ডিআইইউডিসি জাতীয় বিতর্ক উৎসব শুরু

ডিআইইউডিসি জাতীয় বিতর্ক উৎসব শুরু

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং ক্লাব (ডিআইইউডিসি) আয়োজিত ‘বিস্ক ক্লাব-ডিআইইউডিসি জাতীয় বিতর্ক উৎসব ১৪২৪ পাওয়ার্ড বাই বিআরবি কেবলস’ আজ বৃহস্পতিবার (১৮ মে) সকাল ১১.০০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তন-৭১ এ শুরু হয়েছে।

উক্ত উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বংলাদেশ সরকারের পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হাছান মাহমুদ, এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির কোষাধক্ষ্য হামিদুল হক খান, বিআরবি কেবলসের হেড অব মার্কেটিং মো. রফিকুল ইসলাম রনি এবং প্রাণ-আরএফএলের হেড অব মার্কেটিং জাকারিয়া জুলফিকার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম। এছাড়া অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য ও ইমেরিটাস অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক এ.এম.এম হামিদুর রহমান, স্টুডেন্টস অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. তওহীদ ভুঁইয়া ও ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও ডিআইইউডিসি’র মডারেটর মাহবুব পারভেজ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাছান মাহমুদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ জাতি গড়তে হলে বিতর্কের বিষয় হিসেবে মুক্তিযুদ্ধকে বেশি করে প্রধান্য দিতে হবে। যত বেশি মুক্তিযুদ্ধের চর্চা হবে, তরুণ প্রজন্মের ভেতর তত বেশি দেশপ্রেম জাগ্রত হবে। এসময় ডিআইইউডিসিকে বিতর্ক আয়োজনের পাশাপাশি নিয়মিত মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনার আসর আয়োজনের আহ্বান জানান। হাছান মাহমুদ বলেন, আজ থেকে কুড়ি-পঁচিশ বছর পর হয়ত জীবিত মুক্তিযোদ্ধা আর খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাই মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে হলে মুক্তিযোদ্ধাদের মুখ থেকেই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস শুনতে হবে।

হাছান মাহমুদ আরো বলেন, একজন রাজনৈতিক কর্মী ও সাবেক বিতার্কিক হিসেবে বলতে পারি, আমরা যদি বিতর্কের মাধ্যমে রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান খোঁজার চেষ্টা করতাম তাহলে রাজনৈতিক অঙ্গনে এত বিভেদ থাকত না। এসময় তিনি উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, আমরা যা করতে পারিনি, তোমরা ভবিষ্যতে তা করে দেখাবে বলে বিশ্বাস রাখি।

অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম বলেন, আমরা পৃথিবীতে এসেছি শিখতে। বিতর্ক আমাদেরকে জীবনের নানা কিছু শিক্ষা দেয়। বিতর্ক শেখায় সহনশীলতা, বিতর্ক বাড়ায় জ্ঞানের পরিধি এবং বিতর্ক খুলে দেয় জানবার জানালা।

উল্লেখ্য, ‘আদম দাউদ ঈসা মুসা ইব্রাহিম মোহাম্মদ/ কৃষ্ণ বুদ্ধ নানক কবীর-বিশ্বের সম্পদ’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে সপ্তাহব্যাপী আয়োজিত এ উৎসবে ইংরেজি বিতর্কে ২৪টি, স্কুল বিতর্কে ১৬টি, কলেজ বিতর্কে ১৬টি ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ৩২টি দল অংশগ্রহণ করছে। favicon59-4

Leave a Reply