পর্দা নামতে যাচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপের

পর্দা নামতে যাচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপের

  • নিলয় বিশ্বাস

১৪ই জুন কাজানে রাশিয়া-সৌদি আরব ম্যাচ দিয়ে শুরু হয়েছিল ফিফা বিশ্বকাপ ২০১৮ এর যাত্রা। সময় যেন হুহু করে চলছে ! সেদিন শুরু হওয়া বিশ্বকাপের সময় ঘনিয়ে এসেছে ! মাত্র ২ দিন পরেই নামতে যাচ্ছে বিশ্বকাপের পর্দা । ১৫ই জুলাই ক্রোশিয়া-ফ্রান্স ম্যাচের মধ্য দিয়েই  আপতত ৪ বছরের জন্য বিদায় নেবে বিশ্বকাপ।

এবার বিশ্বকাপ যেন এক অঘটনের বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে ! কে জিতবে কে হারবে আগে থেকেই বলা মুশকিল। বড় বড় ফেভারিট দলগুলোকে খাবি খাইয়েছে ছোট ছোট দলগুলো । স্পেনও হার মেনেছে রাশিয়া কাছে। খোদ ২০১৪ এর চ্যাম্পিয়ান জার্মানিকে দেশে ফিরে যাওয়ার টিকিট ধরিয়ে দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া!

১৯৯৮ তে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান হয়েছিল ফ্রান্স। এরপর আর  বিশ্বকাপ ছুঁয়ে দেখার মত ভাগ্য হয়ে উঠেনি লেস ব্লুসদের । ৯৮ এর চ্যাম্পিয়ান দলের ক্যাপ্টেনই খোদ ফ্রান্স দলের ম্যানেজার এবার। দিদিয়ের দেশেমের প্রত্যাশাটা একটু বেশি থাকবেই! ক্যাপ্টেন ও ম্যানেজার দুই স্থানে বসে বিশ্বকাপটা ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখতেই পারেন দেশম। বিশ্বকাপে এক ঝাঁক তরুণ দিয়ে বেশ ভালভাবে চ্যাম্পিয়ান হওয়ার আভাস দিয়ে রাখছে ফ্রান্স। ডিফেন্স, মিডফিল্ড, অ্যাটাকিং তিন বিভাগেই চোখে পড়ার মত প্যারফরমেন্স দেখিয়ে আসছে দেশমের শিষ্যরা। কিলিয়ান এমবাপ্পে ইতোমধ্যেই অনেক ভক্তের মনের জায়গা করে নিয়েছে। ব্রাজিলিয়ান লিজেন্ড পেলে তার মধ্যে নিজের ছায়া নাকি দেখতে পেয়েছেন!

ক্রোশিয়ান গল্প একটু আলদা। দেশের জনসংখ্যা মাত্র চার মিলিয়ন! অন্য সব দলের মতো হট ফেভারিট এর তালিকায় ছিল না! কিন্তু অপরাজিত দল হিসেব জায়গা করে নিয়েছে ফাইনালে। ভাগ্যদেবতা মনে হয় ক্রোশিয়ার সাথেই আছে! নক আউট পর্বের তিনটি ম্যাচই জিতেছে অতিরিক্ত সময়ে। গতকাল ফেভারিট ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে নাম লিখিয়েছে লুকা মডিরিক এর দল। ৯৮ তে খোদ  সেমিফাইনালে  ফ্রান্সের কাছেই হেরে বিশ্বকাপের স্বপ্ন ভেঙে ছিল ক্রোশিয়াদের। অবশ্য সেবার নেদারল্যান্ডকে হারিয়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছিল ক্রোশিয়া। এবার হয়তো জালাকতোদালিকের শিষ্যরা চাইবেন প্রতিশোধটা তুলে নিতে! দলটার প্রাণ বলতে দুই মিডফিল্ডার লুকা মডরিক ও ইভানর‌্যাকেটিক। মাঝমাঠে থেকে চেরা পাস, প্রতিপক্ষ ডিফেন্সের কাছে একটা আতঙ্কের ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। ক্লাব যখন দুজন দুজনের রাইভাল, এখন লড়ে যাচ্ছেন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দেশের জন্য!

১৫ জুলাই রাতেই মস্কোর লুকাজাকি স্টেডিয়ামের মাঠেই চোখ থাকবে কোটি কোটি ফুটবল সমর্থকদের।  ফ্রান্সের দ্বিতীয়বার নাকি ক্রোশিয়ার প্রথম বার ? এর উত্তর দিয়ে দিবে কাঙ্ক্ষিত ফাইনালের রেজাল্ট। পরিসংখ্যানের পাল্লা ফ্রান্সের দিকে ভারী থাকলেও মনে রাখতে হবে এটা বিশ্বকাপ এবং অঘটনের বিশ্বকাপ। মাঠের খেলার উত্তরটা মাঠেই পাওয়া যাবে ১৫ জুলাই!

Leave a Reply