নতুন শতাব্দীর সম্পদ হলো জ্ঞান: মুহাম্মদ জাফর ইকবাল

নতুন শতাব্দীর সম্পদ হলো জ্ঞান: মুহাম্মদ জাফর ইকবাল

লিডারশিপ ডেস্ক: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, জনপ্রিয় লেখক অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, বাংলাদেশে সম্পদের বিশাল ভাণ্ডার রয়েছে। আমাদের দেশের চার কোটি ছেলেমেয়ে স্কুলে যায়। অনেক উন্নত দেশেও চার কোটি মানুষ বাস করে না। আর এই চার কোটি ছেলেমেয়েকে যদি আমরা সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে পারি তাহলে বাংলাদেশ হবে সম্পদের বিশাল ভাণ্ডার। সংবাদ: এনটিভি।

১৮ অক্টোবর, রোববার রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বালক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ওয়েক আপ আইসিটি একাডেমির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মুহাম্মদ জাফর ইকবাল এসব কথা বলেন।

‘কখনো বাংলাদেশকে নিয়ে হতাশ হবে না। প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে হোক, তোমরা সেই ফাঁস হওয়া প্রশ্ন দেখে পরীক্ষা দেবে না। তোমাদের খাঁটি মানুষ হতে হবে। মেধাবী হলো তারাই, যারা নিয়মিত লেখাপড়ায় পরিশ্রম করে। তোমাদের নিয়মিত পরিশ্রম করতে হবে।’

অধ্যাপক জাফর ইকবাল আরও বলেন, ‘এই নতুন শতাব্দীর সম্পদ হলো জ্ঞান। কারণ, আমি শিক্ষক। আমি ছাত্রদের শেখাই। আমি যদি ভালো কিছু ছাত্রদের শেখাতে পারি আর সেই ছাত্র যদি দেশের জন্য কাজ করে সেই হবে সবচেয়ে বড় সম্পদ।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, ‘কখনো বাংলাদেশকে নিয়ে হতাশ হবে না। প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে হোক, তোমরা সেই ফাঁস হওয়া প্রশ্ন দেখে পরীক্ষা দেবে না। তোমাদের খাঁটি মানুষ হতে হবে। মেধাবী হলো তারাই, যারা নিয়মিত লেখাপড়ায় পরিশ্রম করে। তোমাদের নিয়মিত পরিশ্রম করতে হবে। অনেকেই বলে থাকে আমাদের দেশ ২০৫০ সালে উন্নত দেশে পরিণত হবে। কিন্তু আমি বলি, বাংলাদেশ যে হারে এগোচ্ছে তাতে ২০৫০ সালের আগেই আমরা উন্নত দেশের কাতারে চলে যাব।

শ্রমজীবি মানুষের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন ‘বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতার পেছনে অবদান রয়েছে আমাদের দেশের গরিব মানুষের। কৃষক, গার্মেন্ট শ্রমিক, প্রবাসীদের অবদান রয়েছে দেশের অর্থনীতিতে। কিন্তু এই মানুষগুলোই আজ চরম অবহেলার শিকার।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী। রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক রফিকুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কামরুন্নাহার চৌধুরী লাভলী, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ইয়াসমীন হক, প্রকৌশলী এস এম মুনীর আহম্মেদ, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী খান, অধ্যাপক মতিয়র রহমান, প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এ এন এম মোমেনুজ্জামান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক অর্নব নেওয়াজ মাহমুদ। favicon

Leave a Reply