বৃত্তি নিয়ে জার্মানিতে

বৃত্তি নিয়ে জার্মানিতে

  • ক্যাম্পাস ডেস্ক

শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত দিক থেকে বিশ্বের অন্যতম দেশ জার্মানি। উচ্চশিক্ষার জন্য স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের পছন্দের অন্যতম গন্তব্য এখন ইউরোপের সমৃদ্ধ দেশ জার্মানি। কারণ, এখানে রয়েছে শিক্ষা ও গবেষণায় শূন্য টিউশন ফি ও শিক্ষাবৃত্তির সুবিধা। দ্য টাইমস হায়ার এডুকেশনের তালিকা অনুসারে বিশ্বের শীর্ষ ২০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ১২টিই জার্মানিতে অবস্থিত। জার্মান ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষায়ও পড়ার সুযোগ আছে দেশটিতে। জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয় বিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান ও মানবিক সব শাখাতেই উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার সুযোগ রয়েছে জার্মানির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে।

ভাষার দক্ষতা : জার্মানির অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ে জার্মান ভাষায় পাঠদান করা হয়। এ ক্ষেত্রে জার্মান ভাষার ওপর কোর্স করতে হবে। আর যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজিতে পড়ানো হয়, তার জন্য আইইএলটিএস বা টোফেল কোর্স করা থাকতে হয়। টোফেল স্কোর ২১৩ বা স্কোর ৭৯-৮০ এবং আইইএলটিএস স্কোর ৬.০ থাকতে হয়। অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি কোর্সের প্রয়োজন না হলেও দৈনন্দিন জীবনযাত্রার জন্য জার্মান ভাষা শেখা অত্যন্ত জরুরি।

জার্মানিতে পড়ার বিষয় : জার্মানিতে বর্তমানে ৪৫০টির বেশি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি বিষয়ে পড়ার সুযোগ আছে। জার্মানির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে গভর্ন্যান্স, পলিটিক্যাল সায়েন্স, অ্যাডভান্সড ম্যাটারিয়ালস, অ্যাডভান্সড অনকোলজি, কমিউনিকেশন টেকনোলজি, এনার্জি সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, ফিন্যান্স, মলিকিউলার সায়েন্স, বিভিন্ন ভাষা বিষয়ে পড়াশোনা, পদার্থবিজ্ঞান, গণিত, কম্পিউটার সায়েন্সসহ প্রকৌশল ও জীববিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ে পড়ার সুযোগ আছে।

স্কলারশিপ : জার্মানিতে পড়াশোনার জন্য টিউশন ফি লাগে না, এটা সত্য। জার্মানির ১৬টি রাজ্যের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কোনো টিউশন ফি নেই। তবে এ ক্ষেত্রে শর্ত প্রযোজ্য। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় সুনির্দিষ্ট ডিগ্রি প্রোগ্রামে আবেদন করলে বিনা খরচায় পড়ার সুযোগ আছে। সে ক্ষেত্রে স্থানীয়রা যেসব শর্ত মেনে লেখাপড়া করে, বিদেশিদেরও সেগুলো মানতে হবে। ‘স্টাডি এবরোড’ প্রোগ্রাম এবং প্রাইভেট ইনস্টিটিউটে পড়াশোনা ফ্রি নয়। বাংলাদেশ ও ভারতের শিক্ষার্থীদের জন্য DAAD স্কলারশিপ গুরুত্বপূর্ণ। মূলত এটি হচ্ছে জার্মান ছাত্রবিনিময় কর্মসূচি। বর্তমানে ৪৫ হাজার বিদেশি ছাত্রছাত্রীকে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এ ছাড়া বেশকিছু ফাউন্ডেশন প্রতিবছর এক লাখ বিদেশি ছাত্রছাত্রী ও ২৩ হাজার গবেষককে স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে। ‘স্টিপেন্ডিয়াটেন ডেয়ার স্টুডিয়েনস্টিফটুং ডয়েচেস ফল্ক’, ‘ডয়েচলান্ড স্টিপেন্ডিয়ুম’ নামের বৃত্তিসহ বিভিন্ন ফাউন্ডেশনের বৃত্তি পাওয়ার সুযোগও রয়েছে। ডিএএডি কনরাড আডেনাওয়ার ফাউন্ডেশন, হাইনরিশ ব্যোল ফাউন্ডেশন, ফ্রিডরিশ এবার্ট ফাউন্ডেশন, বোরিংগার ইংগেলহাইম ফাউন্ডেশন প্রভৃতি ফাউন্ডেশন থেকে বৃত্তি পেয়ে থাকেন শিক্ষার্থীরা।

গবেষণা : জার্মানির মাক্স-প্লাঙ্ক ইনস্টিটিউট বা ফ্রাউনহোফার সোসাইটির মতো গবেষণা প্রতিষ্ঠানের অবদান আন্তর্জাতিক মহলে স্বীকৃত। এই ইনস্টিটিউটে গবেষণার জন্য বিভিন্ন ফাউন্ডেশন স্কলারশিপ প্রদান করে থাকে।

বিখ্যাত ইউনিভার্সিটি : ইউনিভার্সিটি অব বার্লিন, লুদভিক ম্যাক্সিমিলিয়ান ইউনিভার্সিটি অব মিউনিখ, উল্ম ইউনিভার্সিটি, হাইডেলবার্গ ইউনিভার্সিটিতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা সহজ। ফ্রি ইউনিভার্সিটি অব বার্লিন, হাইডেলবার্গ ইউনিভার্সিটি, উলম ইউনিভার্সিটি, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাড হনেফ প্রভৃতি ছাড়াও জার্মানির ইউনিভার্সিটি অব হামবুর্গ (www.uni-hamburg. de), ইউনিভার্সিটি অব বন (www.uni- bonn.de), ইউনিভার্সিটি অব আগসবার্গ (www. uni- augsburg.de ) উচ্চশিক্ষার জন্য বিখ্যাত। এ ছাড়া ঢাকার গ্যেটে ইনস্টিটিউট (www. goethe. de/ins/bd/en/ dha.html) থেকেও উচ্চশিক্ষায় ভর্তি ও স্কলারশিপ সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য জানা যাবে।

স্টাডি ভিসার জন্য (Study Visa) : দুটি যথাযথভাবে পূরণকৃত আবেদনপত্র এবং প্রয়োজনীয় ডিক্লারেশন লেটারের অনুলিপি, ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, মূল পাসপোর্ট এবং এর ফটোকপি, যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়তে যাবেন সেখান থেকে ইস্যুকৃত ÔLetter of Acceptance আর্থিক সচ্ছলতার প্রমাণপত্র ও এর ফটোকপি যা প্রমাণ করবে জার্মানিতে অবস্থানকালীন আপনি আর্থিকভাবে সচ্ছল অবস্থানে থাকবেন।

লক্ষ্য রাখা জরুরি : জার্মানিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে যারা উচ্চশিক্ষা গ্রহণের উদ্দেশ্যে যাবেন, তাদের কয়েকটি বিষয়ে আগেই জেনে নেওয়া ভালো। শিক্ষা গ্রহণের পর্বটি নির্বিঘ্ন করতে বিষয়গুলো সম্পর্কে জেনে নেওয়ার বিকল্প নেই।favicon59-4

Leave a Reply