তরুণদের পছন্দের বিষয় ‘আর্কিটেকচার’

তরুণদের পছন্দের বিষয় ‘আর্কিটেকচার’

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

ল্যাবের প্রবেশপথেই দেখা যায়, মনোযোগের সাথে এন্টিকাটার দিয়ে কাটাকাটি চলছে। ককসিট দিয়ে কাঠামো তৈরি শেষে চারপাশ আটকে তার ভেতর ছিদ্রপথে প্লাস্টার অব প্যারিস ঢেলে দেয়া হয়েছে। সেটা শুকানোর পর পাশে সংযোজিত অতিরিক্ত কাঠ বা হার্ডবোর্ডটি সরিয়ে ফেলা হয়। এরপর ক্লোরোফর্ম দিয়ে ককসিট গলিয়ে ফেলা হয়। এরপর সেটা ঘষামাজা দিয়ে তৈরি হয় একেকটি প্রজেক্ট। এমন দৃশ্য দেশের যেকোন সরকারি কিংবা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্কিটেকচার বিভাগের।

কথা হয় সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটির প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আফরিনা আক্তারের সঙ্গে।  জানাচ্ছিলেন ক্লাসে যা তাত্ত্বিকভাবে শেখানো হয়েছে তার সফল প্রয়োগ কিভাবে হয় স্টুডিও ল্যাবে। ল্যাবের ভেতরে কেউ ককসিট কাটছে, কেউ আবার সেগুলো আলপিন দিয়ে সুবিন্যস্ত রূপ দিতে ব্যস্ত। প্রজেক্ট কী? বুঝতে চাইলাম ব্যাপারটা।

শাহরিয়ার মৃধা রাতুলের ঝটপট উত্তর, পরিবেশের প্রতি খেয়াল রেখে দীর্ঘসময়ের জন্য নান্দনিক রূপে আমরা আমাদের স্থাপনাগুলো যেমন চাই, তারই মডেল উপস্থাপিত হয় একেকটা প্রজেক্টের মাধ্যমে। রুপক বারান্দায় রাখা একটি প্রজেক্ট দেখালো উদাহরণ হিসেবে।

শাহবাগ প্রজেক্ট। একটি জনবহুল শহর হিসেবে ঢাকার এই প্রাণকেন্দ্র আরো সুবিন্যস্ত রূপ কিভাবে দেয়া যায়, যাতে সবধরনের সুযোগ-সুবিধা নিয়ে নিশ্চিত হয়। পরিবহন ও পথচারী চলাচল ঠিক রেখে, হাসপাতাল এবং বাসস্থান সবকিছুর সম্মিলনে টেকসই পরিবেশ উপযোগী সমাধান। ক্লাস আর ল্যাব মিলিয়ে সারাদিনই তাদের কাটে এখানে।

বোরিং লাগে না? শাকিল মাহমুদের দাবি- একটুও না। বিস্তৃত ক্যাম্পাসই তাকে তাজা রাখে পুরোদিন। রাজধানী ঢাকার অসংখ্য ভবন দেখে, আর মাথায় ভাবনা আসতে থাকে, এটা এভাবে না বানিয়ে ডিজাইনটা এমন হতে পারতো। কিংবা এই ভবনটার ডিজাইনই সবচেয়ে আকর্ষণীয়। সবচেয়ে উপযুক্ত।

ইশ যদি ফ্লাইওভারের এই অংশটা একটু বদলে দেয়া যেতো! স্যারের লেকচারের পর স্টুডিওতে শুধুই কি কাজ? কাজের ফাঁকেই চলে তুমুল আড্ডা। সঙ্গী হয় চা, কফি কিংবা চিপস। কখনো কখনো বন্ধুদের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে নজরুল-রবীন্দ্রসঙ্গীত কিংবা আধুনিক গান। আর যখন উৎসব আয়োজনে পরিসরটা বড় হয়ে যায়।

ক্লাস পরীক্ষার ফাঁকে ফটোগ্রাফি ক্লাব, আর্কিটেকচার ক্লাবের থাকে নানা আয়োজন। খেলাধুলার জন্যে রয়েছে পর্যাপ্ত সুযোগ।

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আর্কিটেকচার আছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। এছাড়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভাসির্টি অব বাংলাদেশ, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি, এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটি, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, স্টেট ইউনিভার্সিটি, সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটিসহ আরও বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে।favicon59-4

Leave a Reply