সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ক্যারিয়ার

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ক্যারিয়ার

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

বাড়তি জনসংখ্যার আবাসন সমস্যা নিরসনে নির্মিত হচ্ছে বহুতল ভবন। নিত্য নতুন রাস্তাঘাট, বিমানবন্দর, সেতু, সুড়ঙ্গ, পানি সরবরাহ এবং নিস্কাশন ব্যবস্থা, বাধ, পোতাশ্রয়, রেলপথ, ফেরিঘাট, বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা করার নেপথ্য কারিগর হচ্ছেন একজন সিভিল ইঞ্জিনিয়ার। বিল্ডিং, সড়ক এবং ব্রিজ তৈরির নকশা ও সেই অনুযায়ী কাঠামো তৈরি, কাজ পরিচালনায় গুণগত মান রক্ষা সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদের কাজ।

কাজের ধরণ

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদের অফিস এবং মাঠ উভয় পর্যায়ে কাজ করতে হয়। চুক্তিকারী এবং পরামর্শক ইঞ্জিনিয়ারদেরকে একই সময়ে বিভিন্ন স্থানে কাজ করতে হয়। তাদেরকে দুর্যোগ প্রশমন এবং ব্যবস্থাপনার মত সংকটময় পরিস্থিতির সমাধানও করতে হয়। নির্মাণ প্রকৌশলীরা তেল রিগস, বহুতল বিশিষ্ট গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা অথবা বাড়ির নকশা এমন ভাবে তৈরি করেন যাতে নির্মাণ কাঠামোটি যে ভার বহনের জন্যে তৈরি করা হয়েছে তা নিশ্চিৎ করা যায়। তারা নতুন নতুন নির্মাণ সামগ্রী ও কৌশল উদ্ভাবন করে থাকেন।

কাজের ক্ষেত্র

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে শিক্ষার্থী পানি উন্নয়ন বোর্ড, এলজিইডি, রেলওয়ে, রিয়েল এস্টেট, বিআরটিএ, সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, মোবাইল ফোন কোম্পানির টাওয়ার নির্মাণে প্রকৌশলী, এন জি ও তে প্রকল্প প্রকৌশল হিসেবে এবং নিজস্ব নির্মাণ ব্যবসা প্রতিষ্ঠায় শিক্ষার্থীরা ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ আছে। এছাড়া দেশের বাইরে বিভিন্ন নির্মাণ প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার সুযোগ রয়েছে।

আয় কেমন

চাকরিতে নতুন যোগদান কারীদের বেতন ৩০০০০ বা ৪০০০০ (মাসিক) থেকে শুরু হয়। একটু অভিজ্ঞতা থাকলে ৫০০০০ বা ৯০০০০ (মাসিক) থেকে শুরু হয় এবং ১৫ থেকে ২০ বছরের অভিজ্ঞতা থাকলে মাসে লক্ষাধিক বেতনে চাকরি করতে পারে।

হতে পারেন ডিপ্লোমা সিভিল ইঞ্জিনিয়ার

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চালু হওয়া ডিপ্লোমা ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ওপর কোর্স। তবে একজন শিক্ষার্থীকে এ কোর্সের ব্যাপারে সর্বোপরি সহযোগিতা করতে পারবে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে থাকা বাংলাদেশ স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট।

যোগ্যতা: এ কোর্স করার জন্য একজন শিক্ষার্থীর যা যা প্রয়োজন_ নূ্যনতম এসএসসি পাস (সাধারণ/ভোকেশনাল/দাখিল/সমমান) এবং পরীক্ষায় নূ্যনতম জিপিএ ২.৫/২য় বিভাগ এবং গণিত/উচ্চতর গণিতে কমপক্ষে জিপিএ ২ বা ৪০ শতাংশ নম্বরসহ পাস করতে হবে। খরচ – ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে উচ্চশিক্ষা

বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং, এমএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ও পিএইচডি করা যায়।

বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি যোগ্যতা

এইচএসসি (বিজ্ঞান) বা সমমান। এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় মোট জিপিএ ৫.৫০ থাকতে হবে। ‘ও’ লেভেল পরীক্ষার্থীর ক্ষেত্রে কমপক্ষে ২টি বিষয়ে উর্ত্তীর্ণ হতে হবে। অথবা ডিপ্লোমা-ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ( বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে) কমপক্ষে জিপিএ ২.২৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। তবে বুয়েট, কুয়েট, এবং রুয়েটে ভর্তি হতে হলে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় গ্রেড পদ্ধতিতে ৫ এর স্কেলের কমপক্ষে জিপিএ ৪.০ পেয়ে উর্ত্তীর্ণ হতে হবে। খরচ- ৩- ৫ লাখ টাকা।

বিস্তারিত জানতে

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েট- www.buet.ac.bd

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট)

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট)- www.ruet.ac.bd

চুয়েট- www.cuet.ac.bdfavicon59-4

Leave a Reply