বিশ্ব ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় কারিগরি শিক্ষা

বিশ্ব ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় কারিগরি শিক্ষা

  • ক্যারিয়ার ডেস্ক

কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশে তৈরি হচ্ছে দক্ষ জনশক্তি। ক্রমেই আমাদের দেশে কারিগরি শিক্ষার গুরুত্ব বাড়ছে। আমাদের দেশে ডিপিআই এই ধরনের শিক্ষ সেবা দিয়ে আসছে। এই প্রতিষ্ঠানটি দেশের সর্ববৃহৎ ও অত্যাধুনিক কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছে কারিগরি বোর্ডের অধীনে চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষা কার্যক্রম। চাকরির পাশাপাশি উদ্যোক্তা হয়ে গড়ে উঠতে ডিপিআই’র রয়েছে তরুণ উদ্যোক্তা ফান্ড। আর কর্মমুখী শিক্ষার মধ্যে সবচেয়ে যুগান্তকারী উন্নয়ন ঘটেছে কারিগরি শিক্ষা এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শিল্পের। ডিপিআই আন্তর্জাতিক ভাষা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ব্রিটিশ কাউন্সিলের সাথে ছাত্র-ছাত্রীদের ইংরেজি ভাষার মান উন্নয়নের জন্য যৌথভাবে পরিচালনা করে আসছে বুক রিডিং কর্মসূচী যেটি বেসরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে যোগ করেছে নতুন মাত্রা। এছাড়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠান জবসবিডি.কম এর সহায়তায় শিক্ষার্থীদের ইর্ন্টানশিপ ও চাকরি প্রাপ্তিতে নিশ্চিত সহায়তা প্রদান করে থাকে। এ বিষয়ে আরও জানতে যোগাযোগ করতে পারেন ০১৭১৩৪৯৩২৪৬ নম্বরে।

অ্যাডমিশন.এসি-এর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষার্থীদের দিচ্ছে বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ। বিশ্ব ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় সকল শিক্ষার্থীরা পাচ্ছে মাসিক আট শত টাকা করে বৃত্তি। ডিপিআই-এর শিক্ষার্থীদের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে আরও উন্নত করার লক্ষ্যে সকল শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ফ্রি ল্যাপটপ। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বর্তমানে ডিপিআই-এর  শিক্ষার্থীরা সর্বপ্রথম পলিটেকনিক হিসেবে রোবটিক্স নিয়ে গবেষণা করছে এবং  বিভিন্ন জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে আসছে। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত ডিপিআই বিভিন্ন প্রোগ্রামে ডিপ্লোমা ও কম্পিউটার প্রশিক্ষণে এক নব দিগন্তের সূচনা করতে সমর্থ হয়েছে। তাদের মধ্যে চার বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার, টেলিকমিউনিকেশন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স, টেক্সটাইল এবং সিভিল, আর্কিটেকচার প্রোগ্রামগুলোর গ্রহণযোগ্যতা ইতোমধ্যেই চাকরি ক্ষেত্রে আশাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে।

ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাক্রম ৪ বছর মেয়াদি ৮ সেমিস্টারে সম্পন্ন হয়, প্রতি সেমিস্টার ৬ মাস অন্তর বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের নিয়ন্ত্রণে পরিচালিত হয়। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স সাফল্যের সঙ্গে সম্পন্ন করার পর শিক্ষার্থীগণ বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং সনদপত্র লাভ করে। উল্লিখিত বিষয়ে শিক্ষাগ্রহনে আগ্রহীদের সুবিধার্থে জানিয়ে দিচ্ছি—অফিস চলাকালিন সময়ে ভর্তির আবেদনপত্র, তথ্যবিবরণী ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রতিষ্ঠান হতে সংগ্রহ করতে হবে। ভর্তির আবেদনপত্র বোর্ড নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে। নির্বাচিত প্রার্থীদের এসএসসি/সমমান পরীক্ষার মূল নম্বরপত্র/ ট্রান্সক্রিপ্ট ৪ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ভর্তি হতে হবে। প্রতিষ্ঠানটিতে বর্তমানে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে বিভিন্ন কোর্সে ভর্তির প্রস্তুতি চলছে।favicon59-4

Leave a Reply