অক্ষয়ের তারুণ্যের রহস্য

অক্ষয়ের তারুণ্যের রহস্য

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অক্ষয় কুমার। সব রকম চরিত্রে তাকে অভিনয় করতে দেখা যায়। বর্তমানে তিনি হাউসফুল-৩ সিনেমার শূটিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন। ব্যস্ততার ফাকে তিনি কথা বলেন ফিল্ম ফেয়ার ম্যাগাজিনের সাথে।


  • আপনি হাউসফুল-৩ এর শুটিং শুরু করেছেন, কেমন চলছে শুটিং?
    অক্ষয়: গ্রেট! সাজিদ এবং ফরহাদের সঙ্গে এটি আমার দ্বিতীয় চলচ্চিত্র। তাদের সঙ্গে কাজ করতে পারা আমার জন্য সবসময় মজার ব্যাপার।
  • আপনি কি অফবিট পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করতে চান না, এই যেমন নিরাজ পান্ডে?
    অক্ষয়: আমি সবার সাথেই কাজ করি। আমি সুরেশ দেশাই-এর সঙ্গে রুস্তম সিনেমা করছি। তিনি সেরা ২৬ জন পরিচালকদের একজন এবং নিরাজ পান্ডের ছবির প্রধান সহকারী পরিচালক ছিলেন। হ্যাঁ, আমি অবশ্যই অফবিট পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করি, পরেও করবো।
  • প্রভু দেবার সাথে প্রথমে রাউডি রাঠোর পরে সিং ইজ ব্লিং করলেন। কেমন ছিল দ্বিতীয় কাজের অনুভূতি?
    অক্ষয়: চমৎকার। ব্লিং দক্ষিণ ভারতীয় পাঞ্জাব ভিত্তিক একটি ছবি, কিন্তু সিং ইজ কিং এর পরিচালক ছিলেন একজন মুসলিম, আনীস বাজমী। আমাদের নির্দেশ ছিল আমরা সবকিছু ভূলে কাজ করবো। কারণ আমরা সকলেই ভারতীয় আর প্রভুদেবা আমার বন্ধু, তাই তার সাথে কাজ করা আমরা জন্য সবসময় আনন্দের।

ইতিবাচক চিন্তা এবং ভাল অভ্যাস। আমি ধূমপান বা মদ্যপান করি না. আমি তাড়াতাড়ি ঘুমাতে যায় এবং খুব ভোরেই ঘুম থেকে উঠি। তাছাড়া আমি অনেক সাঁতার কাটি। প্রতিদিন নিয়ম করে ব্যায়াম করি। আপনি যদি নিজের যত্ন নেন তাহলে আপনি সুস্থ এবং সুখী জীবন পাবেন।

  • লারা দত্ত ও আপনি দীর্ঘদিন ধরে বন্ধু, আপনার কি কখনো আপনাদের সন্তানের সাথে এসব নিয়ে আলোচনা করেন?
    অক্ষয়: লারা এবং আমি ভালো বন্ধু। আমরা মজা করতে ভালোবাসি। তাই মানুষের সমালোচনা নিয়ে ভাবি না। আমি আমার সন্তানদের সাথে এসব শেয়ার করতে পছন্দ করি না। কিন্তু আমার মেয়ে নিতারা ও তার মেয়ে সায়রা গোয়াতে একসাথেই আছে এবং তারা একে অপরের সাথে খেলতে খুব পছন্দ করে। তাই আপনারা আমদের নিয়ে আলোচনা করুন, তবে দয়া করে এর মধ্যে আমাদের সন্তানদের টেনে আনবেন না।
  • আপনি এবং অরূপ কি নিয়ে চ্যাট করেন?
    অক্ষয়: আসলে আমরা সিনেমা বাদে সবকিছু নিয়ে কথা বলি, চ্যাট করি। যেমন: ক্রীড়া, খাদ্য, প্রযুক্তি, জীবন, বন্ধু, স্কুল, পরিবার, সুইমিং ইত্যাদি। সে কখনও আমার কাজ এবং সিনেমা নিয়ে জানতে চাই না। আমার ছেলের সাথে আমার বন্ধুত্বের সম্পর্ক, ঠিক যেমনটি আমার বাবার সাথে আমার ছিল। আমি মনে করি আমরা প্রথমে বন্ধু তারপরেই পিতা-পুত্র। আমি তাকে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছি , সে জীবনে যা করতে চায় করুক। ওর বয়স এখন মাত্র ১৩ আর এই বয়স হল লেখাপড়ার বয়স । তাই সে এখন তাতেই মনোযোগী।
  • আপনার স্ত্রী টুইঙ্কল খান্না এখন একজন জনপ্রিয় লেখক, আপনি কি তার ব্যক্তিত্ব দেখ বিস্মিত হন না?
    অক্ষয়: না, কারণ তার প্রতিভা ছিল তা আমি অনেক আগে থেকেই জানতাম। সে অনেক আগে থেকেই কাগজে কলমে তার স্বপ্নকে ফুটিয়ে তুলতো।
  • দিনর পর দিন আপনি আরও তরুণ হয়ে যাচ্ছেন, এটির গোপন রহস্য আমাদের বলুন।
    অক্ষয়: (হাসি) ইতিবাচক চিন্তা এবং ভাল অভ্যাস। আমি ধূমপান বা মদ্যপান করি না. আমি তাড়াতাড়ি ঘুমাতে যায় এবং খুব ভোরেই ঘুম থেকে উঠি। তাছাড়া আমি অনেক সাঁতার কাটি। প্রতিদিন নিয়ম করে ব্যায়াম করি। আপনি যদি নিজের যত্ন নেন তাহলে আপনি সুস্থ এবং সুখী জীবন পাবেন।

 ফিল্মফেয়ার ম্যাগাজিন থেকে ভাষান্তর: রবিউল কমল   favicon

Leave a Reply