আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠুন

আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠুন

মোস্তাফিজুর রহমান : চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন? প্রথমবার কোন ব্যাক্তির সাথে সাক্ষাৎ করতে যাচ্ছেন? বন্ধুর বিয়ের অনুষ্ঠান অথবা কোন পার্টিতে যাচ্ছেন? কিন্তু আপনি যা কিছু পরে আছেন, তাতে আপনি সন্তষ্ট না! পায়ের জুতা কালো না হয়ে চকলেট কালার হলে আরও ভালো হতো! ঠিক এই শার্টটায় আপনাকে ভালো দেখাচ্ছে না! চেহারাটা যদি আর একটু ফোলা ফোলা হতো! মাথার চুলগুলো ভালো দেখাচ্ছে না; যেদিকে রাখতে চাই, বারবার চিরুনী চালালেও কাজ হচ্ছে না।!

নিজের বর্তমান অবস্থা নিয়ে এমন ছোট ছোট উদ্ভট চিন্তা হতেই পারে। হয়তো এসব নিয়ে আপনি ততটা চিন্তিতও না। নিজেকে নিয়ে এমন হীনমন্যতা যে আপনার দৈনন্দিন জীবনে কতো বড় প্রভাব ফেলছে তা হয়তো একবারও ভেবে দেখেননি অথবা আপনি এমন হীনমন্যতার কারণে দিশাহারা।

তবে নিজের মধ্যে এমন হীনমন্যতার ফলাফল যাই হোক না কেন, এটা মোটেও শুভ লক্ষণ নয়। এ থেকে আপনাকে বের হতেই হবে। না হলে এই ছোট্ট ছোট্ট চিন্তা, হীনমন্যতা জীবনে অনেক বড় কিছু হারানোর কারণ হতে পারে। ডেকে আনতে পারে ব্যাক্তি এবং কর্মজীবনে বিপর্যয়। এটা নিশ্চিত ভাবে আপনার আত্মবিশ্বাসের অভাব ছাড়া আর কিছুই না। এই আত্মবিশ্বাসহীনতা আপনাকে ক্রমশ আত্মকেন্দ্রিক করে তুলবে, কর্মবিমুখ করে তুলবে। তাই এ থেকে বের হওয়াটা খুবই জরুরী। আর এই সমস্যা থেকে বের হওয়া মোটেও শক্ত কোন কাজ নয়। শুধু নিজের সব কাজের প্রতি যত্নশীল হলে আর নিজেকে বিশ্বাস করতে শিখলে এ থেকে বের হওয়া খুবই সহজ।

নিজেকে বিশ্বাস করুন। প্রতিদিন সকালে ভালো করে আয়নায় নিজেকে দেখুন, ৭০০ কোটি মানুষের এই পৃথিবীতে আপনি শুধু একজন। ৭০০ কোটি মানুষেরই মুখমন্ডলের একই জায়গায় চোখ, নাক, মুখ অথচ প্রত্যেকেরই চেহারা আলাদা!

জেনে নিন এ বিষয়ে কিছু সহজ কথা: নিজের যা কিছু আছে তাতেই সন্তষ্ট থাকুন। আপনার পোষাক কম দামি হোক, কিন্তু তা যেন মার্জিত এবং পরিষ্কার পরিছন্ন হয়। আপনার কাজ, চিন্তু এবং ব্যাক্তিত্বের সাথে মানানসই হয়। হলিউডের কোন হিরো কত দামি সুট পরেছে তা দেখে হতাশ হওয়ার কোন কারণ নেই। নিজের সাদ্ধের মধ্যে পছন্দ মত পোষাক পরুন।

ইন্টারভিউ বোর্ড বা অন্য কোথাও কথা বলতে গিয়ে মোটেও বাড়িয়ে বলবেন না। আবার নিজের যতার্থ পরিচয়, বিশ্বাস, কাজের কথা লজ্জা পেয়ে লুকাবেন না। নিজেকে সাধারণ ভাবে আত্মবিশ্বাসের সাথে উপস্থাপন করুন।

মুখে সবসময় একটা আত্মবিশ্বাসের হাসি ধরে রাখুন।

কোন কাজে যাওয়ার আগে সে কাজ সম্পর্কে যত বেশি সম্ভব জেনে নিন। যে কোন কাজ, সাক্ষাৎ বা ইন্টরভিউ সমন্ধে স্বচ্ছ ধারণা নিয়ে তবেই শুরু করুন।

নিজেকে বিশ্বাস করুন। প্রতিদিন সকালে ভালো করে আয়নায় নিজেকে দেখুন, ৭০০ কোটি মানুষের এই পৃথিবীতে আপনি শুধু একজন। ৭০০ কোটি মানুষেরই মুখমন্ডলের একই জায়গায় চোখ, নাক, মুখ অথচ প্রত্যেকেরই চেহারা আলাদা! অন্য একজনের মত আপনার জীবনটা কখনোই হবে না। অন্যকারো জীবনে যা কিছু ঘটেছে, সে জীবনে যা কিছু পেয়েছে, আপনাকে তা পেতে হবে এমনটি নয়। আপনি সম্পুর্ণ স্বতন্ত্র। তবে সফলদের থেকে শিক্ষা নিন, আর নিজেকে আলোকিত করে গড়ে তুলুন। আত্ববিশ্বাসরে সাথে এগিয়ে যান, সাফল্য আপনারই।

Leave a Reply