ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সেমিনার

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সেমিনার

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ‘আন্ডারস্ট্যান্ডিং ইসলাম ইন দ্য কনটেক্সট অব হারমোনি’ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার (১৮ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১ মিলনায়তনে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। মালয়েশিয়ার ক্রাউন প্রিন্স অব পারলিস টংকু সৈয়দ ফাইজুদ্দিন পুতরা জামালুল্লাইলের প্রতিনিধিত্বে সেমিনারে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন মালয়েশিয়ার মুফতি অব পারলিস দাঁতো প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আসরি জয়নুল আবিদীন। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান, উপ-উপাচার্য  প্রফেসর ড. এস এম মাহাবুব-উল-হক মজুমদারসহ, ডীন ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ ।

সেমিনারের প্রধান বক্তা প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আসরি জয়নুল আবিদীন তাঁর বক্তব্যে বর্তমান বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে ইসলামকে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ইসলাম নির্দেশিত উপায়ে জীবন যাপনের জন্য মুসলমানদের জন্য দুইটি মুল রেফারেন্স রয়েছে। একটি পবিত্রগ্রন্থ কোরান এবং অপরটি হাদিস। কোরান নিয়ে সারা পৃথিবীর মুসলমানদের মধ্যে কোনো বিভেদ নেই। কারণ পৃথিবীর সব দেশে পবিত্র কোরানের একটিই সংস্করণ এবং স্বয়ং আল্লাহ এর রক্ষণাবেক্ষণকারী। কিন্তু হাদিসের নানা রকমফের তৈরি হয়েছে। অসংখ্য জাল হাদিস তৈরি হয়েছে। ফলে মুসলমানদের মধ্যে তৈরি হয়েছে বিভেদ।

প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আসরি জয়নুল আবিদীন বলেন, সহি হাদিসের উৎস তিনটি। এক. মহানবী (স.) যা বলেছেন, দুই. মহানবী (স.) যা করেছেন এবং তিন. মহানবী (স.) যা অনুমোদন দিয়েছেন। এই তিনটি উৎসের বাইরের কোনো হাদিস সহি হাদিস নয়। এসময় তিনি বলেন, কোরান ও হাদিস মেনে জীবন যাপন করলে মুসলমানদের মধ্যে কোনো বিভেদ থাকবে না। তাই সবাইকে পবিত্র কোরানের সঠিক অর্থ ও মূল উৎস থেকে আগত হাদিস পাঠের আহ্বান জানান এই বিশিষ্ট মুফতি।

এছাড়া জ্ঞান বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় মুসলমানদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর আহ্বান জানান প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আসরি জয়নুল আবিদীন। তিনি বলেন, রাজনীতি-অর্থনীতি-গণমাধ্যমসহ সমস্ত নিয়ন্ত্রণকারী ক্ষেত্র অমুসলিমরা দখল করে রেখেছে। মুসলমানদের উচিত সেসব ক্ষেত্রে নিজেদের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখা।

অনুষ্ঠানে ক্রাউন প্রিন্স অব পারলিস টংকু সৈয়দ ফাইজুদ্দিন পুতরা জামালুল্লাইল বলেন, বর্তমান পৃথিবীতে ইসলামের নামে নানা অপবাদ প্রচলিত। কোরান হাদিসের ভুল ব্যাখা দিয়ে অনেক উগ্র গোষ্ঠী ইসলামের ক্ষতি সাধন করছে। এদের কারণেই মূলত ইসলামের নামে অপবাদগুলো তৈরি হচ্ছে। এই অপব্যাখ্যাকারীদের হাত থেকে ইসলামকে রক্ষা করতে হলে কোরান হাদিসের সঠিক চর্চার কোনো বিকল্প নেই। এসময় তিনি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে ধন্যবাদ জানান এরকম সময়পোযোগী একটি সেমিনার আয়োজন করার জন্য।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম বলেন, ইসলাম একটি সুশৃঙ্খল জীবন বিধান। কিন্তু নানা ভুল ব্যাখ্যার কারণে ইসলাম আজ বিপন্ন। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য বেশি বেশি কোরান হাদিসের চর্চা করতে হবে। ইসলাম বিষয়ক সভা, সেমিনার, আলোচনা বাড়াতে হবে।

সেমিনারে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউরিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান বলেন, মুসলমানদের মধ্যে এখন হাজার হাজার গ্রুপ। এক গ্রুপ আরেক গ্রুপের বিরুদ্ধে সারাক্ষণ বিষোদগার করে থাকে। নিজেরা সঠিক এবং অন্যরা ভুল বলে পরষ্পর পরষ্পরকে বাতিল করে দেয়। এ অবস্থার উত্তরণ দরকার। এ জন্য কোরান হাদিসের সঠিক চর্চা বাড়ানো প্রয়োজন বলে অভিমত ব্যক্ত করেন মো. সবুর খান।

সেমিনারটি শেষ হয় শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন উত্তর পর্বের মাধ্যমে। প্রশ্নকারী শিক্ষার্থীদের হাতে নিজের লেখা বই তুলে দেন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আসরি জয়নুল আবিদীন। এছাড়া সেমিনার শেষে অতিথিদের হাতে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট ও উপহারসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।favicon59-4

Leave a Reply