৬ শিক্ষার্থীর সাফল্য

৬ শিক্ষার্থীর সাফল্য

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় আয়োজিত ন্যাশনাল এনার্জি হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা-২০১৭তে রানার আপ শিরোপা অর্জন করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স (ইইই) বিভাগের ৬ শিক্ষার্থীর দল ‘সান-বিম’। গত ১৯ ও ২০ এপ্রিল রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে টানা ৩৬ ঘণ্টার এ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

unnamedদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রতিষ্ঠান থেকে আসা ২০০টি দলের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে ‘শিল্প ক্ষেত্র’  ক্যাটাগরিতে রানার আপ শিরোপা লাভের গৌরব অর্জন করে টিম সান-বিম। প্রতিযোগিতায় সান-বিম দলের সদস্যরা দুটি ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে দুটি অভিনব প্রকল্পের ধারনা উপস্থাপন করেন। শেষে বৃহৎ ও মধ্যম শিল্পে  জ্বালানী সংকট নিরসনে সৌর শক্তির ব্যবহার সংক্রান্ত প্রকল্পের ধারনা উপস্থাপনের জন্য তারা রানার আপ হন।

টিম সান-বিমের উপস্থাপিত অপর প্রকল্প ছিল দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিদ্যুৎ বিতরণের জন্য রূপান্তরিত বিদ্যুৎকে পাওয়ার গ্রিডের মাধ্যমে সঞ্চালন করা।

প্রতিযোগিতায় দেশের খ্যাতনামা প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ ও গবেষকরা উপস্থিত ছিলেন। তাদের সামনে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদেরকে  প্রকল্প উপস্থাপনের পাশাপাশি প্রকল্পের ব্যবসায়িক সম্ভাবনার দিকও তুলে ধরতে হয়। এছাড়া মঞ্চে তাদের বহুমুখী সক্ষমতার পরীক্ষা দিতে হয়।

টিম সান-বিমের পুরো প্রকল্প তদারকি করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স বিভাগ (ইইই) এবং প্রকল্পে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রশাসন বিভাগ।

উল্লেখ্য, এই ছয় শিক্ষার্থী সম্প্রতি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ৩০ ভোল্টের ইউপিএস-আইপিএস উদ্ভাবন করেছে যা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ব্যাকআপ দিতে সক্ষম। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান প্রস্তাবিত এই ইউপিএস-আইপিএস ইতিমধ্যে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেডে পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, এই শিক্ষার্থীরা বিদ্যুৎ ও জ্বালানীসহ বেশ কিছু গবেষণা প্রকল্পের সঙ্গে কাজ করছেন।favicon59-4

Leave a Reply