উদ্যোক্তাদের অনুপ্রেরণা দেবে যে ৫ চলচ্চিত্র

উদ্যোক্তাদের অনুপ্রেরণা দেবে যে ৫ চলচ্চিত্র

  • উদ্যোক্তা ডেস্ক

উদ্যোক্তারা কি খুব কাঠখোট্টা কেউ ? সমাজ সংসার এর হাজারও টান উপেক্ষা করে; একাগ্র চিত্তে যারা নিজের লক্ষ্যে অবিচল? সমস্ত বাঁধনের অনুভূতি থেকে নিজেকে বিচ্যুত রেখে বিগ্রহের মত ভাবলেশহীন, উদাসীন? সমাজ, সংসার, পরিবার থেকে সাময়িক বিচ্ছেদ এঁকে নিজের সাধনায় কায়মনোবাক্যে নিবেশ করা এই উদ্যোক্তা শ্রেণীকে আপাতদৃষ্টিতে খুব নিকষ রসকষহীন মনে হলেও তারা আসলে সংবেদনশীলতায় পরিপূর্ণ এক মানব মন। হাজারও বাঁধা, প্রতিকূলতার মাঝে নিজেকে টিকিয়ে রাখাই যার স্বার্থকতা, তাকে আর যাই বলা যাক খুব সাধারণ একজন মানুষ বলা যায়না। কিন্তু উদ্যোক্তাদেরও কখনও কখনও এমন সময় আসে যে একটু অনুপ্রেরণার জন্য আশেপাশে হাতড়াতে হয়। জীবনের ঝঞ্ঝাবিক্ষুব্ধ  চলার পথে এই যে হাজারও প্রতিবন্ধকতা, কেউ না কেউ তো সেটি মাড়িয়েছেন আগেই। আর তারাই হয়েছেন কালজয়ী, ইতিহাসের পথপ্রদর্শক।

এই ধরনের হতাশাশ্রয়ী সময়ে চলচ্চিত্র হতে পারে এক মোক্ষম অনুপ্রেরণার জায়গা। অনেক ঘরানা, অনেক তত্ত্বের চলচ্চিত্র থাকলেও আজকে আমরা শুধু অনুপ্রেরণাদায়ী  ৫ টি চলচ্চিত্রের কথা বলবো যা আমাদের উদ্যোক্তাদের কে তাদের কঠিন সময়ে ভরসা যোগাবে, নতুন আশায় বুক বেঁধে সামনে এগিয়ে যেতে সাহস যোগাবে।


দ্য পারসুইট অব হ্যাপিনেস

ক্রিস গার্ডনার এর সত্যি কাহিনীর উপর নির্ভর করে বানানো এই চলচ্চিত্রটি যেকোন সময়ে যেকোন উদ্যোক্তার জন্যই এক রকম টনিক হিসেবে কাজ করবে। ক্রিস এবং তার ছেলের স্বপ্নের পিছনে ছোটার গল্প। বাস্তব জীবনে বাবা ছেলে উইল স্মিথ এবং জাডেন স্মিথ অভিনয় করেছেন এই মুভিতে বাবা ছেলের চরিত্রে। নিজের স্বপ্নের পিছনে ছুটতে গিয়ে হারিয়েছেন বাড়ি। নিঃস্ব রিক্ত হয়ে ছেলের জন্যে খাবার জোটানোই দায়। কিন্তু তাতেও বাপ ছেলে থেমে যাননি। স্বপ্নের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছানোর জন্যে আপামর সংগ্রাম করে গেছেন। উদ্যোক্তারা এই মুভি দেখে অনুপ্রাণিত না হলে আর কিসে অনুপ্রাণিত হবেন বলা মুশকিল।

দ্য সোস্যাল নেটওয়ার্ক
২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বক্স অফিস মাতানো এই ছবিটি নিয়ে সবারই আগ্রহ ছিল মাত্রাতিরিক্ত। কেনই বা হবে না? কাহিনীর নায়ক যে আধুনিক রূপকথার রাজপুত্র ফেসবুকের মার্ক জ্যুকারবার্গ। আপনি যদি কোন স্টার্টআপ এর সাথে জড়িত থাকেন তবে এই মুভি আপনাকে প্রতি মুহুর্তে শিখাবে কিভাবে কঠিন সময়গুলোতে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হয়। স্টার্টআপ অভিযাত্রার বাঁকে বাঁকে যে কত অনিশ্চয়তা আর উত্থান পতনের মধ্য দিয়ে মার্ক জ্যুকারবার্গকে যেতে হয়েছে এই মুভিটি তার এক চমৎকার সাক্ষ্য। মার্কের কষ্টকঠিন অগ্রযাত্রা আপনার উদ্যোক্তা মনেও নিঃসন্দেহে আশার সঞ্চার করবে। সাফল্যের পথ যে আসলেই বন্ধুর।

পাইরেটস অব সিলিকন ভ্যালি

বিল গেটস আর স্টিভ জবস প্রযুক্তি উদ্যোক্তাদের কাছে ঈশ্বরের মত স্থানেই বিচরণ করেন। তাদের গোটা জীবনটাই যেন এক শিক্ষা সফর। চলার পথের বাঁকে বাঁকে তারা প্রযুক্তিকে নতুন চেহারা দিয়েছেন। তাদের জীবনীর উপর ভিত্তি করেই এই মুভিটি বানানো। মুভিটির উপজীব্য শুরুর দিনগুলোতে অ্যাপল এবং মাইক্রোসফটের ঠুকাঠুকি, স্টিভ জবসের অনমনীয় দৃঢ়তা, বিল গেটসের শান্ত ধী প্রতিকৃতি; দিনশেষে যারা সমাজ বদলকারী দুই দার্শনিক। উদ্যোক্তাদের উদ্যোক্তা এই দুই মহান চরিত্র থেকে অনেক কিছুই শেখার আছে। জীবনে কে দেখার যে দৃষ্টিভঙ্গি, সমস্যাকে সমাধানের যে অ্যাপ্রোচ তাদের; এটিই এই মুভির সবচেয়ে লাভজনক পাওয়া ।

দ্য ওল অব ওয়াল স্ট্রিট
উত্থান পতন মানব জীবনেরই ধর্ম। অধ্যবসায় যেমন পারে মানুষকে সাফল্যের সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছে দিতে তেমনি সেই শিখর থেকে নেমে আসাও খুব একটা কঠিন কাজ নয়। সৎগুণ ও নিয়মানুবর্তী জীবনের স্বচ্ছন্দ ধারা থেকে বের হয়ে আসলে যেকোন সময়ই ঘটতে পারে ছন্দপতন। দ্যা উলফ অফ ওয়াল স্ট্রিট আমাদের কে যেন এই শিক্ষাই দেয়। সত্য কাহিনীর উপর নির্ভর করে বানানো এই চলচ্চিত্রটি টাইটানিক খ্যাত নায়ক লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিওর অনবদ্য অভিনয়ে ভাস্বর। মানুষকে সম্মোহন করার তার যে তীব্র ক্ষমতা তা যেকোন মার্কেটিং এর লোকজনের জন্যেই ঈর্ষণীয়। শূন্য থেকে শুরু করে ওয়াল স্ট্রিটে বিপ্লব ঘটিয়ে ফেলা এক প্রখর বুদ্ধিমান মানুষের গল্প।

রকি
সিল্ভেস্টার স্ট্যালোনের কালজয়ী চলচ্চিত্র। অনুপ্রেরণা এবং হার না মানা মানসিকতার এক উজ্জ্বল বৃত্তান্ত। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মুষ্টিযোদ্ধা রকি বালবোয়ার এর একরোখা জেদ তাকে ইতিহাসের সামনে এনে দাঁড় করায়। রকি সুযোগ পেয়ে যায় হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ন অ্যাপোলো ক্রিডের সাথে লড়ার। এই লড়াইয়ে রকি জিতুক বা হারুক সেটা আমাদের বিবেচ্য বিষয় নয়। যে অদম্য মানসিকতার পরিচয় রকি দিয়েছে, তাই যেকোন সাফল্য বুভুক্ষু মানুষের কাছে নিদর্শন হয়ে থাকবে। সারা দুনিয়া আপনার কানের কাছে বলতে থাকবে আপনি পারবেন না কিন্তু আপনার ভিতরের যে জেদ আপনাকে বলছে ‘তুমি পারবেই’- দিনশেষে জয় তারই।

এই রকম হাজারও অনুপ্রেরণার গল্প ছড়িয়ে আছে আমাদের মাঝেই। আমরা যারা শুরু করি তারা যদি নিজেদের বিশ্বাসে বলীয়ান হতে পারি, লক্ষ্য অর্জনের অবিচল যাত্রায় নিজেদের কে ধরে রাখতে পারি, তবে আগামীদিনের গল্প হবে হয়তো আমাদের নিয়েই। নিজেকে বিশ্বাস করানোটাই যে আসলে সাফল্যের মূলমন্ত্র।

সূত্র: স্টোরিয়া ডটকমfavicon59-4

Leave a Reply