ক্যারিয়ারবান্ধব পাঠ

ক্যারিয়ারবান্ধব পাঠ

  • ক্যারিয়া ডেস্ক

বর্তমানে সব জায়গায় অভিজ্ঞ ও দক্ষ জনশক্তির ব্যাপক চাহিদা। আমাদের দেশে বিভিন্ন ধরনের শিক্ষার মধ্যে কারিগরি শিক্ষা অন্যতম সময়োপযোগী। সুতরাং সহজেই এই বহুমুখী ক্যারিয়ারে প্রতিভার বিকাশ ঘটানো সম্ভব।

সাধারণত পেশাগত জীবনে এ ক্যারিয়ারে আয় ও রোজগারের বিষয়টি নির্ভর করে কর্মদক্ষতা, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা এবং কাজের মনোযোগের ওপর। যেমন এখানে লেখাপড়া করে যে কেউ শুরুতেই মাসে ২০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা আয় করতে পারেন।

অনেকেই মনে করে থাকেন, কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে পড়াশোনা না করলে হার্ডওয়্যার ও নেটওয়ার্কিং শেখা কষ্টকর। এটা অনেক ভুল ধারণার মধ্যে একটি। কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে যারা পড়াশোনা করে, তাদের ক্যারিয়ার পথ আসলে হওয়া উচিত একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার। কিন্তু খুব কম সংখ্যক শিক্ষার্থীই সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার সুযোগ পান। কারণ আমাদের দেশে কাজের সুযোগ সীমিত। সেজন্য এমন কিছু নিয়ে পড়াশোনা করা উচিত, যাতে সহজে চাকরি পাওয়া যায়।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দেশ যত এগিয়ে যাচ্ছে, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ততই আইটিনির্ভর হয়ে পড়ছে। যার ফলে আইটি সেক্টর হয়ে উঠেছে ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্টের জন্য তরুণ প্রজন্মের প্রথম পছন্দ। আইটি সেক্টরের বিভিন্ন ধরনের বিশেষায়িত শাখা, যেমন_ অ্যানিমেশন ও মাল্টিমিডিয়া, ইন্টেরিয়র ও আর্কিটেকচার, হার্ডওয়্যার ও নেটওয়ার্কিং, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং, ডাটাবেজ ম্যানেজমেন্ট, ওয়েব ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, আউটসোর্সিং প্রভৃতি সম্ভাবনাময় সমৃদ্ধ সেক্টর।

ব্যবহারিক ক্লাসভিত্তিক এবং সার্টিফায়েড প্রফেশনাল প্রশিক্ষকদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পরিচালিত এ কোর্সগুলো করাচ্ছে দীপ্তি। কোর্স শেষে বাধ্যতামূলক রিয়েললাইফ প্রজেক্ট ওয়ার্ক ও ১-৩ মাস মেয়াদি ইন্টার্নশিপের ব্যবস্থা রয়েছে, যেন একজন শিক্ষার্থী হাতে-কলমে কাজ শিখতে পারেন। এ ছাড়াও রয়েছে প্রশিক্ষকদের সার্বক্ষণিক ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোর্স সমাপ্তি, পরীক্ষা গ্রহণ ও ফল মূল্যায়নের নিশ্চয়তা। প্রতি বছর চারটি সেশনে [মার্চ, জুন, সেপ্টেম্বর, ডিসেম্বর] এবং তিনটি শিফটে [সকাল/বিকেল/ সান্ধ্যকালীন] এই ডিপ্লোমা প্রোগ্রামগুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়। যোগাযোগ : দীপ্তি, ৬৪/৬ লেকসার্কাস, পান্থপথ, কলাবাগান, ঢাকা; ফোন : ৯১৩৪৬৯৫, ০১৭১৩৪৯৩২৬৭।favicon59-4

Leave a Reply