পড়ুন পুষ্টি ও খাদ্য প্রকৌশল, গড়ুন ক্যারিয়ার

পড়ুন পুষ্টি ও খাদ্য প্রকৌশল, গড়ুন ক্যারিয়ার

  • মো. সাইফুল ইসলাম খান

মানুষের দৈনন্দিন জীবন যাপনের যে পাঁচটি মৌলিক উপাদান রয়েছে তার মধ্যে খাদ্য অন্যতম। খাদ্য এমন একটি বিষয় যা শুধু জীবন ধারনের জন্য নয় বরং সুস্থ জীবন যাপনের জন্য অপরিহার্য। তবে সে ক্ষেত্রে ভেজাল মুক্ত এবং সুষম খাদ্যের কোন বিকল্প নেই। ভোজন রসিক মানুষেরা তাদের দৈনন্দিন খাবারের তালিকায় নানারকম মুখরোচক খাবারের আয়োজন করে থাকে। তবে খাবারের আয়োজন যাইহোক মূল উদ্দেশ্য হচেছ খাবার খেয়ে বেঁচে থাকা এবং সুস্থ থাকা। বর্তমান সময়ে আলোচিত একটি বিষয় হলো খাদ্যে ভেজাল। বিভিন্ন রকম কৌশল ব্যবহার করে আমাদের সমাজের কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য খাদ্যে ফরমালিন নামক বিষ মেশাতে কার্পণ্য করছেন না। এইসব পণ্য ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষ প্রতিনিয়ত নানাবিধ অসুস্থতায় পতিত হচ্ছে। বেড়ে গেছে হার্ট স্ট্রোক, ব্রেইন স্ট্রোক, হৃদ রোগ, ক্যান্সার সহ আরো অনেক নাম না জানা অসুখ।

বর্তমান সময়ের চাহিদা মাথায় রেখে বৈজ্ঞানিক উপায়ে বিবিধ যন্ত্রকৌশল ব্যবহারের মাধ্যমে ভেজাল মুক্ত  সুষম খাদ্য উৎপাদন এবং বাজারজাতকরণ প্রক্রিয়া বিভিন্ন খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সামনে একটি বড় চ্যালেঞ্জ। ল্যাবরেটরি প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে খাদ্যের গুণগতমান পরীক্ষা করে উত্তম রূপে বাজারজাত করার জন্য দেশে বর্তমানে বহু প্রতিষ্ঠান সচেষ্ট রয়েছে। তবে বহুজাত খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রয়োজনের তুলনায় এই ক্ষেত্রটিতে দক্ষ ও অভিজ্ঞ লোকের ব্যাপক অভাব পরিলক্ষিত  হচ্ছে। অপার সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে প্রাতিষ্ঠানিক, তত্ত্বীয় ও কারিগরী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে অনেকেই পুষ্টি ও খাদ্য প্রকৌশলী হিসাবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নিজের কর্মক্ষেত্র হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে।

ক্লাসের ফাঁকে শিক্ষার্থীদের একটুখানি সেলফি! ছবি : নাদিম চৌধুরী

ড্যাফোডিল ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে পুষ্টি ও খাদ্য প্রকৌশল বিভাগটি চালু হয় ২০০৯ সালের ফল সেমিষ্টার থেকে। বিষমুক্ত সুষম খাদ্য উৎপাদনের মাধ্যমে দেশ ও জনগনের এই গুরুত্বপূর্ন মৌলিক উপাদানটি দক্ষ ও অভিজ্ঞতার সহিত সরবরাহ করার মহান ব্রত নিয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পুষ্টি ও খাদ্য প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থীরা অধ্যয়ন করে যাচ্ছে। তত্ত্বীয় শিক্ষার পাশাপাশি ব্যবহারিক শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা হাতে কলমে খাদ্য উৎপাদন, গুনগতমান এবং বাজারজাতকরনের কৌশল আয়ত্ত করছে। বাস্তব সম্মত শিক্ষা কারিকুলাম, মানসম্পন্ন শিক্ষক মন্ডলী, যুগোপযোগী শিক্ষা উপকরণ, উপযুক্ত শিক্ষার পরিবেশ, সীমিত শিক্ষাব্যয়ের কারণে ডিআইইউ’র খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগটিতে শিক্ষার্থীরা সহজেই এ বিষয়ের উপর বিএসসি কোর্স সম্পন্ন করতে সক্ষম হচ্ছে ।

এছাড়াও একজন শিক্ষার্থী নিয়মিতভাবে ডিপার্টমেন্ট কর্তৃক আয়োজিত, আমন্ত্রিত বিশেষজ্ঞ দ্বারা পরিচালিত বিষয়ভিত্তিক বিভিন্ন সেমিনার, সিম্পোজিয়াম, ওয়ার্কশপ, ব্যবহারিক প্রজেক্ট প্রভৃতিতে অংশ নিয়ে থাকে। বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জনের লক্ষে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন গবেষনাগার এবং খাদ্য উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করে থাকে। মূল কোর্সের সাথে সন্নিবেশিত এসব কার্যক্রম প্রতিটি শিক্ষার্থীকে পুরোপুরি দক্ষ ও বাস্তব জ্ঞান সম্পন্ন করে তোলে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগটির প্রধান লক্ষ হচ্ছে শিক্ষার্থীদেরকে খাদ্য প্রকৌশলী, পুষ্টি, খাদ্য নিয়ন্ত্রন, ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন, ফুড ক্যামেস্ট্রি, ফুড মাইক্রোবায়োলজি, ফুড প্রিজারবেশন, ফুড প্যাকেজিং সহ নানা বিষয়ে দক্ষ ও অভিজ্ঞ করে গড়ে তোলা।

শিক্ষার্থীদের প্রদর্শনী ঘুরে দেখছেন শিক্ষকরা। ছবি : নাদিম চৌধুরী

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে চার বছর মেয়াদী ১৪৪ ক্রেডিটের বিএসসি ইন নিউট্রিশন অ্যান্ড ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে থাকছে, ইনট্রোডাকশন টু ফুড সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, হিউম্যান নিউট্রেশন, ফুড সাইন্স, বেসিক ক্যামেস্ট্রি অ্যান্ড প্র্যাকটিক্যাল, বেসিক বায়োক্যামেস্ট্রি, ফুড মাইক্রোবায়োলজি, ফুড সেফটি অ্যান্ড হাইজিন, ক্লিনিক্যাল নিউট্রেশন অ্যান্ড ডায়েটেটিক্স, কোয়ালিটি কন্ট্রোল অব ফুড, এ্যানভায়রনমেন্টাল ফুড টেকনোলজি, ফুড প্রসেসিং অ্যান্ড প্যাকেজিং, ব্যাভারেজ টেকনোলজি, ফ্রুট অ্যান্ড ভেজিটেবল টেকনোলজি, ফুড প্রিজারভেশন, কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট ইন ফুড ইন্ডাজট্রি, ইন্ট্রো ইন্সিট্রুমেন্টাল মেথড্স অব এনালাইসিস অ্যান্ড প্র্যাকট্রিক্যাল, ডিজাইন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অব ষ্ট্রোরেজ অ্যান্ড ডিশট্রিভিউশন, ইঞ্জিনিয়ারিং প্রপাট্রিজ অ্যান্ড প্রিন্সিপাল অব ফুড মেশিনারী, ফুড অ্যান্ড বায়োপ্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং ডিজাইনসহ মোট ৬০টি বিষয়। ভাল জিপিএ-ধারী সহ ভর্তি হবার পর ডিপার্টমেন্টের প্রতি সেমিস্টারে ভাল রেজাল্ট অর্জনকারী মেধাবীদের বিভিন্ন পর্যায়ের বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে। এছাড়াও গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও ডিআইইউ বিশেষ ছাড় দিয়ে থাকে।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ডিপার্টমেন্ট অব নিউট্রিশন অ্যান্ড ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে প্রতি বছর তিনটি সেমিষ্টারে (জানুয়ারি, মে এবং সেপ্টেম্বর) ভর্তি নেওয়া হয়। ভর্তির যাবতীয় তথ্য পেতে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ৪/২ সোবাহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা এই ঠিকানায় যোগাযোগ করতে হবে। প্রয়োজনীয় টেলিফোন নাম্বার সমূহ: ৪৮১১১৬৩৯, ৪৮১১১৬৭০, ৯১২৮৭০৫ বর্ধিত: ৪৪৪, ৫৫৫। মোবাইল: ০১৭১৩৪৯৩০৫০-১, ০১৮৪৭১৪০০৬২  ফ্যাক্স: ৮৮-০২-৯১৩১৯৪৭। ইমেইল: info@daffodilvarsity.edu.bd, ওয়েব: www.daffodilvarsity.edu.bd

মো. সাইফুল ইসলাম খান   জনসংযোগ কর্মকর্তা , ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

Leave a Reply