ড্যাফোডিলে ‘প্রাক-চাকরি প্রশিক্ষণ’ কর্মশালা শুরু

ড্যাফোডিলে ‘প্রাক-চাকরি প্রশিক্ষণ’ কর্মশালা শুরু

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (সিএসই) আয়োজনে ‘প্রাক-চাকরি প্রশিক্ষণ’কর্মশালা শুরু হয়েছে। আজ রোববার (৩০ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মশালার উদ্বোধন করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্যামসাং আর অ্যান্ড ডি ইন্সটিটিউট বাংলাদেশের মানবসম্পদ বিভাগের সহকাকারি ব্যবস্থাপক এস.এম ইব্রাহিম উল্লাহ, তানভির হাসান, ও টেকনিক্যাল বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ আশরাফ-উল আসাদ। সিএসই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. সৈয়দ আখতার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. সবুর খান বলেন, একদিকে শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো দক্ষ কর্মী পাচ্ছে না, অপরদিকে শিক্ষিত তরুণরা চাকরি পাচ্ছে না। এই সমস্যার অন্যতম কারণ হচ্ছে, আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ইন্ডাস্ট্রির উপযোগী করে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে পারছে না। এখন সময় এসেছে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কোর্স কারিকুলাম ঢেলে সাজানোর। আজকের প্রশিক্ষণ কর্মশালার মাধ্যমে সেই প্রক্রিয়া শুরু হলো। ভবিষ্যতে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও এ ধরনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানের সম্মানিত অতিথি অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার বলেন, শিক্ষার্থীদের উচিত ছাত্রজীবন থেকেই নিজেদেরকে কর্মজীবনের উপযোগী হিসেবে গড়ে তোলা। সেজন্য একাডেমিক পড়াশোনার বাইরেও শিক্ষার্থীদের নানা ধরনের সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নেওয়া উচিত। এ ধরনের কর্মশালা শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বাড়াবে বলে মনে করি।

অনুষ্ঠানে এস এম ইব্রাহিম উল্লাহ বলেন, বর্তমানে চাকরির বাজার অনেক বড় এবং প্রতিযোগিতামূলক। সুতরাং নিজেকে প্রস্তুত করতে না পারলে নিজের স্বপ্নও খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাই ছাত্রজীবন থেকেই নিজেকে চাকরির জন্য প্রস্তুত করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তানভির হাসান বলেন, প্রতিদিন একটু একটু করে কাজ করুন। একটু একটু করে নিজেকে বদলে ফেলুন। দেখবেন, সাফল্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে ধরা দেবে।

জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে অরেক বিশেষ অতিথি আশরাফ-উল আসাদ বলেন, জীবনে সফল হতে চাইলে সময়ের গুরুত্ব বুঝতে হবে। ক্যারিয়ারে সাফল্য চাইলে নিজেকে অবশ্যই অন্যদের চেয়ে অগ্রবর্তী, পেশাদার এবং দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

উল্লেখ্য, চাকরিক্ষেত্রের নানা বিষয় নিয়ে মোট ১৪টি প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতি সপ্তাহে একটি করে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে এবং কর্মশালা পরিচালনা করবেন স্যামসাং আর অ্যান্ড ডি ইন্সটিটিউট বাংলাদেশের মানবসম্পদ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।favicon59-4

Leave a Reply