সকলের তরে ‘রোভার স্কাউটস’

সকলের তরে ‘রোভার স্কাউটস’

  • আফরিদা ইফরাত হিমিকা

সর্বদা অপরকে সাহায্য করতে প্রস্তুত থাকবো, এই মন্ত্রে স্কাউট সদস্যরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। শীতার্তের সহায়তা হোক বা বন্যার্ত কিংবা ক্যাম্পিংয়ের মাধ্যমে নিরক্ষরকে অক্ষরদান বা পরিবেশ সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি, পুরো বিশ্বজুড়ে স্কাউটরা স্বেচ্ছাসেবামূলক এসব কর্মকাণ্ডে যুক্ত। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশ স্কাউটসরাও, হজ্ব ক্যাম্পে বৃদ্ধ হাজীদের ভরসার অবলম্বন স্কাউটসরাই। শুধু তাই নয়,আয়কর মেলায়ও তাদের অবদান কম নয় এমন কি ট্রাফিক পুলিশদের সাথে দাঁড়িয়ে পথচারীদের মাঝেও তারা সচেতনতা বৃদ্ধি করেছে দৃঢ়তার সঙ্গে।

ট্রাফিক সপ্তাহ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রতি বছর সপ্তাহব্যাপী পুলিশের সঙ্গে ডিএমপির চারটি ট্রাফিক বিভাগের মোট আটটি জোনে বিভিন্ন স্কুল,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার ও স্কাউট সদস্যদের রাস্তায় দেখা যায় ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণে ভুমিকা রাখতে।

রাজধানীর বিভিন্ন ট্রাফিক পয়েন্টে অবস্থান করে তারা পথচারীদের মাঝে রাস্তা পারাপারে সচেতনতা, লাইসেন্স যাচাই বাছাই এ সহযোগিতা, ফিটনেসবিহীন গাড়ী চিহ্নিতকরণ, জেব্রাক্রসিংয়ের সঠিক ব্যবহার, ট্রাফিক সিগনালের সঠিক ব্যবহার ও ফুট ওভার ব্রিজ ব্যবহারে উদ্ভুদ্ধ করেন।

বিজয় স্মরণীতে কর্মরত ড্যাফোডিল এয়ার রোভার স্কাউট গ্রুপের সদস্য ইসরাত জাহান জিতু, এ বিষয়ে তার অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন, ‘সেবা করার ব্রত নিয়ে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম। আজ সড়ক নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করতে গিয়ে প্রথমবার অনুভব করেছি ট্রাফিক পুলিশে যারা কাজ করেন, রোদ ঝড় বৃষ্টি মাথায় করে তারা কতোটা কষ্ট করেন যাতে আমরা আরামে পথ চলতে পারি, ধন্যবাদ জানাই তাদেরকে।

রাস্তা পারাপারে পথচারীকে সচেতন করছেন ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় রোভার স্কাউট দলের দুই সদস্য। ছবি: সংগৃহীত।

তিনি আরো বলেন, একজন অন্ধ বৃদ্ধ পথচারী আমার কাছে বাসে উঠতে সাহায্য চেয়েছিলেন,তাকে সাহায্য করে যে অনুভূতি লাভ করেছিলাম তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়।

অপর এব স্কাউট আবরার বলেন, রাস্তা পার হতে হিমশিম খাচ্ছিলেন একজন মহিলা পথচারী, তাকে রাস্তা পার করে দেওয়া, শিশুদের নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন এক মহিলা, তাকে নিরাপদে পার করে দেওয়া, লোকজনকে জেব্রা ক্রসিং, ফুট ওভার ব্রিজ ব্যবহারে উৎসাহিত করা—এরকম হাজারো টুকরো টুকরো অভিজ্ঞতা ঝুলিতে নিয়ে ফিরেছি।

তবে সাধারণ মানুষদের মাঝে ট্রাফিন আইন না মানার প্রবণতা প্রবল। অলসতা এবং সময় বাচানোর তাগিদে তাদের ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহারে প্রচণ্ড অনীহা। সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সাধারণ মানুষকে আরো সচেতন হতে হবে। তবেই আমাদের সড়ক নিরাপদ হবে।

ট্রাফিক সপ্তাহে সারাদেশের রোভাররা প্রভাবশালীদের আইন না মানার অপচেষ্টা ও সাধারণ জনগণকে সচেতন করে তুলতে অসাধারণ ভূমিকা রেখেছে।

এছাড়াও রোভার স্কাউটসরা মাদক নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কাজ, আয়কর মেলায় স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে এবং শুধু ট্রাফিক সপ্তাহে নয়, পুলিশ সপ্তাহেও তারা অংশগ্রহণ করে স্বতঃস্ফূর্তভাবে। এরকমই বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের মাধ্যমে সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গড়ে তুলতে সাহায্য করে রোভার-স্কাউটস।

Leave a Reply