চাকরি বদলের আগে

চাকরি বদলের আগে

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

চাকরি বদলের আগে আপনি যেসব কাজে দক্ষ বা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন অথবা যেই পরিবেশে বা যেসব মানুষের সঙ্গে কাজ করছেন- তাদের নিয়ে ভাবুন। মনে রাখবেন, আপনি যে কোনো সময় আপনার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে পারবেন। আর সুযোগ কিন্তু একবারেই শেষ হয়ে যায় না; ভালো কাজ করলে সুযোগও বারবার ঘুরে-ফিরে আসে।

ধীরগতির জয়

পরিবর্তন আনতে সময় নিন। আপনি আপনার ক্যারিয়ার পরিবর্তন করার কথা ভাবছেন, তার মানে হলো- নিজের বর্তমান কাজে পরিবর্তন আনছেন, বিকেলে নতুন কোনো কোর্স করছেন, কাউকে অনুসরণ করছেন অথবা নতুন কোনো দক্ষতায় মনোনিবেশ করছেন, যেন নতুন নিয়োগকর্তার কাছে নিজেকে আকর্ষণীয় করতে পারেন। এভাবে আপনি নতুন কর্মক্ষেত্রের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবেন। তাই সময় নিয়ে কাজ করা জরুরি।

বড় করবেন না সিভি
যদি আপনার কাছে অনেক আকর্ষণীয় তথ্য থাকে, আপনি তা আপনার সিভিতে অন্তর্ভুক্ত করতে চাইবেন। কিন্তু মনে রাখবেন, সিভিটা সর্বোচ্চ দুই পৃষ্ঠাতেই যেন থাকে। এক পৃষ্ঠায় হলে তো আরও ভালো। নিয়োগকর্তা অপর্যাপ্ত সময়ের জন্য সিভির প্রতিটি পৃষ্ঠা পড়তে পারেন না। তাই সিভির আকার ছোট রাখা এবং তাতে কাজের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক তথ্য প্রদান করাটা বাঞ্ছনীয়। যে কাজের জন্য আবেদন করেছেন, তার বৃত্তান্ত জেনে নেবেন। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো- নিয়োগকর্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করা এবং তাদের মধ্যে আপনার ব্যাপারে জানার আগ্রহ তৈরি করা। এতে আপনার অন্যান্য অভিজ্ঞতা ইন্টারভিউতে তুলে ধরতে পারবেন।

নিজের প্রতি আস্থা
আপনাকে বিশ্বাস করতে হবে, যে কোনো নতুন কাজের জন্য আপনি প্রস্তুত। আর এটা ক্যারিয়ার পরিবর্তনের অনেক বড় সুবিধা। মাঝেমধ্যে আমরা নিজেদের একজন ফটোগ্রাফার, অ্যাকাউন্ট্যান্ট বা অন্য কোনো সেক্টরে কল্পনা করি। তখন সেভাবেই নিজেদের মেলে ধরি আমরা। কিন্তু এখন আপনাকে অন্যভাবে চিন্তা করতে হবে এবং আপনার মনে যে ইচ্ছাটা আছে, সেটির ওপর আস্থা রাখতে হবে। যখন আপনি নিজেকেই বিশ্বাস করতে পারবেন, তখন অন্যরাও পারবে আপনার ওপর আস্থা রাখতে।

ইতিবাচক মনোভাব
ক্যারিয়ারের কোন দিকটি আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ? কোন ধরনের কাজের পরিবেশে আপনি খুশি থাকবেন? কাজের কোন দিক আপনাকে উজ্জীবিত করে? কোন কাজ আপনি করতে পছন্দ করেন এবং কোন কাজে দক্ষ? এ ধরনের প্রশ্ন আপনাকে কিছু সম্ভাব্য এরিয়া খুঁজে বের করতে সাহায্য করবে।

যোগাযোগ কথা বলে
নির্ধারিত সেক্টরের মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রাখুন। ব্যবসায়ের অভ্যন্তরীণ সংস্কৃতি এবং তাদের নিয়োগের ধরন জানার সবচেয়ে কার্যকরী উপায় হলো সেখানে কর্মরত মানুষদের সঙ্গে কথা বলা। জুনিয়র থেকে সিনিয়র, সব ক্ষেত্রে যোগাযোগ বাড়ান।favicon59-4

Leave a Reply