সফলদের ২০ আচরণ

সফলদের ২০ আচরণ

শিমি আক্তার: জীববিজ্ঞানের ভাষায় মানুষে মানুষে পার্থক্য না থাকলেও সমাজবিজ্ঞানের ভাষায় মানুষে মানুষে পার্থক্য রয়েছে। তাই তো সমাজে সফল মানুষ যেমন দেখা যায় তেমনি ব্যর্থ মানুষেরও দেখা মেলে বিস্তর। মানুষে মানুষে এই পার্থক্য গড়ে দেয় মূলত কাজ ও আচরণ। একজন সফল মানুষ তাঁরা সংকটময় মুহূর্তে বিশেষ ক্ষমতার কারণে ভালো সিদ্ধান্ত নিতে পারে এবং  সে জানে কীভাবে খারাপ অবস্থার মধ্যেও সেরাটা বের করে নিতে হয়। চলুন সফল মানুষদের সম্ভাব্য কিছু আচরণ জেনে নিই।


১.         সঞ্চয়ের সম্ভাবনাকে উপেক্ষা করে না :  সফল মানুষরা বিভিন্ন বিষয়ের প্রতি সূক্ষ্মভাবে নিরীক্ষণের মাধ্যমে অপ্রয়োজনী খরচ এড়িয়ে চলে। তারা অর্থ ও সম্পদের যথাযথ ব্যবহার এবং তার সুরক্ষা করতে পারে। এভাবে তারা অর্থ সঞ্চয় করতে পারে এবং প্রয়োজনের সময় সেই সঞ্চিত অর্থ ব্যয় করতে পারে।

puppet-strings-image২.         অন্যের ওপর নির্ভরশীল হয় না : বন্ধু, পরিবারের সদস্য, সহকর্মীদের উপর বিশ্বাস ও নির্ভর করলে ক্ষতি নেই তবে সম্পূর্ণরূপে নির্ভরশীল হওয়া উচিত নয়। বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় এক ধরণের ভয়, শঙ্কা ও নিরাপত্তাহীনতা কাজ করে ফলে সমস্যা সমাধানে কেউ কেউ সাময়িকভাবে অন্যের ওপর দায়িত্ব দেয়। তবে সফল ব্যাক্তিরা অন্যের উপর দায়িত্ব দিয়েই  বসে থাকে না, সমস্যা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করে ঠিকই  সঠিক সমাধানের পথ বের করে নেয়।

৩.        দ্বায়িত্বহীন কাজ করে না :  দায়িত্বহীনতা আর কাজের প্রতি অনাগ্রহ এক বিষয় নয়। এর অর্থ আপনি গোছানো জীবনযাপন করতে পারেন না। সফল ব্যক্তিরা নিজ নিজ দায়িত্বে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকেন। তাঁরা অন্যের ওপর দায়িত্ব চাপিয়ে দেন না।

৪.         ভুল থেকে শিক্ষা নেয় : সফলরা অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নেয়। তারা চারপাশের পরিবেশ, পরিবার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে যে জ্ঞান অর্জন করে তা কাজে লাগিয়ে ভবিষ্যতের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়।

৫.         ভুলের মধ্যে বাস করে না: উদ্দ্যেক্তার তৈরি কোনো পণ্যদ্রব্য গ্রাহককে আকৃষ্ট নাও করতে পারে। সফল উদ্যোক্তারা এর কারণ খুঁজে বের করে এবং গ্রাহকের আস্থা তৈরিতে ভিন্ন আঙ্গিকে নতুন পণ্য তৈরির মাধ্যমে গ্রাহকের নিকট ওই পণ্যকে আকর্ষণীয় করে তোলে।

৬.        অতীতকে আঁকড়ে ধরে থাকতে চায় না: অতীতকে মুছে ফেলা যায় না। অতীত আজকের আপনাকে চেনাবে। অতীতের অভিজ্ঞতা যদি ভালো কিছু বয়ে না আনে তাহলে ভিন্ন উপায়ে সফলতা খোঁজার চেষ্ট করে সফল মানুষরা।

৭.         ভাগ্যের ওপর নির্ভর করে বসে থাকে না : সফল ব্যাক্তিরা বিপদ মোকাবেলার জন্য সব সময় প্রস্তুত থাকে। তারা ভাগ্যের ওপর নির্ভর করে বসে না থেকে পরিশ্রমের মাধ্যমে সফলতা পেতে চায়।

৮.        ব্যবসায়ের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো অবজ্ঞা করে না : ব্যবসায় সফলতার অন্যতম প্রধান ‘কি ফ্যাক্টর’। সফল মানুষরা ব্যবসায়ের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোতে সব সময় মনোযোগী থাকে।

৯.         ভূল থেকে শিক্ষা নিতে লজ্জা বোধ করে না : ভুল অবশ্যম্ভাবী একটি বিষয়। কারোরই সবকিছু নিয়ন্ত্রণে থাকে না। ভুল ভবিষ্যত শুদ্ধির পথ বাতলে দেয়। সফল মানুষরা ভুল থেকে দ্রুত শিক্ষা নিয়ে থাকে।

১০.       নিজের বিশ্বাসে অটল থাকা : অন্যদের মতের সাথে মতপার্থক্য থাকলেও তাঁরা তাঁদের নিজস্ব মতবাদ বা ধারনা বর্জন করে না। বুদ্ধিমানরা জানে কখন নিজেকে আবৃত করে রাখতে হবে এবং কখন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা থেকে বের হয়ে সুবিধাজনক সময়ের অপেক্ষায় থাকতে হবে।

১১.       দৃঢ় কোনো মন্তব্য করে না : তাঁরা দৃঢ়ভাবে কোনো মন্তব্য করে না যাতে  ভবিষ্যতে ত্রুটির জন্য তাদেরকে  দুর্বল মনে হতে পারে। তাঁদের মুখের শব্দের চেয়ে কাজের শব্দ বেশি হয়। অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস প্রকাশ করে না।

4_shutterstock_77614246১২.       অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ হারায় না : অধিকতর ভালো অবস্থানে পৌছানোর জন্য তাঁদের সবসময়ই একটা পিপাসা থাকে।

১৩.      যুক্তিসংগত বিষয়গুলো এড়িয়ে যায় না : গুরুজনদের পরামর্শ যুক্তিযুক্ত মনে  না হলেও তাঁরা যুক্তিসংগত বিষয় বা কারণ থেকে ফিরে আসে না।

১৪.       প্রয়োজনী জিনিসের অপচয় করে না : তাঁরা সম্ভাব্য বা ভবিষ্যতে প্রয়োজন হতে পারে এমন কোনো জিনিসের অপচয় করে না।

১৫.       নিজেকে সর্বজ্ঞানী ভাবে না :  তাঁরা কখোনেই নিজেক নির্ভূল বা মহান জ্ঞানী হিসেবে উপস্থাপন করে না।

১৬.      অকারণে শত্রু বাড়ায় না : উদীয়মান উদ্দ্যোক্তারা সমমানের প্রতিষ্ঠানের দ্বারা বিভিন্নভাবে আক্রান্ত হতে পারেন কিন্তু তারা তাতে বিচলিত হন না। ফলে কঠিন পরিস্থিতি সহজেই মোকাবেলা করতে সক্ষম হন।

১৭.       সফলতা নিয়ে গর্ব করে না : তাঁরা কখনোই নিজের কাজের সফলতা নিয়ে গর্ব করে না কারণ এতে তাঁদের  আরও সাফল্য অর্জনের তৃষ্ণা কমে যেতে পারে।

১৮.      এক ঝুঁড়িতে সব ডিম রাখে না : অর্থাৎ একই পোর্টফোলিওতে সব বিনিয়োগ করে না । সর্বদা ব্যাকআপ পরিকল্পনা, বিকল্প উপায় ও অনিশ্চয়তার কথা মাথায় রেখে বিনিয়োগ করে থাকে। একটামাত্র আইডিয়া নিয়ে সেই ব্যবসায় সম্পূর্ণ অর্থ বিনিয়োগ করে না।

১৯.      সবকিছু সহজেই হবে এমনটা ভাবে না : তারা জানে কিভাবে নিজেদের সরিয়ে নিতে হবে এবং ফিরে আসার রাস্তা তৈরি করতে হবে। যখন কোনো কিছু সহজ মনে হয়, তারা তাদের নিরাপত্তা সরিয়ে নেয় না, কারণ তারা মনে করে যেকোনো সময় দুর্যোগ আসতে পারে, আর সেই সময় এলে যেন মোকাবেলা করতে পারে। জীবন সহজ হয়ে যাবে এমন মোহে তারা বাস করে না।

২০.       অযথা ঝুঁকি নেয় না : ইংরেজিতে একটা প্রবাদ আছে ‘হাই রিস্ক, হাই রিওয়ার্ড’। কিন্তু স্মার্ট ও হিসেবি লোক এই মতের সাথে একমত হতে চায় না। তাঁরা কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমেই সফলতা অর্জন করতে চায়।

হাফিংটন পোস্ট অবলম্বনেfavicon594

Leave a Reply