সফল উদ্যোক্তার দৃষ্টিভঙ্গী

সফল উদ্যোক্তার দৃষ্টিভঙ্গী

সাবরিনা তাবাসসুম : উদ্যোক্তার প্রধান বৈশিষ্টগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে তার কৌতূহল। তার ঘুম ভাঙবে সেই সাত সকালে। তার কর্মক্ষেত্রে সবার আগে তিনিই প্রবেশ করবেন এবং সবার শেষেও তিনিই বের হবেন। বিখ্যাত উদ্যোক্তা ইনগ্রিড ভ্যান্ডার ভ্যাল্টের মতে, উদ্যোক্তারা সবধরণের প্রতিবন্ধকতা থেকে বের হয়ে আসতে পারেন। তারা তাদের আশাবাদী দৃষ্টিভঙ্গী এবং সৃজনশীল চিন্তার মাধ্যমে সবধরনের কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হওয়ার সাহস রাখেন। একজন সফল উদ্যোক্তার মাঝে সাধারণত পাঁচটি বৈশিষ্ট্য দেখা যায়।


১. কৌতূহলী হওয়া

উদ্যোক্তাদের শিশুদের মতো কৌতূহলী হতে হয়। উদ্যোক্তারা মনে করেন কোনকিছুই তাদের হাতের নাগালের বাইরে নয়। সবকিছুই গ্রহণযোগ্য। লেইসলি ব্র্যাডশ উদ্যোক্তা হিসেবে মনে করেন যে তিনি এই পৃথিবীকে দেখেছেন কৌতূহল, আবেগ, বিশ্বাস এবং ঝুঁকিগ্রহণের মানসিকতার সাথে।

২. আমি এর চাইতেও ভালো পারি- এমন মনোভাব ধরে রাখা

উদ্যোক্তাদের মনে সবসময়ই এই চিন্তা থাকে যে- কী করলে এর চাইতেও উন্নত অবস্থায় যাওয়া সম্ভব। তারা এটাও মনে করেন যে – যা কিছুই অতীতে আবিষ্কার করা হয়েছে তার সবকিছুই আসলে ভবিষ্যতের কোনো উন্নয়নের উদ্দেশ্যে হয়েছে। তারা কখনো বর্তমানে যা কিছু আশেপাশে আছে তাই নিয়ে সন্তুষ্ট থাকেন না। তারা যা পেয়েছেন তার চাইতে উন্নত কিছু পাওয়ার এবং করার চেষ্টা করেতে থাকেন।

৩. আশাবাদী

এই বৈশিষ্টটি হচ্ছে একজন উদ্যোক্তার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এমন অনেক উদ্যোক্তা আছেন যারা তাদের নেতিবাচক মনোভাবের জন্য খুব বেশি দূর যেতে পারেননি। তাদের ক্ষেত্রে দুটি বিষয় লক্ষ্য করা যায়। এক. তারা তাদের পরিণত করেন একজন অদক্ষ কর্মকর্তায়। দুই. তাদের হতাশাপূর্ণ মনোভাব তাদের ব্যবসার চরম ক্ষতি করে।

প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্য আশাবাদী হওয়া সবচেয়ে জরুরী। তাই নিজের মানসিক সুস্থতা বজায় রাখতে ও একজন সুবিবেচক হিসেবে ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ার জন্য আশাবাদী হতে চেষ্টা করুন।

৪. প্রচলিত নিয়ম ভঙ্গকারী

একজন উদ্যোক্তা সাধারণত পুরনো প্রথা ও নিয়ম ভঙ্গকারী হয়ে থাকেন। অন্যের মতামত মেনে না নিয়ে তিনি নিজের বুদ্ধিতে চলেন। সফল উদ্যোক্তা অন্য কারো নিয়ম মেনে নিজের জীবন বা কর্মক্ষেত্রকে সীমিত পরিসরে না রেখে, নিজের সৃজনশীল চিন্তাধারার মাধ্যমে তার কর্মক্ষেত্র প্রসারিত করতে চান।

৫. প্রযুক্তিনির্ভর দৃষ্টিভঙ্গী

বর্তমানে সব নতুন উদ্যোক্তাদের সাফল্যের পেছনেই রয়েছে তাদের প্রযুক্তিনির্ভরশীলতা। দ্রুত আদান প্রদান, ভালো ফলাফল এবং উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির জন্য জনবলের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে প্রযুক্তিনির্ভর হতে কোনো উদ্যোক্তাই পিছিয়ে নেই।

একজন উদ্যোক্তা পৃথিবীকে দেখেন উন্নয়ন, পরিবর্তন এবং উদ্ভাবনের আশা নিয়ে। তাই সফল উদ্যোক্তা হতে চাইলে আপনাকে একই সাথে খেয়াল রাখতে হবে যে আপনি কী ভাবছেন এবং কী করছেন?

এন্টারপ্রেনার অবলম্বনেfavicon59

Leave a Reply