‘ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ারের জন্য দরকার এসটিইএম-এ দক্ষ প্রজন্ম’

‘ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ারের জন্য দরকার এসটিইএম-এ দক্ষ প্রজন্ম’

  • নিউজ ডেস্ক

গ্লোবাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ নেটওয়ার্কের আয়োজনে গত ১৬-১৯ এপ্রিল তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অনুষ্ঠিত গ্লোবাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ কংগ্রেসে বাংলাদেশ থেকে প্রতিনিধিত্ব করেন ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় ও ড্যাফোডিল পরিবারের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সহস্রাধিক উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, গবেষক, নীতিনির্ধারক ও সেরা স্টার্টআপ অংশগ্রহণ করেন। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এদরোগান ১৬ এপ্রিল ২০১৮ এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

গ্লোবাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ কংগ্রেসের সভাপতি ও গ্লোবাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ নেটওয়ার্কের (জিইএন) প্রেসিডেন্ট জনাথন অর্টম্যানস ড. মো. সবুর খানকে বাংলাদেশ থেকে অংশগ্রহণকারী দলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে মনোনয়ন প্রদান করেন। বাংলাদেশে উদ্যোক্তা উন্নয়নে অসামান্য ভূমিকা পালন  করার কারণে ড. মো. সবুর খানকে বাংলাদেশ দল পরিচালনার দায়িত্ব প্রদান করা হয়।

বংলাদেশ থেকে অংশ নেয়া বৃহৎ উদ্যোক্তা সম্প্রদায়ের নেতা হিসেবে ড. মো. সবুর খান বিশ্বের ১৭০টি দেশ থেকে অংশ নেয়া নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বিভিন্ন সভা ও সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া তিনি ‘এসটিইএম+দি ফিউচার ওয়ার্ক’ শীর্ষক একটি বিশেষ সেমিনার পরিচালনা করেন। সেমিনারে কম্বোডিয়ার ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী চানমেতা খান, কানাডার ডাটা ক্যাটালিস্ট মাথিয়াস ওস্কহিনিস্কি মার্স, তুরস্কের বোরাক আইদিন এবং লিম্যাক ইনভেস্টমেন্টের মিস এবরু ওজডেমির উপস্থিত ছিলেন। সেমিনারে মডারেটর হিসেবে উপস্খিত ছিলেন জনাব আর্দা বাতু।

ড. মো. সবুর খান তার সেমিনারে বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশের শিক্ষা নিয়ে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা বলেন। তিনি বাংলাদেশের বর্তমান সুযোগ সুবিধার কথা তুলে ধরেন এবং তিনি মনে করেন এই সম্মেলনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বাংলাদেশের তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য সুযোগ সুবিধার দ্বার উন্মোচিত হবে।

Leave a Reply