চুলের সমস্যার ঘরোয়া সমাধান

চুলের সমস্যার ঘরোয়া সমাধান

চুল পড়া থামছে না কিছুতেই। ডাক্তার কবিরাজ সব দেখা শেষ! এখন তাহলে উপায় ?  চলুন জেনে নি চুল পড়া থামানোর কিছু ঘরোয়া উপায়:


রস: চুল পড়া রোধে রসুন, পেয়াজ এবং আদার রস মাথার তালুতে মাখুন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে মাথায় মাখুন, সকালে ভালো ভাবে ধুয়ে ফেলুন। অল্প দিনেই কার্যকর ফল পাবেন।

বিশ্রাম এবং ঘুম: দিন রাত ২৪ ঘন্টায় পর্যাপ্ত পরিমান বিশ্রাম নিন এবং ঘুমান। ঘুম এবং বিশ্রামের অভাবে চুল পড়তে পারে। অতিরিক্ত ডায়েট কন্ট্রোল করতে গিয়ে অনেকে বিপত্তি ঘটিয়ে ফেলেন। তাই সাবধান, ডায়েট কন্টোল করতে গিয়ে স্বাস্থ ঝুকিতে পড়বেন না।

খাদ্য সতর্কতা: অতিরিক্ত চিনি এবং চর্বি যুক্ত খাবার যেমন: ফাস্ট ফুট, পেস্ট্রি কেক, বাটার, ক্রিম, আইসক্রিম, চকলেট এবং সকল প্রকার কার্বনেটেড ড্রিঙ্কস ইত্যাদি খাওয়া বন্ধ করুন। অতিরিক্ত চা, কফি খাওয়া থেকেও বিরত থাকুন। কেননা, কফির ক্যাফেইন সকল প্রকার চুল ও স্ক্রিন সমস্যার জন্য দায়ী।

ধুমপান: ধুমপান ত্যাগ করুন। ধুমপানের কারনে রক্তনালী ক্ষতিগ্রস্থ হয়, ফলে রক্ত চলাচল বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে মাথার চুল পড়ে।

প্রটিন সমৃদ্ধ খাবার: খাদ্য তালিকায় প্রচুর পরিমান প্রটিন সমৃদ্ধ খাবার রাখুন। কারন প্রটিনের অভাবে প্রথমে চুল লালচে বাদামি হয়ে যায়। ধীরে ধীরে চুলের আগা ফেটে যায় এবং সর্বশেষ চুল পড়ে যায়। এদিকে প্রটিন সমৃদ্ধ খাবার শুধু যে চুল শক্ত করে তা নয়, বরং নতুন চুল গজাতে সহায়তা করে। এ ছাড়া সবুজ শাক-সবজির মাইক্রো নিউট্রিয়েল্টস বা পুষ্টি উপাদান চুলে জন্য খুবই উপকারী। কাজেই প্রত্যাহিক খাদ্য তালিকায় আয়রন এবং প্রটিন যুক্ত খাবার, যেমন: লাল শাক, কচু শাক, আলু, বাধাকপি, মুরগীর মাংস, ডিম, কলা, মাছ, দুধ, ডাল রাখুন।

পানি: প্রতিদিন পর্যাপ্ত পনি পান করা প্রয়োজন। সাধারণত প্রাপ্ত বয়স্ক একজন মানুষের প্রতিদিন ১৬-২০ গ্লাস পানি পান করা উচিত। তাহলে শরীরের আরও বেশ কিছু সমস্যার সাথে চুল পড়াও বন্ধ হবে।

শ্যাম্পু: হিন্দি ‘চ্যাম্পু’ শব্দ থেকে শ্যাম্পু শব্দের উৎপত্তি যার অর্থ ম্যাসাজ বা মালিস করা। অর্থাৎ চুলের সুরক্ষায় ম্যাসেজ প্রয়োজনীয়। কয়েকদিন পরপর চুলে শ্যাম্পু লাগিয়ে ম্যাসাজ করা উচিত। তবে মাথায় খুশকি থাকলে অ্যান্টিড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে।

গরম তেল ম্যাসাজ: মাঝে মাঝে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হালকা গরম তেল ম্যাসাজ করুন। আপনার ব্যবহৃত নারকেল তেল হালকা গরম করে নিন। তারপর মাথার তালু এবং সমস্ত চুলে ভালোভাবে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। রাতে তেল মাখা অবস্থায় থাকুন, সকালে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুলে আগা ফাটা কমবে, চুল পড়া বন্ধ হবে এবং চুল কোমল থাকবে।

ঘুমানোর আগে যত্ন: রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ভালোভাবে চুল আঁচড়ান। চুল আঁচড়ে ঘুমাতে গেলে মাথার তালুর রক্ত সঞ্চালন বেড়ে যায়, ফলে চুল পড়া কমে। এছাড়া ঘুমাতে যাওয়া সময় মেয়েদের চুল বাধার ব্যাপারে সতর্ক হওয়া জরুরী। বেশি শক্ত করে চুল বাধা উচিত না। এতে করে চুল ছিড়ে যায় এবং দুর্বল হয়ে যায়। চাইলে কাপড়ের ব্যান্ড দিয়ে চুল বেধে ঘুমাতে পারেন। চুল সুস্থ এবং সতেজ থাকবে।

মডেল: কিমিয়া কিমকিম
ফটোগ্রাফি: এস এম রাসেল favicon

Leave a Reply