‘সফল হতে কঠোর পরিশ্রমের বিকল্প নেই’

‘সফল হতে কঠোর পরিশ্রমের বিকল্প নেই’

  • ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

উদ্যোক্তা হিসেবে সফল হতে হলে কঠোর পরিশ্রমের বিকল্প নেই বলে মনে করেন এসিআই লিমিটেডের চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা। পাশাপাশি উদ্যোক্তাদের অন্তরে শেখার অদম্য আগ্রহ এবং নতুন নতুন আইডিয়া উদ্ভাবনের সক্ষমতা থাকতে হবে বলেও অভিমত দিয়েছেন এই সফল শিল্পোদ্যোক্তা।

আজ শনিবার (৮ অক্টোবর) ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মিলনায়তনে এক লোকবক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত ১২ পর্বের এ লোকবক্তৃতামালার আজ চতুর্থ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

14522712_10154608940267203_8027815060167838946_nসকাল ১০টায় শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য দেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান। তিনি উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমাদের দেশে অনেক সফল উদ্যোক্তা আছেন। কিন্তু তাঁদের সফল হওয়ার গল্প আমরা খুব একটা জানি না। ইন্ড্রাসট্রিয়াল একাডেমিয়া লেকচার সিরিজের উদ্দেশ্য হচ্ছে, এসব সফল উদ্যোক্তাদের গল্প শুনে আমাদের তরুণ উদ্যোক্তারা যেন অনুপ্রাণিত হয় এবং নিজেরা উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখে।কারণ বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে প্রচুর উদ্যোক্তা তৈরি করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য  প্রফেসর ড. ইউসুফ এম ইসলাম, পিএইচপি গ্রুপের চেয়ারম্যান সুফি মিজানুর রহমান ও ইনোভেশন অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের পরিচালক মো. আবু তাহের। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান।

বক্তৃতা শেষে শিক্ষার্থীদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন এসিআই লিমিটেডের চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা। সবশেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আমন্ত্রিত অতিথিদের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন।

উল্লেখ্য, ১২ জন সফল উদ্যোক্তার বক্তৃতামালা নিয়ে পরবর্তীতে একটি গ্রন্থ প্রকাশ করবে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। গ্রন্থটি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ব্যবসা, অর্থনীতি ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট বিভাগসমুহের শিক্ষার্থীদের রেফারেন্স পুস্তক হিসেবে ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টি করবে বলে আশা করছে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় আশা করছে যে, এ লোকবক্তৃতামালা নতুন প্রজন্মের সৎ, শিক্ষিত ও মেধাবী উদ্যোক্তাদেরকে সাহস, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করবে। উদ্যোক্তা উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ তার সম্ভাবনার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ গতিতে এগিয়ে যেতে পারছে না বলে যে ধারনা চালু রয়েছে, এ লোকবক্তৃতামালা সে সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠতে অনেকখানি সাহায্য করবে বলে আশা করা যায়।

এম আনিস উদ দৌলার বক্তব্যের ভিডিও দেখুন:https://www.youtube.com/watch?v=g9BbGM02a4I

favicon59-4

Leave a Reply