ভিডিও মার্কেটিংয়ের পাঁচ কথা

ভিডিও মার্কেটিংয়ের পাঁচ কথা

মো. সাইফ : প্রযুক্তিবিদদের পূর্বাভাস ২০১৬ পেরোতেই বদলে যেতে পারে মার্কেটিংয়ের ধারনা। কন্টেন্ট নির্ভর মার্কেটিংকে ছাপিয়ে বাজারমাত করতে পারে ‘ভিডিও-মার্কেটিং’। মার্কেটিংয়ের কৌশল প্রতিনিয়তই পরিবর্তনশীল। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের যুগে পণ্যকে ভোক্তার কাছে দ্রুততম সময়ের মধ্যে পরিচিত করতে ভিডিও মার্কেটিংয়ের তুলনা নেই। মূলত স্মার্টফোনের ব্যবহার এবং ইন্টারনেটের সহজলভ্যতাই ভিডিও মার্কেটিং কৌশলকে তরান্বিত করছে।

জনপ্রিয় ভিডিও দেখার ওয়েবসাইট ইউটিউবকে বলা যেতে পারে অনলাইনে ভিডিও মার্কেটিংয়ের সবচেয়ে বড় মাধ্যম। এটিকেই পুঁজি করে অনলাইন মার্কেটিংয়ের একটি বড় ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। ফ্রিল্যান্সারদের মার্কেটপ্লেস ওডেস্ক, ফ্রিল্যান্সার ডট কম, বিল্যান্সার, ইল্যান্স ইত্যাদিতে ভিডিও মার্কেটিংয়ের কাজ পাওয়া যায়। ঘণ্টা এবং প্রজেক্টভিত্তিক কাজগুলো করে ঘরে বসেই ভালো টাকা আয় করা সম্ভব।

ভিডিও মার্কেটিংয়ের পাঁচ কথা

  • বিষয়বস্তু আকর্ষণীয় হওয়া চাই: একটি ভিডিও তখনই অনেক মানুষ দেখবে যখন ভিডিওর বিষয় গতানুগতিক ধারা থেকে আলাদা হবে। ভালো মানের ভিডিও মানুষের আবেগ এবং চিন্তাধারাকে প্রভাবিত করতে পারে। পণ্যের প্রচারণায় সেটিকেই প্রাধান্য দিতে হবে সবার আগে।
  • ভিডিও প্রচারের হোস্টিং: ইউটিউব হচ্ছে সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিও হোস্টিং সাইট যেখানে সব ধরনের ভিডিও হোস্ট করা যায়। বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা সার্চ ইঞ্জিন ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশ করলে সেটা নজর কাড়বে অনেকের। তাই ইউটিউব-ই ভিডিও হোস্টিংয়ে প্রথম পছন্দ হওয়া উচিৎ।
  • টার্গেট-সার্চইঞ্জিন: বেশি বেশি ভিজিটর পেতে সার্চ-ইঞ্জিনের টার্গেট ঠিক করে দিতে হবে। ভিডিও’র জন্য একটি উপযুক্ত টাইটেল দিতে হবে যেটা দেখেই প্রথম ধারনা পাওয়া যাবে ভিডিও সম্পর্কে। বর্ণনার শুরুতে ওয়েবসাইটের ইউআরএল এবং ভিডিও সম্পর্কে কিছু বর্ননা দিতে হবে। গুগলের ট্যাগ টুলসে সঠিক ট্যাগ দিতে পারলে ভিডিওটি সার্চইঞ্জিনে খুব উপরের সারিতে চলে আসার সম্ভাবনা থাকবে।
  • লিংক ছড়িয়ে দিন: ভিডিওটি যাদের উপযোগী করে বানানো হয়েছে তাদের কাছে পৌঁছানোর জন্য প্রাসঙ্গিক ব্লগ, সোস্যাল নেটওয়ার্ক সাইটে ভিডিও লিংকটি শেয়ার করতে হবে। এক্ষেত্রে অপ্রাসংগিক কোনো জায়গায় শেয়ার না দেয়াই ভালো।
  • কল টু অ্যাকশন: এটি একটি ভিজিটর ধরে রাখার কৌশল। এ পদ্ধতিতে ভিডিওর শেষে ভিজিটরদেরকে ‘Subscribe now’ ‘Subscribe our channel’ ‘visit our website’ এই জাতীয় শব্দগুলোর মাধ্যমে পরবর্তী ভিডিও দেখার আমন্ত্রন জানানো হয় এবং নিজস্ব ওয়েবসাইটের প্রচার করা হয়। একজন ভিজিটরকে ধরে রাখতে চাইলে ‘কল টু অ্যাকশন’ পদ্ধতি ব্যবহার করতে হবে।

ডিজিটালাইজেশনের হাওয়ায় মার্কেটিংয়ে এসেছে পরিবর্তন। ভিডিও মার্কেটিং তাই হয়ে উঠছে খুবই সম্ভাবনায় একটি ক্ষেত্র। প্রসার বাড়াতে প্রচার দরকার। তবে প্রচারের শক্তিশালী মাধ্যম হয়ে উঠা ভিডিও মার্কেটিংকে কাজে লাগাতে হতে হবে কৌশলী।

Leave a Reply