৩৫তম বিসিএস : নন-ক্যাডারে ৩৯৮ জনকে নিয়োগের সুপারিশ

৩৫তম বিসিএস : নন-ক্যাডারে ৩৯৮ জনকে নিয়োগের সুপারিশ

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

৩৫তম বিসিএসের চূড়ান্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্যে থেকে ৩৯৮ জনকে প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের সুপারিশ করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।সোমবার (১৭ এপ্রিল) বিকালে এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়। তথ্য বিভ্রাটের কারণে তিনজনের ফল স্থগিত রেখেছে কমিশন। পিএসসির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, প্রথম দফায় প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার পদের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। দ্বিতীয় শ্রেণির নন-ক্যাডার পদের ফল প্রকাশের আগে প্রথম শ্রেণির আরো কিছু পদে সুপারিশের চিন্তা-ভাবনা রয়েছে।

পিএসসির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ক্যাডার) আইম নেছারউদ্দিন বলেন, নন-ক্যাডার পদে নিয়োগ (বিশেষ) বিধিমালা-২০১০ এবং গত ২০১৪ সালের ১৬ জুন জারিকৃত সংশোধিত বিধি অনুসরণ করে কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত তারিখের মধ্যে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত ১ম শ্রেণির শূণ্য পদের তালিকার ভিত্তিতে সুপারিশ চলমান রয়েছে। প্রথম শ্রেণির পদের সুপারিশ সম্পন্ন হলে দ্বিতীয় শ্রেণির পদে সুপারিশ প্রদান করা হবে। ফলাফল পিএসসির ওয়েবসাইট www.bpsc.gov.bd তে পাওয়া যাচ্ছে।

পিএসসি সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় আরো ৩শ প্রথম শ্রেণির পদে সুপারিশের পরিকল্পনা আছে কমিশনের। সেই লক্ষে পিএসসির সংশ্লিষ্টরা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তারপর দ্বিতীয় শ্রেণির নন-ক্যাডার পদের ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

গত বছরের ১৭ আগস্ট ৩৫তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয়। এতে ৫ হাজার ৫৩৩ জন উত্তীর্ণ হন। এর মধ্যে ২ হাজার ১৫৮ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ করা হলেও পদস্বল্পতার কারণে ৩ হাজার ৩৫৯ জনকে নন-ক্যাডারের জন্য রাখা হয়। গত নভেম্বরে নন-ক্যাডারে নিয়োগের জন্য প্রথমবারের মতো অনলাইনে আবেদনপত্র নেয়া হয়েছে। ২ হাজার ৬২৬ জন এতে আবেদন করেছেন।

২০১৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ৩৫তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল পিএসসি। সর্বোচ্চ দুই লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন প্রার্থী নিয়ে ২০১৫ সালের ৬ মার্চ ৩৫তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বিসিএস বিধিমালা সংশোধনের পর নতুন নিয়ম ও সিলেবাসে ২০০ নম্বরে দুই ঘণ্টার প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নেয়া হয়। প্রতিটি শুদ্ধ উত্তরের জন্য ছিল এক নম্বর। আর ভুল উত্তরের জন্য শূন্য দশমিক ৫০ নম্বর কাটা হয়। আগে ১০০ নম্বরে এক ঘণ্টা প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতো। ওই বছরের ৮ এপ্রিল প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে পিএসসি, যাতে উত্তীর্ণ হয় ২০ হাজার ৩৯১ জন। ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৩৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়, শেষ হয় ১০ অক্টোবর।

২০১৬ সালের ১৩ জানুয়ারি ৩৫তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হলে তাতে উত্তীর্ণ হন ৬ হাজার ৮৮ জন। আর ২০১৬ সালের ১৭ আগস্ট চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হয়। চূড়ান্ত ফলাফলে ২ হাজার ১৭৪ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করেছিল পিএসসি। এর মধ্যে গত ২রা এপ্রিল সরকার ২ হাজার ৭৩ জনকে নিয়োগ দিয়েছে।favicon59-4

Leave a Reply