ছোট ব্যবসায় ভালো করার কৌশল

ছোট ব্যবসায় ভালো করার কৌশল

  • উদ্যোক্তা ডেস্ক

ছোট লঙ্কার ঝাল বেশি ব্যাপারটা তেমনি। ব্যবসা ছোট হলেই যে, ঝুঁকি কম-ব্যাপারটা আসলে তেমন না। যেকোন পরিসরের ব্যবসাতেই, প্রাথমিক ভাবে প্রত্যেক উদ্যোক্তাই বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন হন। কিভাবে শুরু করবে, ভবিষ্যৎ কেমন হবে, কোন কাজগুলো ব্যবসার জন্য ভাল হবে ইত্যাদি। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, আপনার ব্যবসা যদি ছোট হয় তবে আপনার চ্যালেঞ্জটা অন্যদের তুলনায় একটু বেশি।


আপনার যা আছে গ্রাহককে তাই দেওয়ার চেষ্টা করুন

 আপনার যা আছে তার বেশি কখনো গল্প করা উচিত নয়। এতে গ্রাহকেরা আপনার প্রতি যে চাওয়া তৈরি হবে তা পরবর্তিতে পূরণে ব্যর্থ হলে বিষয়টা অন্য রকম দেখাবে। দৃষ্টিভঙ্গিতে একজন অল্প মানের ব্যবসায়ীর ভাব বজায় রাখার চেষ্টা করুন। তাই বলে যে আপনি অনেক ছোট তা কখনো ভাববেন না। খুব সাধারণভাবে নিয়মিত পেপার ওয়ার্ক, আইডিয়া, কাজের গতি বাড়িয়ে নিজেকে প্রতিনিয়ত উন্নত করতে হবে।

বিশ্বাস অর্জন আপনার চ্যালেঞ্জ

 গ্রাহকের বিশ্বাস অর্জন করা খুব সহজ কাজ নয়। অথচ ছোট পরিসরের ব্যবসার জন্য এই অর্জনটাই আপনাকে করতে হবে সবার আগে। প্রত্যেক কোম্পানির ব্যবস্থাপনা বা অন্যান্য পলিসি আলাদা হতে পারে কিন্তু গ্রাহককে বিশ্বস্ত করাই প্রথম গুরুত্বপূর্ণ কাজ। কারণ দীর্ঘমেয়াদে নতুন গ্রাহক তৈরি করা এবং গ্রাহক ধরে রাখার উপর মূলত ব্যবসায়ের ভবিষৎ নির্ভর করে। আর আপনি যেহেতু স্বল্প পরিসরে শুরু করছেন সেক্ষেত্রে প্রতিটি গ্রাহকই আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। কিছু সম্পদ আছে দৃশ্যমান নয় তবে তা অর্জন করতে তেমন মূলধনেরও প্রয়োজন হয় না, একজন অল্প মানের ব্যবসায়ীর উচিত সেই সম্পদ অর্থাৎ বিশ্বস্ততা, গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করা।

প্রতিষ্ঠানে প্রচুর সময় দিন

প্রতিষ্ঠানের ভিতর কর্মীদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। অফিসে অধিক সময় দেওয়ার চেষ্টা করুন। সহকর্মীদের ভেতর সম্প্রীতি গড়ে তোলা, গ্রাহক তার প্রয়োজন এবং অভিযোগের বিষয়টি যেন কোম্পানির সবোর্চ্চ কর্মকর্তাকে বলতে পারে সে সুযোগ তৈরি করা, সমজাতীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা প্রভৃতি বিষয়গুলো নিশ্চিত করুন। মনে রাখতে হবে, বর্তমান সময়ে ব্যবসায়ে তারাই বেশী এগিয়ে যাদের তথ্য ভান্ডার বেশী সমৃদ্ধ। এ জন্য প্রতিষ্ঠানে অবাধ যোগাযোগের কর্মক্ষেত্র তৈরি হলে সমসাময়িক তথ্যের সাথে প্রতিষ্ঠান পরিচিত থাকবে এবং প্রতিযোগিতার বাজারে এগিয়ে থাকবে। দেখবেন আপনার ব্যবসাটি আর ছোট নেই। একদিন খুব বড় হয়ে গেছে।

কোম্পানির একটা নিজস্ব সংস্কৃতি আছে তা ধরে রাখুন

 আপনার ব্যবসা ছোট বলে অফিসে কোম্পানি গন্ধ থাকবেনা তা নয়। সবসময় কাজের পাশাপাশি একটা সদ্যজাত কোম্পানির উচিত ‘কোম্পানি কালচার’ গড়ে তোলা। যদি কোন কোম্পানি চিন্তা করে যে তারা গ্রাহককে সর্বোচ্চ সুবিধা দেবে পাশাপাশি কোম্পানিকে আগে তার কর্মীদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। মাঝে মাঝে কোম্পানি তার নিজস্ব কালচার অনুযায়ী অফিস কর্মকান্ডের বাহিরে কর্মকর্তা, কর্মচারী, গ্রাহকদের নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারে। এতে গ্রাহকের সাথে যোগাযোগ বাড়বে।favicon59-4

Leave a Reply