বিদেশী ভাষাও শিখে রাখা চাই

বিদেশী ভাষাও শিখে রাখা চাই

  • মুমু জান্নাহ

গ্রাম্য ভাষায় একটি কথা আছে, আগে ঘর ঠিক কর, পরে বাহির!’  অর্থাৎ আগে নিজের ঘর সামলাতে না পারলে, বাহির (সমাজ) সামলানো সম্ভব নয়, এ কথাটির সঙ্গে আমরা সবাই একমত পোষণ করতে পারি। যেহেতু আমাদের মাতৃভাষা বাংলা সেহেতু বাংলার উপর আমাদের সবারই কমবেশি দক্ষতা থাকে। কিন্তু তারপরেও মাতৃভাষার বাইরে অন্য কোনো ভাষায় দক্ষতা থাকলে তা অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার এবং অনুকরণীয়। তাহলে জেনে নেয়া যাক, মাতৃভাষার বাইরে অন্য ভাষা তথা বিদেশী ভাষায় কীভাবে সহজেই দক্ষতা অর্জন করা যায়।

খুঁজে বের করুন আপনার আগ্রহ:

বিদেশী ভাষা শেখার ক্ষেত্রে যে দিকটি সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ তা হলো, কোন ভাষা শেখার প্রতি আপনার আগ্রহ কাজ করছে। হতে পারে আপনি জাপানি ভাষা শিখতে আগ্রহী কিন্তু একই সময়ে আপনার বন্ধু স্প্যানিশ ভাষা শিখছে। এক্ষেত্রে আপনি আপনার আগ্রহকেই সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিবেন। তবেই দ্রুত সে ভাষা শিখতে পারবেন।

ভাষা পরিচিতি

চীনা ভাষা:

ভাষাবিজ্ঞানীদের মতে চীনা ভাষাগোষ্ঠীতে সাত কিংবা দশটি ভাষা বা উপভাষাগোষ্ঠী আছে। চীনা ভাষা শেখার ক্ষেত্রে প্রথম দিকে এর সংকেত কিংবা অক্ষরগুলো চিনতে পারা এবং মনে রাখাটাই আসল কাজ। কাজটা কিছুটা দুরূহও বটে! তবে সংকেতগুলো চেনা হয়ে গেলে ভাষা শেখাটা কষ্টের না হয়ে বরং আনন্দদায়ক হয়। নিচে চীনা ভাষার বেশ কিছু সংকেত দিয়ে দিলাম।

আগেই বলেছি, চীনা ভাষাগোষ্ঠীতে সাত কিংবা দশটি ভাষা (বা উপভাষাগোষ্ঠী) আছে। উদাহরণ-

নাম ফিনিনে ম্যান্ডারিন উচ্চারণ Trad. Simp.
ম্যান্ডারিন Běifānghuà / Guānhuà / Putonghua পেইফাংহুয়া / কুয়ান্হুয়া / ফুথুংহুয়া 北方话 / 官话 / 普通话 北方話 / 官話 / 普通話
ইউয়ে Yuè

উ্যয়ে

মিন Mǐn মিন্
শিয়াং Xiāng শিয়াং
খেচিয়া Kèjiā / Kè খ্যচিয়া / খ্য 客家 / 客 客家 / 客
কান Gàn কান্

স্প্যানিশ ভাষা:

স্পেনের অধিবাসীরা স্প্যানিশ ভাষাকে অন্যান্য জাতীয় ভাষার সাথে তুলনার সময় এস্পানিওল (Español) নামে ডাকেন। আবার এটিকে স্পেনের অন্যান্য আঞ্চলিক ভাষার (যেমন- কাতালান, গালিসীয়, বা বাস্ক) সাথে তুলনার সময় কাস্তেইয়ানো (Castellano) নামে ডাকা হয়।

জাপানি ভাষা:

জাপানসহ বিশ্বের প্রায় ১৩ কোটি মানুষ জাপানি ভাষায় কথা বলে। জাপান তুলনামূলকভাবে একটি ছোট দেশ হলেও এখানে বিস্ময়করভাবে বহু সংখ্যক উপভাষা প্রচলিত, যেগুলি উচ্চারণ, ব্যাকরণ এবং শব্দভাণ্ডারের দিক থেকে একে অপরের চেয়ে আলাদা। অনেকগুলিই পরস্পর বোধগম্য নয়। কিন্তু তারপরেও এই ভাষার উপযোগিতা অনেক!

কোরিয়ান ভাষা:

জাপানি আর কোরিয়ান ভাষার মধ্যে বেশ মিল রয়েছে। কোরীয় ভাষা জাপানি আলতায়ীয় ভাষা পরিবারের সদস্য। অর্থাৎ জাপানি ও কোরীয় ভাষা অত্যন্ত দূরবর্তীভাবে একে অপরের সাথে সম্পর্কিত। তবে উত্তর জাপানে প্রচলিত আইনানুসারে ভাষাটিকে এখনও একটি বিচ্ছিন্ন ভাষা হিসেবেই গণ্য করা হয়।

ইংরেজি ভাষা:

এবার আসি ইংরেজি ভাষায়। এই ভাষা নিয়ে মূলত পরিচয় করিয়ে দেয়ার কিছু নেই। তারপরেও যাদের জানা নেই তাদের জ্ঞাতার্থে বলছি, ইংরেজি ভাষা মূলত দুই প্রকার। একটা ব্রিটিশ অপরটি আমেরিকান। দুই ধরনের ইংরেজীর উচ্চারণে কিছুটা পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। তাই শেখার আগে এই ব্যাপারে একটু জ্ঞান থাকা ভালো।

ফরাসি ভাষা:

এই ভাষার মূল প্রচলন ইউরোপ মহাদেশে। বিশেষত ফ্রান্স, ইতালি, সুইজারল্যান্ড ও পার্শ্ববর্তী কিছু দেশে। চীনা, ইংরেজি, হিন্দি, স্প্যানিশ এবং আরবি ভাষার পর ফরাসি ভাষা পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি প্রচলিত। বর্তমানে পৃথিবীর প্রায় ৩০ কোটি লোক মাতৃভাষা কিংবা দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে ফরাসিতে কথা বলেন। বিশ্বের প্রায় ৫৪টি দেশে এটি ব্যাপকভাবে প্রচলিত। বর্তমান যুগে ফরাসি ভাষা শেখার ক্ষেত্রে তরুণ সমাজের মধ্যে বেশ ঝোক দেখা যায়। অন্যান্য ভাষাগুলোর তুলনায় ফরাসী ভাষা শেখা তুলনামূলক মজার। একটি ফরাসী বাক্যের উদাহরণ থেকে তা বোঝা যায়।

Je ne sais pas জ্য ন্য সে পা  “আমি জানি না।

আগে একটা সময় ছিল ইংরেজি জানা থাকলে ভালো চাকরি পাওয়া যেত। কিন্তু এখন বিশ্বায়নের যুগে ইংরেজির পাশাপাশি আরও দুই একটি বিদেশি ভাষা জানা আবশ্যক হয়ে পড়ছে। নিজেকে সমৃদ্ধ করতে এবং বিশ্বায়নের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে এর কোনো বিকল্প নেই। লক্ষণীয়, ভাষা শেখা বলতে এর listening, speaking, reading এবং writing চারটি দক্ষতাই অর্জন করতে হবে।

কোথায় শিখবো?

বাইরের দেশে পড়াশুনা, কাজ এবং স্থায়ীভাবে বাস করতে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্রধান শর্ত হল সেই দেশের ভাষা জানা থাকা। আপনি যে দেশেই যান না কেন আপনার সে দেশের ভাষাজ্ঞান নিয়েই তবে সে দেশে পড়াশুনা, কাজ এবং স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ পাবেন। জেনে নিন কোথায় কোন ভাষা শিখতে পারবেন।

ব্রিটিশ কাউন্সিল:

এটি যুক্তরাজ্য থেকে পরিচালনা করা হয়। ইংরেজি ভাষার ওপর কোর্স করার জন্যে সেরা এই ব্রিটিশ কাউন্সিল। আপনি বিভিন্ন মেয়াদের কোর্স এখান থেকে করতে পারবেন। আপনি আইইএলটিএসের ওপরে প্রস্তুতিমূলক কোর্স এখান থেকেই করে নিতে পারবেন।

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়:

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে ১৫টি ভাষার ওপর কোর্স করানো হয়। ভাষাগুলি হচ্ছে – ফরাসি, জার্মান, জাপানি, আরবি, রুশ, ফারসি, ইংরেজি, কোরিয়ান, চীনা, স্প্যানিশ, তুর্কি, পর্তুগিজ, ইটালিয়ান, উর্দু, হিন্দি। কোর্সগুলি স্বল্প এবং দীর্ঘ মেয়াদী। এখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে কোর্স করতে পারে। বাইরের শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট ফি এর বিনিময়ে কোর্স করতে পারেন তবে তাদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক যেকোনো একটিতে কমপক্ষে বি গ্রেড পেতে হবে।

জাপান স্টাডিজ সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত জাপান স্টাডিজ সেন্টারে ২ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা করানো হয়।

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়:

উচ্চ মাধ্যমিক পাসকৃত যে কেউই এখানে ভর্তি হতে পারবেন।

গোয়েথে ইনস্টিটিউট:

জার্মান শিখার জন্যে জনপ্রিয় ইনস্টিটিউট হল এই গোয়েথে ইনস্টিটিউট। এটি সরাসরি জার্মান দূতাবাস থেকে পরিচালনা করা হয়। Intensive এবং Extensive এই দুই প্রকারের কোর্স এখানে করার সুযোগ রয়েছে। বিস্তারিত ওয়েবসাইটে দেয়া আছে।

ডী স্প্রাখে:

চট্টগ্রামে জার্মান ভাষা শিখার ব্যক্তিগত ইনস্টিটিউট। আপনি এখান থেকে বিশ্বমানের জার্মান কোর্স সম্পন্ন করতে পারবেন। সন্ধ্যাকালীন এবং সাপ্তাহিক দিনে এই দুই ধরনের কোর্স এখানে চালু রয়েছে।

আলিয়ঁস ফ্রঁসেস:

ফরাসি ভাষা শেখার প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে আলিয়ঁস ফ্রঁসেস অন্যতম। ফরাসি দূতাবাস এটি পরিচালনা করে। কোর্সের মেয়াদ এক বছর। বিস্তারিত ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারবেন।

যে কোনো একটি ভাষা শেখার জন্য শুধু  একটি ইনস্টিটিউটে ভর্তি হয়ে যাওয়াটাই সমাধান না। ভাষা শেখার জন্য আরো কিছু স্ট্র্যাটেজি জানা থাকা দরকার।

কিছু পরামর্শ:

১। ভয় দূর করুন:

আপনি হয়তো আপনার শেখা ভাষায় কথা বলতে চান। কিন্তু আপনার ভয় লাগে। মনে হয়, আপনি ভুলভাল বলে বসবেন, আটকে যাবেন। আশেপাশের সবাই আপনাকে নিয়ে হাসাহাসি করবে। কে হাসলো বা কি করলো, ওইসব ভুলে যান। আপনি যদি শুরুই না করেন, আপনি কখনোই বুঝতে পারবেন না আপনার কোথায় ভুল হচ্ছে, কোন জায়গায় আপনাকে উন্নতি করতে হবে। কাজেই অহেতুক ভয় অথবা লজ্জা দূর করুন।

২। যে ভাষা শিখেছেন সে ভাষায় ভাবতে শিখুন:

আমরা যখন কথা বলি, আমাদের মাথার ভিতরে আগে কথাগুলো সাজাই। তারপরেই বলা শুরু করি। এখন আপনি যদি ইংরেজি বলতে গিয়ে বাংলাতেই কথা সাজানো শুরু করেন অথবা ভাবা শুরু করেন, আপনি ভালোভাবে ইংরেজিতে কথা বলতে পারবেন না। এটি অন্য ভাষাগুলোর ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। কাজেই, কথা শুরু করার আগে চিন্তা করতে শিখুন। ভাবতে শিখুন।

৩। শব্দভান্ডার বাড়ান:

এটা একটা খুবই সাধারণ সমস্যা, কথা বলতে গিয়ে উপযুক্ত শব্দ খুঁজে না পাওয়া। এই সমস্যার সমাধান একটাই। সেটা হচ্ছে যে কোনো ভাষায় ভালো করতে হলে Vocabulary বাড়ান। প্রতিদিনই চেষ্টা করুন নতুন নতুন কিছু শব্দ শিখতে। সহজ শব্দগুলোই শিখুন, যেগুলো আপনি কথা বলার সময় ব্যবহার করতে পারবেন।

৪। মিডিয়াকে কাজে লাগান:

কথা বলার ক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন মিডিয়া অথবা মাধ্যমের সাহায্য নিতে পারেন। ইংরেজি বই, ইংরেজি পত্রিকা পড়ুন। কোরিয়ান কিংবা ফরাসি অনেক মুভি আছে সেগুলো দেখে ফেলতে পারেন। সম্ভব হলে Subtitle সহ দেখুন। এতে আপনার শেখাটা অনেক তাড়াতাড়ি হবে। নিজের Voice রেকর্ড করে শুনুন। এতে আপনার Confidence বাড়বে, নিজের ভুলগুলোও বুঝতে পারবেন।

সঠিকভাবে কোন ইংরেজি শব্দ উচ্চারণ করতে পারা ইংরেজিতে ভাল করার জন্য অত্যন্ত জরুরি।

৫। সমমনা বন্ধু খুঁজে নিন:

এমন কিছু বন্ধু খুঁজে বের করুন, যারা আপনারই মতো বিদেশী ভাষায় কথা বলা শিখতে চায়। তাদের সাথে প্রতিদিন একবার হলেও বসে কথা বলার চর্চা করুন। সেটা ১ ঘন্টার জন্য হলেও। এভাবে ৫/৬ জন মিলে প্রতিদিন কথা বলতে থাকলে আপনি নিজেও বুঝতে পারবেন না যে কত দ্রুত আপনি বিদেশী ভাষায় দক্ষভাবে কথা বলতে শিখে গেছেন। নিজের ইচ্ছাশক্তিকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যান। আপনিই জয়ী হবেন।

মুমু জান্নাহ: শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সূত্র: ১০ মিনিট স্কুলfavicon59-4

Leave a Reply