‘নিজের স্বপ্ন নিজেকেই দেখতে হয়’

‘নিজের স্বপ্ন নিজেকেই দেখতে হয়’

  • ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

নিজের স্বপ্ন নিজেকেই দেখতে হয়; অন্যের দেখানো স্বপ্নের পথে হেঁটে কখনো সফল হওয়া যায় না। এমনটাই বললেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবং বিজ্ঞাপনী সংস্থা অ্যাডকমের চেয়ারম্যান গীতিআরা সাফিয়া চৌধুরী। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইনোভেশন অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার আয়োজিত ‘উদ্যোক্তা উন্নয়নবিষয়ক ডিআইইউ ইন্ডাস্ট্রি একাডেমিয়া বক্তৃতামালা’ অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। আজ শনিবার (১৪ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়টির সিটি ক্যাম্পাস মিলনায়তনে ১২ পর্বের লোকবক্তৃতামালার ষষ্ঠ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

একক বক্তৃতায় শিক্ষার্থীদের  উদ্দেশে গীতিআরা বলেন, ‘জীবনে সফল হতে হলে নিজের স্বপ্নের পথে নিরলস হাঁটতে হয় এবং কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। অন্য কেউ এসে তোমার স্বপ্ন পূরণ করে দেবে না।’

নিজের সফলতার গল্প শোনাতে গিয়ে এ বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বলেন, ‘কেজি টু-তে পড়ার সময় থেকেই লেখালেখি শুরু করি। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রেরণা দিয়েছেন দাদু ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ। এছাড়া মা-বাবার অনুপ্রেরণা তো ছিলই। পরবর্তীতে আমার পেশাজীবন শুরু হয় সাংবাদিকতার মাধ্যমে। কয়েক বছর সাংবাদিকতা করার পর নিজের ইচ্ছায় প্রতিষ্ঠা করি বিজ্ঞাপনী সংস্থা অ্যাডকম।’

বক্তৃতা শেষে ছিল প্রশ্ন-উত্তর পর্ব। সেখানে আইন বিভাগের এক শিক্ষার্থীর করা প্রশ্নের উত্তরে গীতিআরা বলেন ‘শেখার কোনো শেষ নেই। জীবনের সব পর্যায়েই শিখতে হয়। আমি যখনই যে কনফারেন্সে অংশ নিই না কেন, আমার হাতে কাগজ-কলম থাকে; আমি বসে বসে নোট নিই।’

15977577_10154878836917203_5071449410609866223_n
শিক্ষার্থীদের একাংশ।

অপর এক শিক্ষার্থী জানতে চান, নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য কোনো না কোনো সিঁড়ির প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে সিঁড়ি খুঁজে পাবো কীভাবে?

মৃদু হেসে গীতিআরা উত্তর দেন, ‘কেউ কারো জন্য সিঁড়ি গড়ে দেয় না। সফল হতে হলে নিজের পরিশ্রম, চেষ্টা আর যোগ্যতা লাগে। আমি নিজের চেষ্টা আর পরিশ্রম দিয়ে নিজের সিঁড়ি গড়েছি। তোমাদেরকেও তাই করতে হবে।’

উদ্যোক্তা বিভাগের এক শিক্ষার্থীর প্রশ্নের জবাবে গীতিআরা বলেন, ‘আমাদের দেশে যোগ্য ও দক্ষ লোকের বড়ই অভাব।দুঃখজনক হলেও সত্য, আমাদের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো দক্ষ মানব সম্পদ তৈরি করতে পারছে না। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলেবাস ঢেলে সাজানো প্রয়োজন।’

এ সময় তিনি কারিগরি ও ব্যবহারিক শিক্ষার প্রতি নজর দিতে সবার প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন ইউনির্ভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান, উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ মাহাবুবুল ইসলাম ও ইনোভেশন ও ইনকিউবেশন সেন্টারের পরিচালক মো. আবু তাহের।

ডিআইইউ থেকে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়,  আমন্ত্রিত এই ১২ জন সফল উদ্যোক্তার বক্তৃতাগুলো নিয়ে পরবর্তী সময়ে একটি বই প্রকাশিত হবে, যা বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ব্যবসা, অর্থনীতি ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর শিক্ষার্থীদের জন্য রেফারেন্স বই হিসেবে ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টি করবে। এই ১২ জন উদ্যোক্তার ওপর ডিআইইউ থেকে ১২টি প্রামাণ্যচিত্রও নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

গীতিআরা সাফিয়া চৌধুরীর বক্তব্যের ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন : https://youtu.be/vb7X6xHIVD0favicon59-4

Leave a Reply