তরুণদের সামাজিক ব্যবসার প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এসবিইপি

তরুণদের সামাজিক ব্যবসার প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এসবিইপি

সুমনা মাহি : ব্যবসাকে সাধারণত দেখা হয় টাকা বানানোর মেশিন হিসেবে। কিন্তু নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনুস বলছেন, ব্যবসা হতে পারে সমাজের সমস্যা সমাধানের একটি অন্যতম মাধ্যম। প্রফেসর ইউনুস ব্যবসার এই নতুন ধারণার নাম দিয়েছেন সামাজিক ব্যবসা।

উন্নত বিশ্ব সামাজিক ব্যবসাকে বলছেন, নেক্সট জেনারেশন বিজনেস। ইউরোপ, আমেরিকায় সামাজিক ব্যবসা ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। জাপান, জার্মান এবং ইটালতে গড়ে উঠেছে সামাজিক ব্যবসার নগরী। বিশ্বের ১৭ টি দেশের ২৪ টি বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক ব্যবসা নিয়ে গবেষণা করছে।

বিভিন্নদেশের নামীদামী ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ইউনুস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার, ১৬ টি সামাজিক ব্যবসার ফান্ড গঠিত হয়েছে। বর্তমানে সারা বিশ্বে ১০৬৬ টি সামাজিক ব্যবসার প্রতিষ্ঠান আছে।

তরুনদের সামাজিক ব্যবসায় কাজ করার সুযোগ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং নতুন এই ধারণাকে জানা ও এটিকে কাজে লাগিয়ে সমাজকে পরিবর্তন করার ব্যপক আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে।

SBEP10সামাজিক সমস্যা সমাধানে তরুণদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে ২০১৫ সাল থেকে সোশ্যাল বিজনেস স্টুডেন্টস ফোরাম এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি আয়োজন করছে, সোশ্যাল বিজনেস এক্সপোজার প্রোগ্রাম বা এসবিইপি। ২৮ ঘন্টার এই ট্রেনিং প্রোগ্রামকে বলা হচ্ছে সোশ্যাল ক্রিয়েটিভিটি এডুকেশন প্রোগ্রাম।

সোশ্যাল ক্রিয়েটিভিটি এডুকেশন প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে এসবিইপি, স্প্রিং-২০১৬ এর পরিচালক নুহ ইসলাম রিজভি বলেন, এসবিইপি শিক্ষার এমন একটি মাধ্যম যেখানে যারা সামাজিক ব্যবসা জানে এবং যারা জানেন না তাদের নিয়ে বিভিন্ন দল গঠন করা হয়। ফলে শিক্ষার্থীরা দলগত আলোচনার মাধ্যমে সামাজিক ব্যবসা শিখতে এবং এই ব্যবসার নতুন নতুন মডেল সৃষ্টি করতে পারে। ফলে পোগ্রামের আউটপুট হিসাবে জন্ম নেয় নতুন নতুন সামাজিক ব্যবসার পরিকল্পনা। অংশগ্রহণকারীরা পরবর্তীতে এই পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করতে চাইলে এসবিইপি র পক্ষ থেকে তাদেরকে সহযোগিতা করা হয়।

এসবিইপি-র কোঅরডিনেটর ডি আই ইউ-র ব্যবসা প্রাশাসন বিভাগের শিক্ষক বলেন, আনন্দের মাধ্যমে শিক্ষা এই কথাটি মাথায় রেখে প্রোগ্রামটি ডিজাইন করা হয়েছে। বিভিন্ন সেশনের মাধ্যমে তরুণরা হাতে কলমে সামাজিক ব্যবসা এবং সোশ্যাল ইথিক্স শিখতে পারে।

এসবিইপি, ফল-২০১৫ এর অংশগ্রহণকারী ম্যাপেলিফ স্কুলের ছাত্র মোহাম্মদ আরাফাত রহমান বলেন, এসবিইপি হচ্ছে প্রাণবন্ত এবং বাস্তব জীবনধর্মী প্রোগ্রাম যার যেখানে সামাজিক ব্যবসার পাশাপাশি আর্ট অব লিভিং শেখা যায় যা, সামাজিক উন্নয়নে তরুণদের অংশগ্রহণে অনুপ্রেরণা যোগায়। favicon594

Leave a Reply