জামিন পেয়েছেন ‘অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’র চার স্বেচ্ছাসেবী

জামিন পেয়েছেন ‘অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’র চার স্বেচ্ছাসেবী

নিউজ ডেস্ক: অবশেষে জামিন পেয়েছেন অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’র চার স্বেচ্ছাসেবী। মানব পাচারের এক মামলায় রাজধানীর রামপুরা থেকে আটকের দীর্ঘ একমাসেরও বেশি সময় পর তারা জামিনে মুক্তি পেলেন।

সোমবার ঢাকা সিএমএম আদালতের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসূফ হোসেন এ জামিন মঞ্জুর করেন। জামিন প্রাপ্ত স্বেচ্ছাসেবীরা হলেন- আরিফুর রহমান, হাসিবুল হাসান সবুজ, জাকিয়া সুলতানা ও ফিরোজ আলম খান শুভ। এর আগে এই মামলায় ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ও জেলা দায়রা জজ আদাল তাদের জামিন আবেদন নাকচ করে।

এই চার স্বেচ্ছাসেবীকে আটকের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শুরু হয় প্রতিবাদ। মজার স্কুলের নিবন্ধনের কাগজ আপলোড করে ফেসবুকে পেজ খুলে বলা হয় ‘আরিয়ান আরিফ জাকিয়ারা শিশু পাচারকারী নয়।’ বলা হয়, ‘কোথাও ভুল-বোঝাবুঝি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সাংবাদিক ভাইদের কাছে বিনীত অনুরোধ আপনারা সঠিকভাবে জেনে তারপর তাদের বিচার করুন।’ এ বিষয় নিয়ে সংবাদপত্রে কলাম লেখেন কয়েকজন গুনী সাংবাদিক-মলামিস্ট।

তাদের কাজের ব্যাপারে অবগত অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট আশীফ এন্তাজ রবি ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে লেখা স্ট্যাটাসে তাকে বিষয়টি দেখার আকুল আবেদন জানান। সেই স্টাটাসে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য প্রেস সচিব ও উপ প্রেস সচিব যোগাযোগ করেন।

‘অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন, ঢাকা
‘অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন, ঢাকা

এরপর তিনি ফলোআপ স্টাটাস দেন ফেসবুকে। তিনি লেখেন, ‘আমরা নিরূপায় হয়ে ফেসবুককে বেছে নিয়েছিলাম। অদম্য বাংলাদেশের ৪ তরুণ আজ এক মাসের ওপর কারাবন্দি। আমাদের ক্ষোভ, দুঃখ আর বঞ্চনার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে একটি খোলা চিঠি লিখেছিলাম।

আশার কথা হলো, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব জনাব আবুল কালাম আজাদ সেই স্ট্যাটাসে কমেন্ট করে আমাদের দেখা করার আমন্ত্রণ জানান। উনার শত ব্যস্ততার মধ্যেও তিনি ধৈর্য সহকারে আমাদের কথা শুনেছেন, আমাদের ব্যাপারে যথা সম্ভব খোঁজ খবরও নিয়েছেন। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের উপ প্রেস সচিব জনাব আশরাফুল আলম খোকনও দারুণ সহযোগিতা করেছেন। তাদেরকে ধন্যবাদ জানানোর ভাষা আমার নেই।’

উল্লেখ্য, মোবারক নামরে এক শিশু তাদের বিরুদ্ধে অবিযোগ করে। তার ভিত্তিতে গত ১৩ সেপ্টেম্বর রামপুরা বনশ্রীর সি-ব্লকের ১০ নম্বর সড়কের ৭ নম্বর বাসার একটি ফ্ল্যাট থেকে তাদের আটক করে পুলিশ। উদ্ধার করে দশ শিশুকে। তারা হলো মোবারক হোসেন (১৪), আবদুল্লাহ আল মামুন (১১), বাবলু (১০), আব্বাস (১০), স্বপন (১১), আকাশ (৯), মান্না ইব্রাহিম আলী (১০), রাসেল (১৪), রফিক (১৪) ও ফরহাদ (১৪)।

তবে তাদের মধ্যে শুধু মোবারক ছাড়া বাকি শিশুরা উদ্ধার হওয়ার সত্তেও ‘অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’-এ ফিরে যাবার আগ্রহ দেখায় বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। favicon

Leave a Reply