দিপ্তী’র শিক্ষার্থীদের সনদ বিতরণ ও নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

দিপ্তী’র শিক্ষার্থীদের সনদ বিতরণ ও নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

কারিগরি ও প্রফেশনাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল প্রফেশনাল ট্রেনিং ইন্সটিটিউটের (দিপ্তী) কৃতি শিক্ষার্থীদের সনদ বিতরণ ও নবীনবরণ অনুষ্ঠান আজ বৃহস্পতিবার (১১ মে) ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মিলনায়তন-৭১ এ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব জাভেদ আহমেদ ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট এনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (এসইআইপি) প্রকল্প পরিচালক আব্দুর রউফ তালুকদার।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন এসইআইপি-পিকেএসএফের উপ মহাব্যবস্থাপক ও প্রকল্প পরিচালক মো. আবুল কাশেম, ড্যাফোডিল এডুকেশন নেটওয়ার্কের নির্বাহী পরিচালক  মোহাম্মদ নূরুজ্জামান, দিপ্তীর নির্বাহী পরিচালক রথীন্দ্রনাথ দাস ও দিপ্তীর উপ পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন।

অনুষ্ঠানে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব জাভেদ আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ প্রায় ৭০টির মতো সরকারি ট্রেনিং ইন্সটিটিউট রয়েছে এবং বেসরকারি পর্যায়েও অনেক ট্রেনিং প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিবছর অনেক কর্মী প্রশিক্ষণ নিয়ে বিদেশ যাচ্ছেন। সুতরাং বিদেশে অবস্থানরত আমাদের সকল কর্মীই অদক্ষ, এ কথা ঠিক নয়। মূল সমস্যা হচ্ছে আমরা যথাযথভাবে বাংলাদেশের কর্মীদের ব্র্যান্ডিং করতে পারছি না। এখন সময় এসেছে দক্ষ কর্মী তৈরির পাশাপাশি কর্মীদের ব্র্যান্ডিং করার।

এ সময় তিনি বলেন,  প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় এ ব্যপারে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান বলেন, শুরুর দিকে বাংলাদেশ থেকে বিদেশে অনেক অদক্ষ ও আধাদক্ষ  শ্রমিক যেত, একথা সত্য। সেই নেতিবাচক ব্র্যান্ডিংটাই এখনো চলছে। তবে এখন যেসব কর্মী বিদেশ যাচ্ছেন তারা বেশিরভাগ কর্মীই ট্রেনিং নিয়ে বিদেশে যাচ্ছেন। সুতরাং আমাদেরকে এখন ব্র্যান্ডিং করতে হবে যে বাংলাদেশেও দক্ষ কর্মী রয়েছে। এসময় তিনি কাতার, বাহরাইনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উদাহরণ দিয়ে বলেন সেসব দেশে অনেক সফল বাংলাদেশি রয়েছেন কিন্তু তাদের ব্র্যান্ডিং করা হয় না।

মো. সবুর খান আরও বলেন, প্রাইভেট পর্টনার প্রজেক্টের (পিপিপি) সঠিক প্রয়োগ ছাড়া বাংলাদেশের কাক্সিক্ষত অর্থনৈতিক উন্নতি কখনো সম্ভব নয়। এজন্য সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আব্দুর রউফ তালুকদার বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের প্রায় ৭০ লক্ষ মানুষ কাজ করেন। তারা বছরে প্রায় ২৫ বিলিয়ন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা পাঠান। আবার বাংলাদেশে প্রায় ২ লক্ষ বিদেশি কাজ করেন। তারা বাংলাদেশ থেকে বছরে ৫ বিলিয়ন ডলার নিয়ে যান। বাংলাদেশ যদি দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি করতে পারে তবে বিদেশে থেকে বৈদেশিক মুদ্রার প্রবাহ বাড়বে এবং বাংলাদেশ থেকে বিদেশিরা যে অর্থ নিয়ে যাচ্ছেন তা-ও রোধ করা সম্ভব হবে।

অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের সনদ প্রদান ছাড়াও দুজন শিক্ষার্থীকে চাকরির নিয়োগপত্র প্রদান করা হয়। ফিকান আইটি সলিউশনের পক্ষে রোকনুজ্জামান ও সাইফুল নামের দুই শিক্ষার্থীকে নিয়োগপত্র প্রদান করেন মো. মাহমুদুল হাসান। এছাড়া চারটি প্রতিষ্ঠানকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। প্রতিষ্ঠান চারটি হচ্ছে ইউথ ফায়ার আইটি, বুস্ট আইটি সলিউশন, অপরচুনিটি আইটি ও টাচটেক আইটি।favicon59-4

Leave a Reply