ব্যাডমিন্টনে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিমুকুট লাভ

ব্যাডমিন্টনে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিমুকুট লাভ

  • স্পোর্টস ডেস্ক

বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পস-২০১৯ এর ব্যাডমিন্টন ইভেন্টে পুরুষ একক ও দ্বৈত উভয় ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিমুকুট লাভ করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। শুধু তাই নয়, মিক্সড ক্যাটাগরিতেও রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। গতকাল শুক্রবার (১২ এপ্রিল) রাজধানীর ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত এ খেলায় পুরুষ এককে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন শিরোপা অর্জন করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী আল আমিন জুমার। অপরদিকে পুরুষ দ্বৈতে সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী মো. মুক্তার হোসেন এবং পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী আল আমিন জুমার জুটি। এছাড়াও মিক্সড ক্যাটাগরিতে রানার আপ হয়েছেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী অর্পা চাকমা ও পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী আল আমিন জুমার। বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পস-২০১৯ এর ব্যাডমিন্টন ইভেন্টে বাংলাদেশের কোনো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রথম তিন ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করল ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

গতকাল ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত পদক বিতরণী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চিপ হুইপ নূর-এ-আলম চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পদক তুলে দেন। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পস-২০১৯ এর আহ্বায়ক নাহিম রাজ্জাক এমপি, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান সৈয়দ মঞ্জুর এলাহী, মধুমতি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিউল আজম, বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বাহার এবং পোলার আইসক্রিমের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার মোহাম্মদ নওরোজ্জোহা। অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম এম শহীদুল হাসান।

উল্লেখ্য, যুব ও ক্রিড়া মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে দেশের ৬৫টি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশগ্রহণে দেশের সবচেয়ে বৃহৎ এ ক্রিড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে দশটি ইভেন্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। ইভেন্টগুলো হচ্ছে: ফুটবল, ক্রিকেট, টেবিল টেনিস, বাস্কেটবল, ব্যাডমিন্টন, সুইমিং, হ্যান্ডবল, ভলিবল, সাইক্লিং ও অ্যাথলেটিক্স। এ আয়োজনের সার্বিক সহযোগিতায় ছিল পোলার আইসক্রিম।

Leave a Reply