধারণা, যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনার জন্য খুব ভালো রেজাল্টের প্রয়োজন হয়, এটা কি ঠিক?

— যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনার জন্য ভালো ফল জরুরি, তবে Extra-curricular activities ভর্তির জন্য খুবই সহায়ক।

– কী ধরনের রেজাল্ট থাকা উচিত

— বিভিন্ন শিক্ষার্থীর জন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। যারা মেধাবী, তারা প্রায় সবক’টিতে আবেদন করার সুযোগ পাবে। অন্যরা Less Competitive বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের সুযোগ পাবে।

ইএমকে সেন্টার- মাইডাস সেন্টার বিল্ডিং, হাউস-৫, রোড -২৭, পুরনো ধানমণ্ডি, ঢাকা।

ফোন : ৯১১৯৭৫২, ৯১১৯৭৬৮ favicon59-4

Leave a Reply