পড়ার বিষয় : ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট

পড়ার বিষয় : ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সুন্দর ক্যারিয়ার গড়ার স্বপ্ন কার না থাকে? সময়ের সঙ্গে সঙ্গে জনসংখ্যা বেড়ে চলছে। আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার চাহিদা মেটাতে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে খুলছে নতুন বিভাগ। ‘ট্যুরিজম ও হোটেল ম্যানেজমেন্ট’ বিভাগটি তেমনি একটি বিভাগ।

বাংলাদেশকে প্রাকৃতিক ও ঐতিহ্যের সম্পদের রানী বলা হয়ে থাকে। দেশে অনেক জায়গা রয়েছে সেগুলো কাজে লাগিয়ে পর্যটন সেক্টরকে আরও ভালো করার সুযোগ রয়েছে। আর এসব পর্যটন জায়গাগুলোকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠছে অনেক নামিদামি তারকা হোটেল এবং রিসোর্ট। এসব স্থান সুদক্ষ কর্মীর অভাবে ভালোভাবে পরিচালনা করা সম্ভব হয় না। পর্যাপ্ত পরিমাণে ট্যুরিস্ট গাইড ও হোটেল সার্ভিসিং কর্মকর্তার অভাবে বিদেশী পর্যটক কম আসে। এমনকি এ পেশায় কাজ করে বিদেশে ভালো করার সুযোগ রয়েছে।

সম্ভাবনা ও স্বচ্ছতার জন্য মূলত ট্যুরিজম ও হোটেল ম্যানেজমেন্ট বিভাগটির ওপর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষার্থীরা ঝুঁকছে। যদিও আগে এটি আলাদা দুই বিভাগ ছিল কিন্তু বর্তমানে কিছু জায়গায় একসঙ্গেই পড়ানো হয়। ২০০৭ সালে সর্ব প্রথম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়ে পাঠদান শুরু হয়। এরপর অনেক সরকারি ও বেসরকারি ট্রেনিং সেন্টারে এ বিষয়ে পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। আর দেশের অনেক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়টি পড়ানো হয়।

ভর্তির যোগ্যতা ও খরচ : এইচএসসি পাস করা শিক্ষার্থী এ বিষয়টি নিয়ে পড়ার যোগ্য বলে বিবেচিত। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়টিতে ভর্তি হতে চাইলে ‘গ’ ইউনিটের অধীনে ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে। তাছাড়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য এইচএসসিতে যে কোনো বিভাগ থাকলে চলবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চার বছরে খরচ পড়বে মাত্র ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকার মতো। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে খরচ পড়বে ৪ থেকে ৬ লাখ টাকার মতো। এছাড়া ২-৩ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য ৮০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা লাগতে পারে।

বিদেশে বৃত্তির সুবিধা : বৃত্তি নিয়ে কম খরচে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, ভারত, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, পোল্যান্ড, সাইপ্রাসসহ বিভিন্ন দেশে ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজমে পড়াশোনাসহ গ্রাজুয়েশন করার সুযোগ রয়েছে।

কোর্সগুলো ও কাজের সুবিধা : ফুড অ্যান্ড বেভারেজ প্রোডাকশন, ট্র্যাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম, হাউসকিপিং, বেকারি অ্যান্ড প্রেস্টি প্রোডাকশন, ফ্রন্ট অফিস সেক্রেটারিয়াল অপারেশন ইত্যাদি। এসব বিষয়ে ছয় মাসের শর্ট কোর্স এবং এক বছর, দুই বছর কিংবা তিন বছরের ডিপ্লোমা কোর্স রয়েছে। আর স্নাতক ও স্নাতকোত্তর কোর্স তো আছেই। পছন্দমতো যে কোনো একটি কোর্স করতে পারেন। এসব কাজের সুযোগ শুধু দেশেই নয় বিদেশের চাহিদা অনেক বেশি। পর্যটন শিল্পের ওপর নির্ভর করে এসব দেশে গড়ে উঠেছে প্রচুর হোটেল, রেস্টুরেন্ট, রিসোর্ট, ট্যুরিজম কোম্পানি ও ট্রাভেল এজেন্সি। অনায়াসে এসব সেক্টরে কাজ করতে পারবেন। আর আয়ের দিক থেকে উন্নতি লাভ করা যায়।favicon59-4

Leave a Reply