উপকূলের ক্যামব্রিজ

উপকূলের ক্যামব্রিজ

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষিতে পড়া মানেই ক্লাস, পরীক্ষা, অ্যাসাইনমেন্ট, ক্লাস টেস্ট, প্র্যাক্টিক্যাল (ল্যাব+ফিল্ড), প্রেজেন্টেশন আর পরীক্ষার যত চাপ। বলতে গেলে একেবারেই যান্ত্রিক জীবন কিন্তু এসবের পাশাপাশি একটু সময় পেলেই মন এদিক-সেদিক ছুটে চলে যেতে চায়।

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে শুরুতে উপকূলীয় কৃষি নামে বিভাগ চালু হলেও ২০১৫ সালে বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামান শুধু কৃষি বিভাগে পরিবর্তন করেন। বর্তমানে এই বিভাগে পাঁচটি ব্যাচে প্রায় ২৫০ জন শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত আছেন। একাডেমিক শত ব্যস্ততার মাঝেও এই বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা কর্মকাণ্ডে গৌরবের সাথে সফলতা অর্জন করে যাচ্ছে। সারাবছর জুড়েই কোনো না কোনো অনুষ্ঠানে মুখরিত থাকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। যেমন- বৈশাখীমেলা, বর্ষবরণ অনুষ্ঠান, কৃষি দিবস, ছায়া জাতিসংঘ সম্মেলন, বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, বিভিন্ন সময়োপযোগী উপলক্ষে কনসার্টের আয়োজন, জব ফেয়ার, ক্যারিয়ার আড্ডাসহ বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান। এছাড়া ডিবেটিং ক্লাব, স্পোর্টস ক্লাব, থিয়েটার ক্লাব, কালচারাল ক্লাব, ব্যান্ড ক্লাব ও ফটোগ্রাফি ক্লাবের নিয়মিত কার্যক্রমতো আছেই। এসব কার্যক্রমে কৃষি বিভাগের শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে যাচ্ছে। বর্তমানে  আন্তঃবিভাগীয় দাবা, ব্যাটমিন্টন, ক্যারাম ইত্যাদি  ইনডোর খেলাধুলায় পুরুষ ও প্রমীলা উভয় বিভাগে কৃষি বিভাগ কৃতিত্বের সাথে বিজয়ী হয়েছে। আউটডোর  ফুটবল ও ক্রিকেটে বিশ্ববিদ্যালয়ের সতেরটি বিভাগের মধ্যে রানারআপ। খেলাধুলার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে কৃষি বিভাগ। যেমন- টানা দুইবার পহেলা বৈশাখে স্টল প্রতিযোগিতায় বিজয়ী, আন্তঃবিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রানারআপসহ নোবিপ্রবি থিয়েটার, সাংবাদিক সমিতি, সাংস্কৃতিক সংগঠনের সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছে কৃষি বিভাগের শিক্ষার্থীরা। তাছাড়া আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় কৃষি বিভাগের শিক্ষার্থীরা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে অংশগ্রহণ করছে।

ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে জমে উঠে আড্ডা। আড্ডায় একাডেমিক পড়াশুনার পাশাপাশি ক্যারিয়ার নিয়ে আলোচনা হয়। আড্ডা জমে আকাশ মণির হাটে, পদ্ম পুকুর পাড়ে, সূর্যাস্তের মোড়ে। সেখানে সাহিত্য, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকসহ অন্যসব বিষয়ে গঠনমূলক আলোচনা হয়। আর এই আড্ডাই শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের পরিধিকে আরো প্রসারিত করে তোলে। উপকূলের ক্যামব্রিজ হিসেবে পরিচিত নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি বিভাগ নতুন হলেও তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম, একতার বলে সাফল্যের শিখরে আরোহণ করছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে সুনাম বৃদ্ধিকরণে যথেষ্ট ভূমিকা রাখছে। এ বিভাগে শিক্ষার্থীরা গ্র্যাজুয়েশন শেষ করার পর দেশের কৃষিখাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে বিভাগের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীদের আশাবাদ।

সূত্র: ইত্তেফাকfavicon59-4

Leave a Reply