এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ড কাপের বাংলাদেশ পর্বের বিজয়ী সিগমাইন্ড

এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ড কাপের বাংলাদেশ পর্বের বিজয়ী সিগমাইন্ড

  • উদ্যোক্তা ডেস্ক

এন্ট্রাপ্রেনারশিপ বিশ্বকাপের বাংলাদেশ পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তানভির তাবাসসুমের প্রতিষ্ঠান সিগমাইন্ড। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আয়োজনে আজ মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে এ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হয়েছে এডুব্লক এবং দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছে হ্যালোটাস্ক। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির কোষাধ্যক্ষ মো. হামিদুল হক খান পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ী প্রতিষ্ঠানের কর্নধারদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। ইনোভেশন অ্যান্ড এন্ট্রাপেনারশিপ বিভাগের প্রধান মো. শিবলী শাহরিয়ারের সভাপতিত্ত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ড কাপ বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর মো. আসিফ ইকবাল, প্রতিযোগিতার জুরিবোর্ডের সদস্য ও বিডিভেঞ্চার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শওকত হোসেন, স্টার্টআপ বাংলাদেশের বিনিয়োগ উপদেষ্টা টিনা জাবিন, লাইট ক্যাসেল পার্টনার্সের প্রধান নির্বাহী বিজন ইসলাম, বাংলাদেশে অ্যাঞ্জেলসের প্রধান নির্বাহী নির্ঝর রহমান, সহজ-এর বিপণন পরিচালক সেজামি খলিল প্রমুখ।

বাংলাদেশ পর্বের বিজয়ী তানভির তাবাসসুম আগামী নভেম্বরে সৌদি আরবের রিয়াদে অনুষ্ঠিত এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ড কাপের আন্তর্জাতিক পর্বে অংশগ্রহণ করবেন। আন্তর্জাতিক পর্বে বিজয়ী দল পুরস্কার হিসেবে পাবেন পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার সমমূল্যের ব্যবসায়িক পরামর্শ, দিক নির্দেশনা, বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা যা তাদরেকে প্রদান করবে ওরাকল, গুগল ক্লাউড, শপিফাই ও স্ট্রাইপের কর্পোরেট নেতৃবৃন্দ। তাদেরকে সহযোগিতা করবে মিস্ক ফাউন্ডেশন ও জিএসভি ল্যাবস। এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ডকাপ গ্লোবাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ নেটওয়ার্ক ও মিস্ক গ্লোবাল ফোরামের একটি উদ্যোগ যাতে  সহযোগিতা করছে গ্লোবাল এডুকেশনাল অ্যান্ড লিডারশিপ ফাউন্ডেশন, জিএসভি ল্যাবস-সহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সহযোগি প্রতিষ্ঠানগুলো।

এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ডকাপে বিশ্বের ১৪৮টি দেশের এক লাখ ২ হাজার প্রতিযোগী অংশ নিয়েছেন। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের উদ্যোগভাবনা প্রাথমিক পর্যায় থেকে বিকাশ পর্যায়ে উন্নীত হবে এবং উদ্যোক্তাদের মানসিক শক্তি বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করেন আয়োজকরা। বাংলাদেশ পর্বে চ্যাম্পিয়ন স্টার্টআপটি মেশিন লার্নিং নির্ভর হবে এবং যেটি প্রযুক্তির মাধ্যমে মানুষের চেহারা বিশ্লেষণ করতে পারবে। পদ্ধতিটি কোনো নির্দিষ্ট ঘটনা বিশ্লেষণের জন্য ভিডিওর মাধ্যমে প্রকৃত সময় অনুসন্ধান করতে পারবে। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানসহ সাধারণ বাসা-বাড়িতেও এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা যাবে।

এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ওয়ার্ল্ড কাপ আন্তর্জাতিক চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণের প্রস্তুতি হিসেবে তানভির তাবাসসুম আরো একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন যেখানে ভার্চুয়াল ট্রেনিং, মেনটরিং ইত্যাদি বিষয় থাকবে।

Leave a Reply