নরীদের পছন্দের পেশা রিসিপশনিস্ট

নরীদের পছন্দের পেশা রিসিপশনিস্ট

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

যে কোনো অফিসের রিসিপশন রুম থাকে দরজা খোলার পর একেবারে প্রথমে। সব অফিসই তাদের স্পটে রুচি অনুযায়ী অভ্যর্থনা কক্ষ সাজিয়ে থাকে। তবে প্রথমদিকে এই অভ্যর্থনা কক্ষে পুরুষকর্মী থাকলেও বর্তমানে প্রায় অফিসেই রিসিপশনিস্ট হিসেবে মেয়েদের নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। এই কক্ষে সাধারণত বসার বাড়তি জায়গা থাকে। চেয়ার, সোফা এবং প্রাতিষ্ঠানিক কিছু পরিচয়সহ পত্রপত্রিকা থাকে। রিসিপশনিস্টের টেবিলে থাকে পুরো অফিসের টেলিফোন সংযোগ। অন্যদিকে প্রাথমিক ফোনও রিসিপশনিস্ট গ্রহণ করে থাকেন। প্রায় সব বড় অফিসের রিসিপশনেই থাকে কম্পিউটার। যে কারণে সাধারণ অভ্যর্থনায় টেলিফোন অপারেটর ছাড়াও বেশ কিছু কম্পিউটার বেজড কাজ করতে হয়। পক্ষান্তরে রিসিপশনে থাকে একাধিক কর্মী এবং তাদের কার্যকলাপ। এখানে কে আসে সেটি সরাসরি পর্যবেক্ষণ করার জন্য বসান থাকে সিসিটিভি ক্যামেরা। প্রথমদিকে স্বল্পশিক্ষিত কর্মীদের রিসিপশনে চাকরি দেয়া হলেও বর্তমানে উচ্চ শিক্ষিতদের এ পেশায় নিয়োগ দেয়া হয়। কেননা, কাস্টমার কেয়ারের প্রাথমিক অনেক বিষয়ও তাকে নির্বাহ করতে হয়। যে কারণে অন্যান্য বহু দায়িত্ব পালন করার জন্য উচ্চ শিক্ষিত ম্যান পাওয়ারের প্রয়োজন পড়ছে।

রিসিপশনিস্ট হতে হলে শিক্ষা ছাড়াও সুন্দর বাচনভঙ্গি ও দেখতে সুন্দর হওয়া আবশ্যক। ব্যবহারে মার্জিত এবং আচরণে বিনয়ী হওয়া উচিত। এছাড়া ধৈর্যশীল এবং কথা বলার ক্ষেত্রে অফিসিয়াল ও পরিচিত হওয়া আবশ্যক। সাধরণত, ছোট অফিসগুলোর রিসিপশনিস্ট এসএসসি বা এইচএসসি পাস হয়ে থাকে। কিন্তু একটু বড় ও কর্পোরেট অফিসগুলোয় এখন গ্রাজুয়েট ও মাস্টার্স পাস কর্মী নিয়োগ দেয়া হয়ে থাকে। কারো কথায় বিরক্তি প্রকাশ করা যাবে না। রিসিপশনে বসে উচ্চস্বরে কথা বলা যাবে না, অতিরিক্ত কথা বলা যাবে না। অফিসে আগতদের অহেতুক দাঁড় করিয়ে রাখা যাবে না এবং ভোগান্তিতে ফেলা যাবে না। অফিসের কোনো নির্বাহী বা আগন্তুক অপ্রস্তুত হয় এমন কথা বলা যাবে না। কোনো বিষয়ে তথ্য জানা না থাকলে সরাসরি না বলে সরি বলে তা পরে জানানোর কথা বলতে হবে। কারও সঙ্গে দেখা করতে এলে তার অনুমতি ছাড়া কোনোভাবেই আগন্তুককে যেতে দেয়া যাবে না। অফিসের কারও সম্পর্কে সমালোচনা করা যাবে না। সর্বোপরি দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে বিরক্তি প্রকাশ করা যাবে না।

রিসিপশনিস্টদের বেতন যথেষ্ট ভালো। একেবারে ছোট প্রতিষ্ঠানেও একজন রিসিপশনিস্ট ৭/৮ হাজার টাকা বেতন পেয়ে থাকেন। অন্যদিকে বড় প্রতিষ্ঠানে রিসিপশনিস্টদের বেতন হয় ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। যদিও রিসিপশনিস্ট হওয়ার জন্য কোনো পৃথক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেই। তবে এ জন্য শুদ্ধভাবে কথা বলা, সুন্দর বাচনভঙ্গি, টেলিফোন অপারেটিং এবং অফিসিয়াল কথা বলার জ্ঞান অর্জন করতে হবে। পাশাপাশি সুন্দর ব্যবহারের মাধ্যমে অফিসের সহকর্মীদের সঙ্গে মিলেমিশে থাকাটাও জরুরি। কারণ এ পেশার অন্যতম গুণ সুন্দর ব্যবহার।favicon59-4

Leave a Reply