বস্ত্রকৌশলে পড়তে চাইলে

বস্ত্রকৌশলে পড়তে চাইলে

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয় ২০১০ সালের ২২ ডিসেম্বর। ২০১১ সালের ১৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। বর্তমান সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি আধুনিকমানের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার গড়ে তুলে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের অগ্রগতিতে অসামান্য ভূমিকা রাখছে।

এবার বিশেষায়িত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঁচটি ফ্যাকাল্টির অধীনে ১৩টি বিভাগের মধ্যে ৯টিতে ভর্তির সুযোগ পাবে ছাত্র-ছাত্রীরা। এছাড়া প্রস্তাবিত রয়েছে আরো চারটি বিভাগ। তবে জায়গা স্বল্পতার কারণে কার্যক্রম শুরু করা যাচ্ছে না। বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছে তিন হাজারের বেশি শিক্ষার্থী। প্রতি বছর সাড়ে সাতশ’ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়। পাস করা শিক্ষার্থীরা দেশি এবং বিদেশি প্রতিষ্ঠানে কাজের সুযোগ পাচ্ছে। এছাড়া উচ্চশিক্ষায় সুযোগ পাচ্ছে- অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকা, জার্মানি, জাপানসহ নানা দেশে। প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আন্তরিকতায় এগিয়ে চলছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে নভেম্বরে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। জানুয়ারিতে সেশন শুরু হয় এবং ডিসেম্বরে শেষ হয়। এটির অধিভুক্ত রয়েছে দেশের ছয়টি সরকারি টেক্সটাইল কলেজ। ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (www.butex.edu.bd)।

পরীক্ষার বিষয় নম্বর বণ্টন: মোট ২০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে। নম্বর বিভাজন গণিত ৬০, পদার্থ ৬০, রসায়ন ৬০ এবং ইংরেজিতে ২০। প্রশ্ন থাকবে ১০০টি। সময় থাকবে এক ঘণ্টা ২০ মিনিট। প্রশ্ন করা হবে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সিলেবাস থেকে। উত্তর নির্বাচনের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য নম্বর কাটা যাবে।

গণিত: সাধারণত এইচএসসির গণিত বই থেকেই সব প্রশ্ন করা হয়। পাঠ্য বইয়ের অঙ্কগুলো খুব ভালো করে রপ্ত করলে এ বিষয়ে ভাবতে হবে না। বইয়ের কোনো কিছু বাদ দেওয়া যাবে না। বেশি জোর দিতে হবে ছোট ছোট অঙ্কে। বইয়ের উদাহরণগুলোও ভালোভাবে আয়ত্ত করতে হবে। রপ্ত করতে হবে সংক্ষেপে অঙ্ক কষার পদ্ধতি।

পদার্থ: বইয়ের যেকোনো অধ্যায় থেকেই প্রশ্ন থাকতে পারে। আগের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন থেকে দেখা যায়, গাণিতিক সমস্যাবলী বিষয়ে অনুশীলনী ও উদাহরণ থেকেই সবচেয়ে     বেশি প্রশ্ন থাকে। তাই বেশ জোর দিতে হবে এ অধ্যায়গুলোর ওপর। পদার্থের মৌলিক বিষয়গুলোর ওপর ভালো দক্ষতা থাকতে হবে।

রসায়ন: বিক্রিয়া, সমীকরণ-এ পার্টগুলো খুব ভালো করে আয়ত্তে আনতে হবে। বেশি জোর দিতে হবে কোয়ান্টাম, পারমাণবিক তত্ত্ব, ডাই অ্যান্ড কেমিক্যাল সম্পর্কিত বিক্রিয়ার অধ্যায়গুলোতে। জারণ-বিজারণ, ডাটা, সংখ্যাবাচক জটিল শব্দ ও তথ্য- এসব অধ্যায় থেকেও প্রশ্ন থাকে।

ইংরেজি: ইংরেজিতে সব প্রশ্ন থাকবে এইচএসসি পর্যায়ের গ্রামার থেকে। সেনটেনস মেকিং, ফিলিং দ্য গ্যাপ, প্রিপজিশনাল ভার্ব, ফ্রেইজ অ্যান্ড ইডিয়মস, সিনোনিম, এন্টোনিম, রাইট ফর্ম অব ভার্ব, আর্টিক্যাল, ভয়েস, ন্যারেশনস, টেনস ইত্যাদি বিষয়ে বেশি জোর দিতে হবে।

ভালো করার টিপস: বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ইঞ্জিনিয়ার মাস্উদ আহ্মদ জানান, ভালো প্রস্তুতি থাকলে ভর্তি পরীক্ষায় অবশ্যই ভালো করা যাবে। ্পুরো সিলেবাস শেষ করে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসতে হবে। গুরুত্ব দিতে হবে সব বিষয়েই। মনে রাখতে হবে, এক নম্বরের ব্যবধানে মেধা তালিকায় অনেক পিছিয়ে যায় ছাত্র-ছাত্রীরা। ভুল উত্তর দিলে নম্বর কাটা যায়- বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে।

সহশিক্ষা কার্যক্রম: খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে এগিয়ে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে ১৪টি ক্লাব। এছাড়া শিক্ষার্থীদের আবাসনের জন্য চারটি আবাসিক হল রয়েছে। ছেলেদের জন্য রয়েছে তিনটি হল- শহীদ আজিজ হল, ওসমানী হল এবং সৈয়দ নজরুল ইসলাম হল। মেয়েদের জন্য রয়েছে শেখ হাসিনা নামের একটি হল।favicon59-4

Leave a Reply